বিরোধী দলবিহীন বাংলাদেশ আমরা চাই না

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ মার্চ ২০১৯, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫৩
বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে, সংসদে আসুন। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন অংশ নিচ্ছেন না? এভাবে বর্জনের ধারা অব্যাহত রাখলে মুসলিম লীগের মতো বিলীন হয়ে যাবে বিএনপি। গতকাল রাজধানীর ডিপ্লোমা  ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিরোধী দলবিহীন বাংলাদেশ আমরা চাই না। আপনাদের গলায় শক্তি থাকলে ৮ জনের কণ্ঠস্বর ৮০ জনের মতো কাজ করবে। তিনি বলেন, কেউই ভুলত্রুটির ঊর্ধ্বে নন। সরকারের ভুলত্রুটি ধরিয়ে দেয়া বিরোধী দলের দায়িত্ব। বঙ্গবন্ধু, জাতীয় চার নেতা ও একাত্তরের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বের কারণেই একাত্তর ও পঁচাত্তরের ঘাতকদের বিচার হয়েছে।
আগামী বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী ব্যাপকভাবে পালন করা হবে। দেশ-বিদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তি, সাবেক রাষ্ট্রনায়ক যারা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানেন তাদের এদেশে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আনা হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু মানুষের হৃদয়ে আছেন। কিন্তু দুঃখ লাগে বঙ্গবন্ধুকে যেদিন নির্মমভাবে সপরিবারে হত্যা করা হয়, সেই ১৫ই আগস্টে ভুয়া জন্মদিনের নামে কেক কেটে আনন্দ-উল্লাস করেন খালেদা জিয়া ও তার দল। তারা ক্ষমতায় থাকাকালে ১৫ আগস্টের অনুষ্ঠানই আমরা করতে পারতাম না। এমনকি বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ বাজানো নিষিদ্ধ ছিল। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানেও বাধা দিতো। এসব কর্মকাণ্ডের কারণেই আজকে তাদের এই করুণ পরিণতি। তবে তারা আর কোনোদিন সেই পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসতে পারবে না। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, অসামপ্রদায়িক শোষণমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দল ঐক্যবদ্ধ আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। বঙ্গবন্ধু একাডেমির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাব্বির আহমেদ রনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, গণআজাদী লীগের আতাউল্লাহ খান, সংগঠনের মহাসচিব হুমায়ুন কবির প্রমুখ।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

শামসুর রহমান উজ্জল

২০১৯-০৩-২০ ০৬:১০:৪৬

যদি আসলেই চান তবে সব হিংসা বিদ্বেষ ভুলে আলোচনা করে সমাধানের উদ্যোগ নিতে পারেন।ইতিহাস আপনাদের কথা শ্রদ্ধাসহ স্মরণ করবে।

nurul alam

২০১৯-০৩-১৯ ১৬:৪৫:২০

তো আপনারা যে সরকারী দল এ ম্যান্ডেট কে দিয়েছে ? লজ্জ্বা করেনা এসব বলতে ?

আপনার মতামত দিন