হ্যাঁ, তিনি মিশেল ওবামা!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার
গ্রামি পুরস্কারের আসর। স্বাভাবিকভাবেই সেখানে তারায় তারায় ভরা থাকবে। কিন্তু লস অ্যানজেলেসে রোববার রাতে ৬১তম গ্রামি এওয়ার্ডের অনুষ্ঠানে সব তারকাকে ছাড়িয়ে নিজের উচ্চতায় অনেক উপরে উঠে গিয়েছেন একজন। তিনি আর কেউ নন। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামা। মঞ্চে তখন লেডি গাগা, জেনিফার লোপেজ, জাদা পিঙ্কেট, অ্যালিসিয়া কিস। ঠিক এমনই এক মুহূর্তে আকস্মিকভাবে উপস্থিত মিশেল ওবামা। অমনি ভিন্ন এক আবহ তৈরি হয়ে যায় পুরো হলে।
শ্রদ্ধার সঙ্গে ফ্লাইং কিস  উড়ে আসতে থাকে তার দিকে। নীল পর্দায় যারা কৃত্রিম হাসি দেন সেইসব তারকা অকৃত্রিম হাসি বিনিময় করেন তার সঙ্গে। কেউ কেউ আবেগে কেঁদে ফেলেন। কেউবা আবেগে আর্তনাদ করে ওঠেন। হ্যাঁ, এমনই এক আবহ তৈরি করেছিলেন মিশেল ওবামা। এ রাতে তার পরনে ছিল ঢিলেঢালা পোশাক। তা থেকে যেন ঠিকরে পড়ছে হাজার তারা। চিকমিক করছে। স্বভাবসুলভভঙ্গিতে তিনি মোটাউন ও বিয়েন্সের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বললেন, গান আমাদের সব কিছুর কথা বলে দেয়। প্রতিটি কণ্ঠের ভিতরই যেন এক একটি কাহিনী, এক একটি ইতিহাস আছে।

এ নিয়ে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল লিখেছে, এবারের শোতে ছিল বাধভাঙা উচ্ছ্বাস। ভক্ত শ্রোতাদের মন জয় করে নিয়েছে। কিন্তু তার চেয়ে বেশি প্রশংসা কুড়িয়েছেন ওই মিশেল ওবামা। তিনি শুরুতে যেন প্রতিটি মানুষকে বিস্মিত করে দেন। অকস্মাৎ হাজির হন। লস অ্যানজেলেসের স্ট্যাপলস সেন্টারে তখন তারায় তারায় জ্বল জ্বল করছে। তার মাঝে যখন হেঁটে মঞ্চে উঠলেন সাবেক ফার্স্ট লেডি, তখন যেন আকাশ থেকে পড়েছেন উপস্থিতরা। লেডি গাগা, জেনিফার লোপেজ, জাডা পিঙ্কেট স্মিথ ও অ্যালিসিয়া কিস’কে পাশে রেখে তিনি আবেগঘন বক্তব্য রাখেন। বলেন, কিভাবে গান তার জীবনের সব গল্প বলে সব সময়। তিনি বলেন, মোটাউন রেকর্ড থেকে শুরু করে ‘হু রান দ্য ওয়ার্ল্ড’ গানগুলো আমাকে গত শতাব্দীতে রশদ যুগিয়েছে। গানগুলো আমাকে সব সময়ই আমার গল্প বলেছে। আমি জানি, একথা শুধু আমার জন্য নয়, প্রতিটি মানুষের জীবনে সত্য।

সঙ্গীত তারকা বিয়োন্সের প্রতি তার এমন মূল্যায়নে দর্শকদের মধ্যে যেন উন্মাদনা ছড়িয়ে পড়ে। তিনি বলতে থাকেন, গান আমাদেরকে নিজেকে অন্যের কাছে শেয়ার করতে সাহায্য করে। আমাদের মর্যাদা, আমাদের দুঃখ বেদনা, এমন কি আমাদের আশা, হাসি আনন্দ সব ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে গান। গানগুলো আমাদেরকে যেন একজন মানুষকে আরেকজনের কাছে এনে দেয়। একজন আরেকজনকে আমন্ত্রণ জানায়।

এ রাতে মিশেল ওবামা পরেছিলেন শচীন অ্যান্ড বাবি’র ডিজাইন করা পোশাক। তিনি তা পরে যখন মঞ্চে হাঁটছিলেন মনে হচ্ছিল
তার শরীর তারায় ভরা। কোমরে বেষ্টন করে ছিল স্ফুলিঙ্গ ছড়ানো একটি বেল্ট।

মিশেল ওবামা আরো বলেন, আমরা সবাই গান ভালবাসি। আমাদের জীবনের অংশ গান। এখানে যারা আছেন উপস্থিত তারা সবাই আলো বিকিরণ করছেন। এমন একটি মুহূর্ত আমরা একসঙ্গে হতে পেরে আমি খুব গর্বিত। কারণ, গান হলো সেই জিনিস যার মধ্য দিয়ে আমরা কাঁদি। গান হলো সেই জিনিস যার মধ্য দিয়ে আমরা আন্দোলিত হই। গান হলো সেই জিনিস যার মধ্য দিয়ে আমরা ভালবাসি। গান হলো আমাদের অভিন্ন বৈশ্বিক ভাষা। আসুন আমরা সৎ হই। এটা একটা সেলিব্রেশন। আপনারা ভাববেন না এখানে আমি একা। আমি কি আমার কিছু বোনকে এখানে আজ রাতে ডেকে নিতে পারি? প্রশ্ন করেন মিশেল ওবামা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

জামায়াতের গন্তব্য কোথায়?

সড়কের শৃঙ্খলা ফেরাতে শাজাহান খানের নেতৃত্বে কমিটি

গণশুনানিতে অনড় ঐক্যফ্রন্ট

ঢাকায় যত বাগ

টিকিট বুকিংয়ের নামে প্রতারণা

আমিরাতের প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে আরো ৭ প্রার্থী

যেভাবে নাসায় ডাক পেলেন পাঁচ তরুণ

ভোগান্তির পর গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক

অর্থ প্রাপ্তি সাপেক্ষে দুই হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি

সানাইয়ের ভুল স্বীকার

ভালোবাসা দিবসের রাতে সাভারে পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণ

বৃহত্তর ঐক্যে বাম জোট ভোট পেছানোর দাবিতে ছাত্রদল, নির্বাচনমুখী ছাত্রলীগ

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, নির্বাচন কমিশন, জনপ্রশাসন সচিবসহ ৪৪ কর্মকর্তা ফ্ল্যাট পেলেন

এসডিজি অর্জনে সক্ষমতার পথে বাংলাদেশ: স্পিকার

জামায়াতের নিবন্ধন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য যথার্থ- অ্যাটর্নি জেনারেল