ইভিএমের ভিভিপ্যাট নিরাপদ কি না জানতে চেয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

এক্সক্লুসিভ

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৫ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার
ইভিএমে ভোট করানো নিরাপদ নয় বলে  বেশ কিছুদিন ধরেই অভিযোগ করেছেন ভারতের বিরোধী দলগুলো। তবে নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিয়েছে, ব্যালট পেপারে ফেরার কোনো সুযোগ নেই। লোকসভা নির্বাচনের ভোট হবে ইভিএমেই। তবে সব বুথে থাকবে ভিভিপ্যাট (ভেরিফায়েড পেপার অডিট ট্রেইল) যন্ত্র। এর মাধ্যমে ভোটার নিজের ভোট সম্পর্কে নিশ্চিত হবার সুযোগ পাবেন। ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন ভিভিপ্যাট কিভাবে কাজ করে তা ভোটারদের জানিয়ে তথ্য প্রচার করা শুরু করেছে। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের দেয়া আশ্বাসেও আস্থা রাখতে পারেন নি দেশের বিরোধীরা। দেশের ৫০ শতাংশ ইভিএমেই কারচুপি করা সম্ভব বলে ২৩টি রাজনৈতিক দল সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন করেছিল। শুক্রবার সেই পিটিশনের শুনানির শেষে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃতাধীন বেঞ্চ সব ভিভিপ্যাট ঠিক আছে কি না তা পরীক্ষা করে নির্বাচন কমিশনকে জানাতে বলেছে। আদালতের নির্দেশ, আগামী ২৫শে মার্চ পরবর্তী শুনানির দিন কমিশনের কোনো অফিসারকে শীর্ষ আদালতে গিয়ে এ ব্যাপারে সব কিছু জানাতে হবে। ২৩টি বিরোধী দলের অভিযোগ ছিল, ভিভিপ্যাট যন্ত্র থাকা ইভিএমগুলোর ৫০ শতাংশই নিরাপদ নয়। সেগুলো সহজেই ‘হ্যাক’ করা যায়। ফলে, ওই সব ইভিএমের মাধ্যমে ভোটারদের মতামত সঠিকভাবে প্রতিফলিত হওয়ার সম্ভাবনা কম। এই ২৩টি দলের মধ্যে ৬টি জাতীয রাজনৈতিক দল, বাকি ১৭টি আঞ্চলিক দল। অভিযোগকারীদের মধ্যে নাম রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নায়ডু, এনসিপি  নেতা শরদ পওয়ার, কংগ্রেসের  কেসি বেনুগোপাল, তৃণমূল সংসদ সদস্য ডেরেক ও’ব্রায়েন, সমাজবাদী পার্টি নেতা অখিলেশ যাদব, ডিএমকে নেতা এমকে স্ট্যালিন ও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালসহ বহু নেতার। উল্লেখ্য, কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, ভোটগ্রহণ কক্ষে ব্যালট ইউনিটের সঙ্গে ভিভিপ্যাট যন্ত্র লাগানো থাকবে। ভিভিপ্যাটে একটি স্বচ্ছ জানালা আকৃতির খোপ থাকবে। সেটির মধ্য দিয়ে ভোট দেবার সময় একটি ছাপানো কাগজের চিরকুট দেখা যাবে। এই চিরকুটে ভোট সাত সেকেন্ড সময় পাবেন নিজে যে প্রার্থীকে ভোট দিয়েছেন তার নাম ও প্রতীক চিহ্ন। এর পরেই সেটি কেটে যাবে এবং নিচের বাক্সের মধ্যে জমা হবে।   



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভর্তুকি দিয়ে হলেও চাল রপ্তানি করা হবে: অর্থমন্ত্রী

ঠিকাদারি বিল বন্ধের নির্দেশ, দুই তদন্ত কমিটি

‘আগ্রাসন ও পরিণতি’ নিয়ে জিসিসি, আরব লীগের জরুরি বৈঠক ডেকেছে সৌদি আরব

হাসপাতালের মর্গে লাশ, স্ত্রীর দাবি জীবিত, কর্মচারিদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি (ভিডিও)

পাকিস্তানে আজ সবার চোখ থাকবে বিলাওয়াল, মরিয়মের দিকে

পারস্য উপসাগরে তেলস্থাপনায় হামলায় গভীর উদ্বেগ বাংলাদেশের

মুক্তিযোদ্ধার বয়স নির্ধারণে সংশোধিত পরিপত্র বেআইনি

জীবন্ত মাটিচাপা দেয়া শিশুকে উদ্ধার করল কুকুর (ভিডিও)

আমরণ অনশনে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা

আর্নল্ড সোয়ার্জেনেগারকে লাথি মারলো যুবক (ভিডিও)

কৃষক ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে, সরকার নির্বিকার: দুদু

লক্ষ্মীপুরে ৭ বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতন, অভিযুক্ত ইউপি সদস্য পলাতক

বেরোবির ভর্তি পরীক্ষার সোয়া কোটি টাকা বন্টন, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের অসন্তোষ

সারাক্ষণ ভয়ে থাকেন তারা

তিতুমীরের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

ঈদযাত্রায় এবারের প্রস্তুতি যে কোন সময়ের চেয়ে ভালো: ওবায়দুল কাদের