সংঘর্ষের পর সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ থমথমে

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ১৪ এপ্রিল ২০১৯, রোববার
সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ অভিযান জোরদার করেছে। শুক্রবার বিকালে উপজেলার ইসলামপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ৪৮ রাউন্ড শট গানের গুলি ও তিন রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত ১৩ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন- সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইয়াকুব আলী ও তার ভাই উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ইকবাল হোসেন, কোম্পানীগঞ্জ ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও কোম্পানীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের অফিস সম্পাদক সোহেল রানা, ইসলামপুর গ্রামের মোশাররফ হোসেন, সফিকুল ইসলাম, মনির মিয়া, আনোয়ার হোসেন, ইব্রাহিম, সাইফুর রহমান, রফিক, আব্দুল হাকিম, আবুল হোসাইন, আবু হানিফ, হোছন আলী, নাজমুল, হাবিবুর রহমান, আমির হোসেন, রফিক মিয়া, আশরাফ, আবু বকর, হাছন আলী, শরিফ, আবু হাশেম, মাহমুদা, জাফর, নান্নু মিয়া, আরিফ, শাহ আলম, আব্দুল্লাহ, মোস্তফা, শহিদ, বিল্লাত হোসেন, বশির মিয়া, আশরাফুল, সাজেদা, ইয়ামিন, আকির, কবির ও আলী আহমদ। শিলেরভাঙ্গা গ্রামের- গোলাম কিবরিয়া, সাদেক মিয়া, কাউছার, বুরহান, জিলানি, ইব্রাহিম ও জীবন মিয়া। টুকেরগাঁও গ্রামের- সোহাগ, শরিফ ও মিজান, ঢালারপাড় গ্রামের মাসুক চৌধুরী ও যুবরাজ।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ইসলামপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী ও মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের মেম্বার পক্ষের লোকজনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শুক্রবার বিকালে উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় এলাকায় এক ভীতিকর পরিবেশ তৈরি হয়। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্য দিয়ে ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ কয়েক দফা চেষ্টা চালালে পরিস্থিতি শান্ত হয়। মো. ইয়াকুব আলী জানান, ফার্মেসিতে হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি। বরং তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহেরের লোকজন তার ভাতিজা জাকির হোসেনকে মারধর করে। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল বাছির বিষয়টি সালিশ বিচারে নিষ্পত্তির উদ্যোগ নিলে আমরা মেনে নেই। আমার ছেলে জাফর তার দুই বছরের ছেলে ইয়ামিন ও আকির হোসেনকে নিয়ে মোটরবাইকে টুকেরবাজার যাচ্ছিল। পথিমধ্যে তাদের ওপর হামলা চালায় প্রতিপক্ষের লোকজন। এ হামলায় দুই বছরের শিশু ইয়ামিন গুরুতর আহত হয়েছে। তিনি জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে ৫০-৬০ জন লোক তাদের ওপর আবারো আক্রমণ করলে তারা বেশ কয়েকজন লোক আহত হন। এ সময় তিনি নিজেও আহত হয়েছেন বলে জানান। কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) জসীম উদ্দিন জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে ইসলামপুর গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

এফআর টাওয়ার নির্মাণে দুর্নীতি ২৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

রাসেলকে মাসে দিতে হবে ৫ লাখ, জানাতে হবে আদালতকে

‘স্কুলের ভিতরে নেশায় বাধা দেয়ায় শিক্ষককে মারপিট’

ফেনীতে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন, চারজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

প্রথমবারের মতো সফল লিভার প্রতিস্থাপন বিএসএমএমইউতে

৩১ ইটভাটা মালিকের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে, হাইকোর্টকে পুলিশ

বেরোবির প্রশাসনিক ভবনে তালা

নির্যাতক মাদ্রাসা শিক্ষককে বাঁচাতে মরিয়া প্রভাবশালী মহল

লোকসভার সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন নুসরাত ও মিমি

নড়বড়ে ও পুরনো সেতু দ্রুত মেরামতের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

লক্ষ্মীপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শ্রমিক নিহত

কমিটি নিয়ে কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ১৫

মির্জাগঞ্জে ব্রিজ ভেঙ্গে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনীতির পথ স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে গেছে: ইরান

‘কাউন্সিল হতে দেবে না ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটি’

গ্রামবাসীর ওপর হামলার অভিযোগে ভারতে এক কর্নেল ও ৪০ সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা