বন্দরে আওয়ামী লীগের ডজন প্রার্থী মাঠে

বাংলারজমিন

নূরুজ্জামান মোল্লা, বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) থেকে | ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার
আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জ  বন্দর  উপজেলায়  চেয়ারম্যান, ভাইস  চেয়ারম্যান  ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাসীন দলের এক ডজনের অধিক সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রত্যেকের দলের পদ পদবি রয়েছে। এদের মধ্যে ইউনিয়ন পরিষদ বর্তমান চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন দুই জন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজস্ব সমর্থন নিয়ে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রয়েছে সক্রিয়। পোস্টার, ব্যানার ও  ফেস্টুনে নিজেদের প্রার্থিতা জানিয়ে ভোটারদের ছালাম ও শুভেচ্ছা দিচ্ছেন। দলীয় প্রার্থী অধিক হওয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা রয়েছেন দ্বিধাদ্বন্দ্বে ও কাণঠাসায়। দলীয় কোন্দলের আশঙ্কা করছেন অনেকেই।
বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা বিএনপির সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল উপজেলা জুড়ে বিচরণ থাকলেও অন্য কাউকে দলের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে কেউ নির্বাচনী মাঠে নামেনি। গত উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আতাউর রহমান মুকুল বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হলেও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নামেন না বলে দল তাকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কার করে। এ ছাড়াও গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি দলীয় মনোনীত চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মাহমুদা এবং জামায়াত মনোনীত ভাইস চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম নির্বাচিত হন।  আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মধ্যে কেউ নির্বাচিত হননি। সূত্রে জানা গেছে, ক্ষমতাসীন দলের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা হচ্ছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএস রশিদ, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ সালাম, জাতীয় পার্টির নেতা ও কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন প্রধান। ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন- বন্দর থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুল ইসলাম জুয়েল, আওয়ামী লীগ নেতা রোমান হোসাইন, জাতীয় পার্টির নেতা সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম কাশেম, যুগ্ম সম্পাদক আক্তার  হোসেন,  মাদরাসা শিক্ষক হাফেজ পারভেজ। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক নুরুন নাহার সন্ধ্যা, বন্দর থানা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী সালিমা হোসেন শান্তা, বন্দর থানা যুব মহিলা লীগের নেত্রী মাফিয়া আক্তার তানিয়া, মাহমুদা আক্তার পান্না ও বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মাহমুদা আক্তার। উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে ৩১শে জানুয়ারি মদনপুর ফুলহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হল রুমে থানা আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায়  নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ মোহাম্মদ ভিপি বাদল, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশিদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবেদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন। সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের সমর্থনে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশিদ, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি, মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, এম এ সালামসহ ৩ জনকে প্রার্থী হিসাবে চূড়ান্ত করা হয়। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ-মহিলা) পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নতুনদের কাছে কোনটা প্রিয়; ফেসবুক নাকি লিটল ম্যাগাজিন?

ফেসবুকে পরিচয়,প্রেম-বিয়ে অত:পর

পরিবারের সবাইকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে শ্যালিকাকে ধর্ষণ

ভারতের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক ডিএনএতে: ক্রাউন প্রিন্স

গ্যাস সরবরাহ বন্ধ, দুর্ভোগ

এবার দল থেকে পদত্যাগ করলেন ৩ কনজারভেটিভ এমপি

চট্টগ্রামে পিকনিক বাসে ট্রেনের ধাক্কা, আহত ১৩

পদকপ্রাপ্তদের মাঝে একুশে পদক প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী

র‌্যাগিংয়ের অভিযোগে ইবির ৫ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের অভিনব সাজা

আড়ং মোড়ে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ, ২ গাড়িতে আগুন, দগ্ধ ৫

পাবনায় হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

অর্থনৈতিক সফলতায় বাংলাদেশি রেসিপি

প্রশ্নফাঁস ও ফলাফল পরিবর্তন করে দেয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেপ্তার ৪

৪র্থ ধাপে ১২২ উপজেলায় নির্বাচন ৩১শে মার্চ

নিভৃতচারী এক ভাষাসৈনিক খলিলুর রহমান, মেলেনি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি