বিয়ের সঠিক সময় কোনটি?

ষোলো আনা

ডা. মো. সাব্বির আহমদ | ১২ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪২
বিয়ে মানুষের জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিয়ের সঠিক বয়স নিয়ে আছে নানা মতভেদ। প্রচলিত আছে অনেক রকম ভুল ধারণা। জেনে নেয়া যাক চিকিৎসা বিজ্ঞান বিয়ের সঠিক বয়স সম্পর্কে কি বলে?

মনোবিজ্ঞানের ভাষায়, বিয়ের জন্য বয়সটা গুরুত্বপূর্ণ না, শারীরিক ও মানসিক প্রস্তুতিটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তবে ১৮ বছর বয়স হলে মানুষ শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত হয়। তাই এই বয়সটাই বিয়ের সর্বনিম্ন বয়স।

অপরদিকে ১৮ বছর হওয়ার আগ পর্যন্ত মেয়েদের ইউটেরাস, ওভারি, পেলভিস পরিপক্ব হয় না। এই সময়ের মধ্যে বিয়ে হলে সন্তান নেয়ার সময় মেয়েদের নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। ছেলেদের ক্ষেত্রেও তাই।
২১ বছরের আগে সন্তান নেয়া ঠিক নয়।

৩০ বছরের পর বিয়ে করলে মেয়েদের যেমন গর্ভকালীন নানা সমস্যা হতে পারে
ঠিক তেমনি বেশি বয়সে যে সমস্ত পুরুষ বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তাদের অনাগত সন্তানের হতে পারে নানা জন্মগত রোগ।

সামপ্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, বেশি বয়সে বিয়ে করলে বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটার শঙ্কা বেড়ে যায়। মার্কিন সেই গবেষণা থেকে জানা যায়, ৩২ বছরের পর বিয়ে করার কারণে প্রতি বছর ৫ শতাংশ করে বিবাহবিচ্ছেদের সংখ্যা বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্রে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উটাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক নিকোলাস ওলফিঙ্গার বলেন, ‘৩২ বছরের আগে যারা বিয়ে করেছেন তাদের ক্ষেত্রে অদ্ভুতভাবে প্রতিবছরে অন্তত ১১ শতাংশ বিবাহবিচ্ছেদের আশঙ্কা হ্রাস পেয়েছে।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছেলেধরা সন্দেহে এবার পাঁচ এনজিও কর্মীকে গণপিটুনি

বিএনপি নেতা জাপায়

নিন্দা বর্ষণের মধ্যেও শাসকদলের নরম মনোভাব

ট্রান্সফার :বার্সেলোনায় আসতে পারেন যারা

ভর্তি যুদ্ধ, টপকাতে হবে ২১ জনকে

গণপিটুনি দিয়ে মানুষ মারলে আইনগত ব্যবস্থা: আইনমন্ত্রী

এক আসামির স্বীকারোক্তি, ৩ জন রিমান্ডে

মিন্নির চিকিৎসার আবেদন নামঞ্জুর

ডিসিসি’র দুই স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে হাইকোর্টে তলব

গুজব গণপিটুনি নিয়ে পুলিশেও উদ্বেগ, সারাদেশে সতর্কবার্তা

একমাত্র আসামীর ফাঁসি

সিরিয়ার অখণ্ডতা রক্ষায় আসাদের পাশে থাকবে রাশিয়া: পুতিন

আ.লীগ নেতাদের মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার পরামর্শ রিজভীর

ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা

শিশুকে গলা কেটে হত্যা

‘ছেলেধরা’ সন্দেহে এবার মানসিক ভারসাম্যহীন নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন