আর কত নিচে নামবে মানুষ নামের এইসব নরপিশাচ!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, রোববার
প্রতীকী ছবি
ভারতের মহারাষ্ট্র। সেখানে ঘটেছে বর্ণনার অতীত এক নৃশংসতা। লোমহর্ষক অপরাধ। এক নরপিশাচ অনিকেত (ছদ্মনাম) মাত্র চার বছর বয়সী একটি কন্যাশিশুকে ধর্ষণ করেছে। তার দেহ যাতে কেউ সনাক্ত করতে না পারে এ জন্য তার গায়ের চামড়া তুলে ফেলে। শিরñেদ করে। বর্ণনার অযোগ্য এই নৃশংসতায় স্তব্ধ এলাকার মানুষ।
অনিকেতের বয়স ২৭ বছর। সে মহারাষ্ট্রের খোপোলি শহরের এক মা শোভার (ছদ্মনাম) কাছে যৌন সুবিধা দাবি করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন শোভা। তিনি প্রকাশ্যে জনগণের সামনে অপমান করেন অনিকেতকে। এর বদলা নিতে ভিন্ন কৌশল খোঁজে সে। অভিযোগে বলা হয়েছে, শোভার চার বছর বয়সী শিশুকন্যাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায় অনিকেত। তাকে ধর্ষণ করে। এরপর প্রতিশোধ নিতে তাকে হত্যা করে। এরপর তার মাথা দেহ থেকে আলাদা করে ফেলে রান্না ঢ়রের একটি চাকু দিয়ে। ওই মৃতদেহ তার বাড়ি থেকে ৩০০ মিটার দূরে নিয়ে ফেলে আসে। টাইমস অব ইন্ডিয়া, বৃটিশ সংবাদ মাধ্যমে এ খবর ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বলা হয়েছে, ওই শিশুটিকে কেউ যাতে সনাক্ত করতে না পারে এ জন্য তার শরীরের চামড়া পর্যন্ত তুলে ফেলা হয়।
ওদিকে মেয়েকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন শোভা। তাকে না পেয়ে একজন বান্ধবীকে নিয়ে যান পুলিশের কাছে। সেখানে নিখোঁজ ডায়েরি করেন। তারপর খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে শিশুটির লাশের হদিস মেলে। এ সময় তার শরীরে পোড়ার চিহ্ন ছিল। অনুসন্ধানের এক পর্যায়ে অনিকেতের বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় রক্তমাথা একটি ছুরি। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় অনিকেতকে। এ সময় সে অপরাধ স্বীকার করেছে। যদি এ হত্যায় সে অভিযুক্ত হয় তাহলে যাবজ্জীবন কারাদন্ড হতে পারে।
একটি সূত্র বলেছে, গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে আটটার দিকে অনিকেতের বাড়ি যায় ওই শিশুটি। তাকে সঙ্গে নিয়ে তার মায়ের কাছে ফিরে যায় অনিকেত। এ সময় সে সুবিধা চাওয়ায় শোভা তার ওপর ক্ষিপ্ত হন এবং প্রকাশ্যে তাকে অপমানিত করেন। ওই সূত্রটি বলেছে, এতে প্রতিশোধ নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় অনিকেত। যখন শোভা ঘরের ভিতর কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন, তখন তার শিশুকন্যার মুখের ভিতর কাপড় গুঁজে দেয় অনিকেত। তাকে নিয়ে যায় নিজের বাড়ি। তারপর ঘটে সব ঘটনা। সে শোভার ওপর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য এসব ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।
সূত্র বলেছে, অনিকেতকে অপমান করার সময় শোভা তাকে সতর্ক করেছিলেন। বলেছিলেন সে যেন তার বাড়িতে আর প্রবেশ না করে। এ কথা শোভা তার স্বামীকে জানিয়ে দেয়ারও হুমকি দেন। উল্লেখ্য, অভিযুক্ত অনিকেত ও নিহত শিশুটির পিতা দুই বন্ধু। তারা দু’জনেই উত্তর প্রদেশের।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভারতে যৌন নির্যাতন ভয়াবহ আকারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে তা অধিক হারে নৃশংসতায় পৌঁছাচ্ছে। ২০১২ সালে রাজধানী নয়া দিল্লিতে একটি চলন্ত বাসের ভিতর গণধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয় মেডিকেল পড়–য়া জ্যোতি নামের এক যুবতীকে। সেই থেকে এসব খবর প্রতিদিনই প্রায় আসছে খবরের কাগজে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন