শ্রীমঙ্গল সড়কে এলইডি বাতি, জনমনে স্বস্তি

বাংলারজমিন

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১৪ এপ্রিল ২০১৯, রোববার
শ্রীমঙ্গলে শহরতলির শ্রীমঙ্গল-ভানুগাছ সড়কের বেলতলী নামক স্থানে ডাকাতের ভয়ে সড়কের দু’পাশে সোলার বিদ্যুতের এলইডি লাইট (বাতি) স্থাপন করা হয়েছে।  স্থানীয় পুলিশের অনুরোধে শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ ড. আবদুস শহীদের নির্দেশে উপজেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিভাগ বেলতলী নামক স্থানে ৬টি সোলার বিদ্যুৎ লাইট স্থাপন করে। এমপির এমন উদ্যোগে এলাকার যানবাহন চালক, পর্যটকসহ সাধারণ মানুষজন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। গত দু’দিন আগেও রাতের বেলায় চা বাগানঘেরা পাহাড়ি এ সড়ক দিয়ে যানবাহনে যাতায়াতে মানুষের মাঝে এক ধরনের ভয় ও আতঙ্ক ছিল। সড়কে বাতি লাগানোর পর এ ভয় এখন অনেকটাই কেটে যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। শ্রীমঙ্গল শহর হয়ে ভানুগাছ-কমলগঞ্জ যাবার সড়কপথ এটি। সন্ধ্যার পর পরই ডুবে যায় অতল অন্ধকারের গহ্বরে। পাহাড় ও চা বাগানঘেরা সড়কটির এই অংশে থাকে না জনমানবের কোনো কোলাহল। শ্রীমঙ্গল শহরতলির বধ্যভূমি ৭১-এর থেকে পাঁচতারকা হোটেল গ্রান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গল্ফ এর মধ্যবর্তী স্থান বেলতলী।
সড়কটির একপাশে রাবার বাগান ও অপরপাশে রয়েছে চা বাগান। আর নিরিবিলি এ স্থানকে ঘিরেই ডাকাতদলের সদস্যরা ওত পেতে থাকে গাছ ফেলে যানবাহন আটকিয়ে ডাকাতির জন্য। এই সড়কে হঠাৎ করে সংঘবদ্ধ মুখোশপরা ডাকাতদল চা বাগানের শেডট্রি কেটে গাছের টুকরো ফেলে ডাকাতির চেষ্টা চালায়। অনেক সময় ডাকাতরা সফল হয়, আবার পুলিশের তৎপরতায় ডাকাতির চেষ্টাও ব্যর্থ হয়েছে। এমনিভাবে গত বছরের ১৮ই সেপ্টেম্বর রাতে বেলতলী এলাকায় একাধিক গাছ ফেলে ২৫-৩০ জনের ডাকাতদল যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে। এ সময় সড়কে আটকেপড়া বাস, প্রাইভেট গাড়ি ও বেশকিছু সিএনজি অটোরিকশা চালক ও যাত্রীদের মারধর করে মুঠোফোন ও নগদ টাকা-পয়সা লুট নেয়। এ ঘটনার পর ডাকাতরা একই স্থানে আরো একাধিকবার গাছ ফেলে ডাকাতির চেষ্টা চালিয়েছে। কিন্তু টহল পুলিশের তৎপরতা থাকায় পরে ডাকাতির চেষ্টা ব্যর্থ হয়। পাশাপাশি সড়কে বাতি লাগালে ডাকাতির কোনো ভয় থাকবে না। বধ্যভূমি ৭১ পর্যন্ত যদি লাইট লাগানো হয় তাহলে আরো সুবিধা হবে। সিএনজি চালক মামুন আহমেদ বলেন, ‘লাইট লাগানোর ফলে আমরা সড়কে যাওয়া আসায় অনেক নিরাপদ মনে করছি। পুলিশ সুবিধামতো টহলও দিতে পারছে। ডাকাতিও হয় না। আর কিছু লাইট লাগাতে পারলে ভালো হবে। জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান বলেন, ‘এই সড়কে সন্ধ্যার পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত পুলিশের টহল অনেক জোরদার করা হয়েছে।’  



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘বাংলাদেশ দৈবক্রমে সৃষ্টি হয়নি’

পবিত্র লাইলাতুল বরাত আজ

দল গোছাতে ব্যস্ত বিএনপি

অন্যদেশ থেকে লোক এনে প্রচার চালাচ্ছে তৃণমূল

ফেরদৌস-নূরের পর...

মোকাব্বির খানকে শোকজ

ভাই নেই, তাই থেমে গেছে নেহার পড়াশোনা

স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির আগেই সফল হবো

৮ বছরেও বিচার হয়নি

প্রধানমন্ত্রী ব্রুনাই সফরে যাচ্ছেন আজ

অনুমতি পেলেই সিঙ্গাপুরে নেয়া হবে সুবীর নন্দীকে

‘অকুপেন্সি সার্টিফিকেট’ ছাড়া বহুতল ভবন ব্যবহার করা যাবে না

পোশাক শিল্পের অবদান বাড়লেও পরিবেশের জন্য উদ্বেগজনক

‘চীনের বিআরআই উদ্যোগের সম্ভাবনা কাজে লাগাতে চায় ঢাকা’

নুসরাত হত্যা ধামাচাপা দিতে অর্থ লেনদেন হয়েছে: সিআইডি

শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত বলতে পারবো না: এমডি