দুধকুমর নদী থেকে বালু উত্তোলন, হুমকির মুখে ব্রিজ-রাস্তা

বাংলারজমিন

নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
 অবৈধভাবে দুধকুমর নদী থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করছে কিছু অসাধু বালু ব্যবসায়ী। এতে হুমকির মুখে রয়েছে রাস্তা, ব্রিজ, মসজিদ, স্কুল, মাদরাসা ও কয়েক শ বাড়িঘরসহ বহু স্থাপনা। এতে করে নীরব ভূমিকা পালন করছে প্রশাসন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নাগেশ্বরী উপজেলার রায়গঞ্জ ইউনিয়নের মোল্লারভিটা এলাকার কিছু অসাধু ব্যবসায়ী দুধকুমর নদী থেকে বালু উত্তোলন করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। স্থানীয়রা জানায় দীর্ঘদিন থেকে ওই এলাকার নজরুল ইসলাম, হারুন মিয়া, রফিকুল ইসলামসহ একটি অসাধু চক্র দীর্ঘদিন যাবৎ একাধিক ড্রেজার বসিয়ে দুধকুমর নদী থেকে বালু উত্তোলন করে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিজের পকেট ভারি করছে। এ ব্যাপারে এলাকার কোনো লোক বাধা দিলে তাকে মিথ্যে মামলাসহ বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। স্থানীয়রা আরো জানায় এর আগে ওই এলাকায় বালু উত্তোলনের ফলে রাস্তাঘাট অকেজো হয়ে পড়ছে। তাই স্থানীয় সচেতন মহল কিছুদিন আগে রাস্তায় গাছের গুঁড়ি গেঁড়ে রাস্তা অবরোধ করে রাখে, যাতে ট্রলি কিংবা ট্রাক্টর দিয়ে রাস্তার ক্ষতি না হয়। তখন ওইসব অসাধু ব্যবসায়ী নাগেশ্বরী থানা পুলিশ দিয়ে তাদেরকে হুমকি প্রদান করে। সরজমিনে দেখা গেছে ট্রলি ও ট্রাক্টর দিয়ে বালু পরিবহনের কারণে রাস্তাগুলো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। এমনকি বালু উত্তোলনের ফলে বর্ষা এলে ওই এলাকার হাজারও পথচারীর একমাত্র চলাচলের মাধ্যম রাস্তাটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। সঙ্গে বিলীন হয়ে যাবে অতি প্রাচীন সুইজগেট ব্রিজ, নদী সংলগ্ন স্কুল, মাদরাসা, মসজিদ, হাটবাজার ও শত শত বাড়িঘরসহ বিভিন্ন স্থাপনা। ফুল মিয়া, আনোয়ার হোসেনসহ স্থানীয় অনেকে অভিযোগ তুলে বলেন বালু ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী হওয়ায় বালু উত্তোলনে বাধা দিলে তারা আমাদেরকে হুমকি প্রদান করেন। মিজানুর রহমান নামের আরেকজন বলেন আমার নিজের জমিতে রাস্তা করতে দিয়েছি। এখন মনে হয় রাস্তাটি থাকবে না। আমাদের বাড়িও নদী খেয়ে ফেলবে। বালু ব্যবসায়ী হারুন-উর রশিদ বালু উত্তোলনের কথা স্বীকার করে বলেন এখানে লুকোচুরির কিছু নেই, আমরা প্রশাসনিক কোনো পার্মিশন পাইনি। এসব বালু তোলা অন্যায়। নজরুল ইসলাম বলেন, আসলে যারা বালু উত্তোলন করছেন তারা আমার ভাই, চাচা এরকম নিজেদের মধ্যে। কিন্তু আমি নিজে জড়িত নই। যদি কেউ আমার নাম বলে থাকেন তবে ভুল বলেছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শঙ্কর কুমার বিশ্বাস বলেন আমি বিষয়টি অবগত আছি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

এবার মালিবাগে পুলিশকে লক্ষ্য করে হামলা

বগুড়ায় নুরের ওপর হামলা

ধানের দাম নেই, চালে ছাড় নেই

বৃষ্টিতেও দৃঢ় মনোবল টাইগারদের

খালেদার মামলায় আদালত স্থানান্তরের বৈধতা নিয়ে রিট

তরুণ সাংবাদিক ফাগুনের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় হত্যা মামলা

ট্রাভেল পারমিটে কড়াকড়ি জটিলতার আশঙ্কা

গতবছর ফেসবুকের কাছে ১৯৫ ব্যবহারকারীর তথ্য চেয়েছিল বাংলাদেশ

রঙ লাগিয়ে ঈদে সড়কে নামছে লক্করঝক্কড় বাস

তারেকের স্মৃতি হাতড়ে ফেরেন নুরুন নাহার

রাজাকারদের তালিকা সংরক্ষণের সুপারিশ

মামলার আগেই গ্রেপ্তার, শাহপরাণে তোলপাড়

ইতালিতে প্রদর্শিত হলো ড. ইউনূসের জীবনীভিত্তিক অপেরা

৩০শে মে সন্ধ্যায় শপথ নেবেন মোদি

পদত্যাগ করলেন মহারাষ্ট্র কংগ্রেস প্রধান

চিকিৎসকদের আরো দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান ডা. এ আর খানের