রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প ৪ বছর ধরে লালফিতায় বন্দি

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে | ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার
দেশের আলোচনা রংপুর এগিয়ে থাকলেও উন্নয়নে রয়েছে পিছিয়ে। রংপুর বিভাগ হয়েছে ২০১০ সালে। সিটি কর্পোরেশন বাস্তবায়নের ৬ বছর পেরিয়ে গেছে। এখন পর্যন্ত রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়নি। ৪ বছর আগে মন্ত্রিপরিষদে রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প গঠনের অনুমোদন দিলেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় ওই প্রকল্প লালফিতায় বন্দি রয়েছে। ফলে রংপুর নগরিকে ঘিরে কোনো মাস্টার প্লান তৈরি করা সম্ভব হয়ে উঠেনি। জানা গেছে, ২০১৪ সালে ৮ই জুন রংপুর, সিলেট ও বরিশাল বিভাগে নতুন করে উন্নয়ন প্রকল্প গঠনের অনুমোদন দেয় প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটি। সে সময় মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির ১৫০০ সভায় এই স্বশাসিত সংস্থা গঠনের বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থমন্ত্রণালয় থেকে মতামতের আলোকে টেকনিক্যাল কমিটি কর্তৃক যাচাই-বাছাইয়ের পর প্রস্তাবিত রংপুরসহ ৩টি কর্তৃপক্ষের আইনের খসড়া আইনে প্রণয়ন করা হয়। পুরনো রংপুর জেলা বিভাগে উন্নীত হওয়ার ফলে ক্রমবর্ধমানহারে নগরায়ণ সৃষ্টি হচ্ছে। বিভাগীয় শহরের আওতাধীন অনেক স্থানই আকর্ষণীয় ট্যুরিস্ট স্পট গড়ে তোলার অনুকূল অবস্থা বিদ্যমান। এ প্রেক্ষাপট ভবিষ্যৎ সম্ভাবনাকে সামনে রেখে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলার বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান সংরক্ষণ পরিকল্পিতভাবে উন্নয়নের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি বলে উল্লেখ করা হয় প্রস্তাবে। রংপুর জেলা শহর এবং সংলগ্ন এলাকায় ব্যাপক এবং অপরিকল্পিত উন্নয়ন নানাবিধ সমস্যা সৃষ্টি করছে। পরিবেশ-সংকটাপূর্ণ এলাকা আবাসিক ও বাণিজ্যিক প্রকল্পে বাস্তবায়ন, অপরিকল্পিতভাবে হোটেল, আবাসিক হোটেল, মোটেল, অ্যাপার্টমেন্ট নির্মাণ, বহুতল ভবন নির্মাণ ইত্যাদি এ সমস্যার মূল কারণ হিসেবে দেখা দিয়েছে বলে সে সময় প্রকল্পের সারসংক্ষেপে বলা হয়। সে সময় সার সংক্ষেপে আরো বলা হয় বেসরকারি পর্যায়ে নির্মিত ভবনের নকশা অনুমোদনসহ অন্যান্য ছাড়পত্র প্রদান করা হচ্ছে। অথচ বহুতল বিশিষ্ট ইমারাত বা নগরীর সৌন্দর্য রক্ষা করে বিকাশের কোনো ধারনা বা কারিগরি অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ জনবল নেই। তাই জাতীয় স্বার্থে রংপুর, সিলেট, বরিশাল এলাকার ভবিষ্যৎ উন্নয়নকে যুক্তিসংগতভাবে পরিচালনা করার প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে এ তিন বিভাগে উন্নয়ন নিয়ন্ত্রণ ও পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য উন্নয়ন প্রকল্প গঠন করা প্রয়োজন মনে করে মন্ত্রিপরিষদ অনুমোদন করেন। সারসংক্ষেপে আরো বলা হয়েছে, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও রাজশাহী মহানগরী মতো গঠিত উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অনুরুপভাবে আধুনিক ও পরিকল্পিত নগরী হিসেবে উন্নয়ন ও মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের স্বার্থে রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করা অপরিহার্য। মন্ত্রিপরিষদের অনুমোদনের ৪ বছর পেরিয়ে গেলেও রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প গঠনের বিষয়টি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। অথচ রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের পথ সহজেই প্রসারিত করা সম্ভব বলে মনে করছেন স্থানীয় সুধী মহল। সেই সঙ্গে আর্থ-সামাজিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন ঘটতো। এ অঞ্চলের মানুষের ভাগ্যবদলের জন্য একটি মাস্টার প্লান নিয়ে অগ্রসর হওয়া জরুরি বলে মনে করছেন তারা। রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ৪ বছর আগে মন্ত্রিপরিষদ অনুমোদন দিয়েছে। অথচ দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও এটি বাস্তবায়ন হয়নি। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। রংপুর উন্নয়ন প্রকল্প এবং নগরীকে ঘিরে কোনো মাস্টার প্লান না থাকায় অপরিকল্পিত নগরায়ণ বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি এ বিষয়ে সরকার প্রধান রংপুরের পুত্রবধূ শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মারা গেলেন মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোরসি

বালিশকাণ্ডে জড়িত প্রকৌশলী ছিলেন ছাত্রদল নেতা: প্রধানমন্ত্রী

একই দিনে সাকিবের মুকুটে দুই পালক

কাটারের কাটলো ৪৮ মাস

রামপালসহ বিতর্কিত সব প্রকল্প স্থগিত করার দাবি টিআইবির

আওয়ামী লীগ জিতলেও পরাজিত হয়েছে গণতন্ত্র:ফখরুল

‘মাশরাফিদের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে’

আইএসআইয়ের নতুন প্রধান জেনারেল ফয়েজ

দেশে ফিরতে রাজি হয়েছেন সাগরে আটকে পড়া ৬৪ বাংলাদেশি

যে মাইলফলক হাতছানি দিচ্ছে সাকিবকে

জামিন নাকচ, কারাগারে ওসি মোয়াজ্জেম

পাকুন্দিয়ায় চোরাই মোটরসাইকেলসহ একজন গ্রেপ্তার

ভূঞাপুরে পরিত্যক্ত ভবনে চলছে পাঠদান

দ্বিতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচিতে ছাত্রদল

বিএনপির আরও অনেক নেতাকর্মীকে মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করা হবে: রিজভী

৩০ বছরে বিশ্বে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাবে ২০০ কোটি