ফের এক হলেন তারা

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৪
কয়েকদিন আগেই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্‌সি তার স্বামী নাজিমুজ্জামান জায়েদের সঙ্গে থাকছেন না বলে সংবাদমাধ্যমকে জানান। গত প্রায় দু’মাস ধরে তারা আলাদা থাকছেন বলেও জানা যায়। অভিমান ও খানিক মতবিরোধের জেরেই ছিল এই আলাদা হওয়া। ন্যান্‌সি তখন বলেন, আমি মূলত আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে জায়েদের বিরুদ্ধে আমার কোনো অভিযোগ নেই। তাছাড়া সে অভিযোগ করার মতো মানুষও নয়। অত্যন্ত ভদ্র ও নম্র স্বভাবের মানুষ জায়েদ। সব কিছুই ঠিকঠাক চলছে আমাদের। কিন্তু আমি অনুভব করেছি কোথায় যেন আমাদের মধ্যে একটি শূন্যতা কাজ করছে। সে কারণেই আপাতত আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। আমি নিজেকে আরো সময় দিতে চাই। সেই বক্তব্যের প্রায় দুই সপ্তাহের মাথায় সকল মান অভিমান পর্বের শেষ হয়েছে। যে মতানৈক্য তৈরি হয়েছিল তারও সমাধান হয়েছে। আবার এক হয়েছেন ন্যান্‌সি ও জায়েদ। গতকাল মানবজমিনের সঙ্গে আলাপকালে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। ন্যান্‌সি বলেন, আমরা আসলে একই ছিলাম। হয়তো কিছু সময়ের জন্য
আলাদা ছিলাম। দু’জনের প্রতি দু’জনার ভালোবাসা ও শ্রদ্ধাবোধে কমতি কখনোই ছিল না। জায়েদ অত্যন্ত ভালো একজন মানুষ। সেটা ওর কাছের যারা সবাই মোটামুটি জানে। এজন্য তার সঙ্গে আমি প্রায়ই মান-অভিমান করি। কিন্তু সে করে না। সে রাগের কথা বললেও রাগ করে না, এটাও তার প্রতি আমার অভিমানের আরেকটা কারণ। যাই হোক, আলাদা থাকার দিন শেষ। অতঃপর আমরা সুখে-শান্তিতে একসঙ্গে বসবাস করতে শুরু করেছি। প্রসঙ্গত ন্যান্‌সি-জায়েদের সংসার জীবন ছয় বছরেরও বেশি সময় অতিক্রম করেছে। এরমধ্যে কোনো সময়েই তাদের মধ্যে কোনো দ্বন্দ্বের কথা শোনা যায়নি। দুজনে মাস দুয়েক আগে একসঙ্গে অস্ট্রেলিয়া সফর করে আসেন। তারপরই আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ন্যান্‌সি। তিনি বলেন, আসলে আমি তখন অনুভব করেছিলাম আমাদের মধ্যে কোথায় যেন একটা অদৃশ্য দূরত্ব তৈরি হয়েছে। কিন্তু আসলে এবার সব ভুল বোঝাবুুঝির অবসান ঘটেছে। আমি ও জায়েদ আমাদের দুই মেয়েকে নিয়ে একসঙ্গে থাকছি। খুব ভালোভাবেই আমাদের সময়গুলো কাটছে। সারা জীবন যেন এভাবেই কাটাতে পারি সেটাই চাওয়া।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সেনাসদস্য নিহত

ঈদে সড়কেই প্রাণ গেল ২২৪ জনের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আদৌ শুরু হচ্ছে কি?

কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮

এখনো উচ্চ ঝুঁকি ২৪ ঘণ্টায় ১৭০৬ রোগী ভর্তি

পার্বত্য চট্টগ্রাম ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ

ডেঙ্গুর প্রজননস্থলে কতটা যেতে পারছেন মশক নিধন কর্মীরা?

বৈঠকের পর চামড়া বিক্রিতে সম্মত আড়তদাররা

জনগণকে সতর্ক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পরামর্শ

ছিনতাইকারীর হাতে খুন হন কলেজছাত্র রাব্বী

শিক্ষিকাকে গণধর্ষণের পর হত্যা

শহিদুল আলমের মামলা স্থগিতই থাকবে

ডেঙ্গুর ভয়ে স্কুলে যাওয়া বন্ধ তবুও...

রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে ঢামেকে সংঘর্ষ, আহত ২৫

টার্গেট রাজনৈতিক সম্পর্ক দৃঢ়করণ

ইউজিসি প্রফেসর হলেন ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ