নবীনগরে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নবীনগর প্রতিনিধি | ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার
নবীনগর উপজেলা পরিষদে দলের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে হাবিবুর রহমান সরকারের একক নাম প্রস্তাব করা হয় কেন্দ্রর কাছে। ১৯ মনোনয়ন প্রার্থীর মধ্যে শুধু তাকে বাছাই করা নিয়ে আলোচনা গতিতে উঠার মুখে সংবাদ সম্মেলন করে বোমা ফাটান মনোনয়নের অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীরা। হাবিবুর রহমান স্টিফেন শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের প্রতিষ্ঠা করা ‘বাইশমৌজা সোবহানিয়া দাখিল মাদরাসা’ দেখাশোনা করেন বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী কাজী জহির সিদ্দিক টিটু, সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস ও এইচ.এম আল-আমিন আহমেদ। গোলাম আযম আর হাবিবুর রহমান দু-জনেই নবীনগরের বীরগাঁও গ্রামের বাসিন্দা। হাবিবুর রহমান ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা এই অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলনে তারা জানান জালিয়াতির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম লিপিবদ্ধ করায় বীরগাঁও ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে অভিযোগও দেয়া হয়। তারা আরো অভিযোগ করেন, হাবিবুর রহমানের সঙ্গে তৃণমূল নেতাকর্মীদের কোনো যোগাযোগ নেই। এসব অভিযোগের মধ্যে বিশেষত গোলাম আযমের মাদরাসা তত্ত্বাবধান, আত্মীয়তার সম্পর্কের অভিযোগের কারণে আলোচনার কেন্দ্রতে চলে আসেন স্টিফেন। রোববার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঢাকায় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এই অভিযোগ তদন্ত করে দেখার আশ্বাস দেন।
এরপরই গতকাল সোমবার নবীনগর প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে হাবিবুর রহমান স্টিফেন এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি কাজী জহির উদ্দিন সিদ্দিক টিটু, সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস ও আল-আমীনের তার বিরুদ্ধে করা অভিযোগের উল্লেখ করে বলেন, তারা বলেছেন আমি কুখ্যাত রাজাকার গোলাম আজমের আত্মীয়, আমি রাজাকার, আমি দুটি ধর্ম অবলম্বন করছি। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও  ভিত্তিহীন। বিষয়টি নিয়ে উত্তাপও ছড়িয়েছে নবীনগরে। রোববার হাবিবুরের সমর্থকরা নবীনগরে বিক্ষোভ করেন। এ সময় সংবাদ সম্মেলনকারী দলের ওই তিন মনোনয়ন প্রার্থীর পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে দেয়া হয়। এবিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল বলেন, নবীনগরে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন চেয়েছেন ১৯ জন। মনোনয়ন দিতে হবে একজনকে। সবাই প্রার্থী বাছাই করার দায়িত্ব আমার ওপর দিয়েছেন। তারপরও আমি একা এব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেইনি।  আমি উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে এ নিয়ে পরামর্শ করি এবং ঝামেলা এড়াতে আমরা একজনকেই বাছাই করি। তাছাড়া তার প্রিভিয়াস রেকর্ড ভালো। সে একজন মুক্তিযোদ্ধা। এখন বলা হচ্ছে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা। অথচ গোলাম আযমের গ্রামে সে আওয়ামী লীগকে প্রতিষ্ঠা করেছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নতুনদের কাছে কোনটা প্রিয়; ফেসবুক নাকি লিটল ম্যাগাজিন?

ফেসবুকে পরিচয়,প্রেম-বিয়ে অত:পর

পরিবারের সবাইকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে শ্যালিকাকে ধর্ষণ

ভারতের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক ডিএনএতে: ক্রাউন প্রিন্স

'খালেদা জিয়া কবে মুক্তি পাবেন?'

গ্যাস সরবরাহ বন্ধ, দুর্ভোগ

এবার দল থেকে পদত্যাগ করলেন ৩ কনজারভেটিভ এমপি

চট্টগ্রামে পিকনিক বাসে ট্রেনের ধাক্কা, আহত ১৩

র‌্যাগিংয়ের অভিযোগে ইবির ৫ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের অভিনব সাজা

আড়ং মোড়ে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ, ২ গাড়িতে আগুন, দগ্ধ ৫

পাবনায় হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

অর্থনৈতিক সফলতায় বাংলাদেশি রেসিপি

প্রশ্নফাঁস ও ফলাফল পরিবর্তন করে দেয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেপ্তার ৪

৪র্থ ধাপে ১২২ উপজেলায় নির্বাচন ৩১শে মার্চ

নিভৃতচারী এক ভাষাসৈনিক খলিলুর রহমান, মেলেনি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি