মন্টেনিগ্রোর বর্ণবাদী আচরণের তদন্ত করবে উয়েফা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৭ মার্চ ২০১৯, বুধবার
বর্ণবাদী আচরণের দায়ে মন্টেনিগ্রোর বিরুদ্ধে তদন্ত করতে যাচ্ছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফা। অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হলে আর্টিকেল ১৪ ডিআর অনুযায়ী স্টেডিয়াম ব্যান, অর্থদণ্ডসহ আরো বড় শাস্তি পেতে পারে মন্টেনিগ্রো।  
মঙ্গলবার রাতে মন্টেনিগ্রোর মাঠে ইউরো বাছাইয়ের ম্যাচ খেলতে গিয়ে ইংল্যান্ডের রাহিম স্টারলিংসহ বেশ কয়েকজন কালো চামড়ার ফুটবলাররা বর্ণবাদের শিকার হন। গ্যালারি থেকে স্থানীয় সমর্থকরা গালাগালি করতে থাকে। ম্যাচটিতে ৫-১ গোলের বড় জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। ম্যাচের পর ইংল্যান্ড দলের কোচ গ্যারেথ সাউথগেট বলেন, ‘আমি স্পষ্ট শুনেছি, ড্যানি রোজকে গালাগালি করছিল। আমার অবশ্যই এই বিষয় নিয়ে অফিসিয়ালি রিপোর্ট করবো। এটা কোনোভাবেই মানা যায় না।’ তবে মন্টেনিগ্রোর কোচ এলজুবিসা তাম্বাকোবিচ বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, ‘আমি এমন কিছু (বর্ণবাদী আচরণ) শুনিনি কিংবা খেয়াল করিনি।’
মন্টেনিগ্রোর দর্শকদের আচরণে ক্ষুব্ধ ইংলিশ ক্রীড়ামন্ত্রী মিমস ডেভিস।
তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়দের জন্য গর্ব করি। অসাধারণ এই জয়ে এমনটা অপ্রত্যাশিত। উয়েফা দ্রুত ঘটনা তদন্ত করবে, এবং কঠিন পদক্ষেপ নেবে।’
ঘটনার অন্যতম সাক্ষী ম্যানচেস্টার সিটি তারকা রাহিম স্টার্লিং বলেন, ‘কয়েকজন বাজে লোকের জন্য আমাদের জয়ের রাতটাই নষ্ট হয়ে গেল। তাদের অবশ্যই শাস্তি দেয়া উচিত।’
এরপর উয়েফার কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে মন্টেনিগ্রোর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায় ইংল্যান্ড। উয়েফাও তাদের অভিযোগটি আমলে নিয়েছে। আগামী ১৬ই মে মন্টেনিগ্রোর বিরুদ্ধে  অভিযোগের বিস্তারিত  বিবৃতি প্রকাশ করবে উয়েফার শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি। মন্টেনিগ্রোতে খেলতে গিয়ে অপ্রীতিকর অভিজ্ঞতা ইংলিশ ফুটবলারদের জন্য এবারই প্রথম নয়। ছয়বছর আগে মন্টেনিগ্রোতে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ইংলিশ গোলরক্ষক জো হার্ট, ডিফেন্ডার অ্যাশলে কোল ও মিডফিল্ডার স্টিফেন জেরার্ডকে মিসাইল (আতশবাজি) ছুঁড়ে মারে মন্টেনিগ্রোর একদল উগ্র সমর্থক। গ্যালারিতে আগুন জ্বালিয়ে এক বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করে তারা। ওই ঘটনায় মন্টেনিগ্রোকে জরিমানাও করেছিল উয়েফা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন