বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়

নেই কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ তবুও ফি আদায়!

শিক্ষাঙ্গন

ইভান চৌধুরী, বেরোবি থেকে | ২২ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:১৪
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) আজ পর্যন্ত কোন ছাত্র সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ১১ বছরেও তৈরি করা হয়নি কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের অবকাঠামো। নেই কোন দৃশ্যমান উদ্যোগও। অথচ নিয়ম রয়েছে শিক্ষার্থীদের বৃহত্তর স্বার্থে প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ গঠনের। ছাত্র সংসদ না থাকলেও বছরের পর বছর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এ বাবদ ফি আদায় করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে ছাত্রদের কাছ থেকে নেয়া এই অর্থ কোথায় কিভাবে ব্যয় হচ্ছে তার সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে শুরু করে বিভিন্ন সেশনে ভর্তি হন মোট ১০ হাজার ৯৪৭ জন শিক্ষার্থী (২০১৭-১৮ সেশন পর্যন্ত)। ভর্তিকালীন সময়ে প্রতিটি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ বাবদ ২০০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। সে হিসেবে এখন পর্যন্ত ২১ লক্ষ ৮৯ হাজার ৪০০ টাকা জমা থাকার কথা কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ফান্ডে। কিন্তু এই অর্থের সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য নেই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কাছে। একাধিকবার এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নানান টালবাহানায় তথ্য দেননি সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ  নিজেই বর্তমান ট্রেজারার, তিনিই এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য দিতে পারবেন। কিন্তু ভিসি বেশির ভাগ সময় ঢাকায় অবস্থান করায় কার্যালয়ে দেখা পাওয়া যায় না। কয়েকবার ভিসি কার্যালয়ে গিয়েও না পেয়ে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি বরাবরের মত ফোন রিসিভ করেননি।

এদিকে ছাত্র সংসদ নিয়ে বেরোবি শাখা ছাত্রলীগ মাঝে মাঝে আওয়াজ তুললেও অভ্যন্তরীন কোন্দলের কারণে সে দাবির ধারাবাহিকতা থাকে না।

কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সভাপতি গাজী মাজহারুল আনোয়ার জানান, ছাত্রদের বিভিন্ন দাবি আদায়ে ছাত্রদের একজন নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকা দরকার। দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়েও ছাত্রদের দাবি আদায়ে সচেষ্ট হবেন এমন একজন নির্বাচিত প্রতিনিধির জন্য ছাত্র সংসদ নির্বাচন অতি জরুরী হয়ে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক ও লোক-প্রশাসন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক সাব্বীর আহমেদ চৌধুরী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন জরুরী। ছাত্র সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে ভবিষ্যতে যোগ্য নেতৃত্ব পাবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের রাজনীতিতে ছাত্র সংসদ নেতারা অতীতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, ভবিষ্যতেও করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এ ব্যাপারে বেরোবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নোবেল শেখ বলেন, ছাত্র সংগঠনদের গণতন্ত্র চর্চার জন্য ছাত্র সংসদ নির্বাচন অন্যতম মাধ্যম। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দাবি আদায়ে ছাত্র সংসদ খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। আমরা চাই, খুব তাড়াতাড়ি যেন ছাত্র সংসদ নির্বাচন দেয়া হয়।
ছাত্র সংসদের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি যুগেশ ত্রিপুরা বলেন, ছাত্র সংসদ নির্বাচন অবিলম্বে হওয়া উচিত। তাহলে বছর বছর যে ফি আদায় করা হচ্ছে আমাদের কাছ থেকে সেটার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চত করা সহজ হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত ক্যাম্পাসের ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনদের নিয়ে ছাত্র সংসদ গঠনের ব্যাপারে আলোচনা করা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কসাইখানা থেকে কলেজে মহিষ...

দেশের ৫ কোটি মানুষ থাইরয়েড সমস্যায় ভুগছেন

সরকার গঠনের দাবি জানালেন মোদি

দক্ষিণ এশিয়ায় একমাত্র বাংলাদেশেই নির্বাচিত সরকার নেই

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডাকসু ভিপির ইফতারে বাধা ছাত্রলীগের, হোটেলে তালা

জনগণ ঐক্যবদ্ধ হলে সব কিছু করা সম্ভব: ড. কামাল

মির্জাগঞ্জে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

মধ্যপ্রাচ্যে যাচ্ছে আরও ১৫০০ মার্কিন সেনা

মানবাধিকার সুরক্ষায় সরকার দায় এড়াচ্ছে

শান্তিরক্ষীর প্রতি জাতিসংঘের সম্মাননা

রামেক হোস্টেলের ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

বান্দরবানে অপহৃত আওয়ামী লীগ নেতার লাশ উদ্ধার

ভারতেও জেএমবি নিষিদ্ধ

গুজরাটে আগুনে মৃত কোচিং সেন্টারের ১৯ জন ছাত্রই নাবালক

জিতলেন তৃণমূলের এক প্রার্থী, হারলেন অন্যজন

মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩, ঢাকা সিলেট মহাসড়ক অবরোধ