দুর্নীতির বিরুদ্ধে নতুন মন্ত্রীদের অঙ্গীকার

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১১ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
দায়িত্ব নেয়ার তৃতীয় দিনে নিজ দপ্তরের কর্মকর্তাদের সতর্ক করে নিজেদের অঙ্গীকারের কথা জানিয়েছেন মন্ত্রীরা। তারা বলেন, সরকারের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে আপনাদের সহযোগিতা সবার আগে দরকার। একই সঙ্গে কেউ যেন দুর্নীতিতে জড়িত না হন সে ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন। গতকাল নিজ নিজ দপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিচিতি পর্ব ও মতামত অনুষ্ঠানে যোগ গিয়ে তারা নিজেদের পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বরদাশত করা হবে না: এলজিআরডি মন্ত্রী

দুর্নীতিগ্রস্ত সরকারি কর্মকর্তাদের কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। গতকাল রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এলজিইডি ভবন পরিদর্শনের সময় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। দায়িত্ব গ্রহণের তৃতীয় দিন এলজিইডি ভবনে কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। এ সময় সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতির খোঁজখবর নেন তিনি।
পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের অবস্থান জিরো টলারেন্স। দুর্নীতির কারণে কোনো সরকারি প্রকল্প যেন বাধাগ্রস্ত না হয়, সেদিকে কঠোর নজরদারির তাগিদ দেন তাজুল ইসলাম। গ্রামে শহরের সুবিধা পৌঁছে দিতে উন্নত দেশের গ্রামীণ জীবন সম্বন্ধে তথ্য আহরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করাই প্রথম কাজ: নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী

নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করাই সরকারের প্রথম কাজ হবে বলে জানিয়েছে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন। এ সময়  সরকারের দেয়া বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা চান তিনি। দেশের উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক এ সম্পাদক। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে যে উচ্চতায় নিয়ে গেছেন, সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী যে বিশ্বাস রেখে এই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব আমাকে দিয়েছেন, আমি সেই বিশ্বাসের মর্যাদা দিতে চাই। নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাহাত্তর সালে সরকার গঠনের পর বঙ্গবন্ধু নৌ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নিজের কাছে রেখেছিলেন। এটি বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রণালয়। তার উত্তরসূরি হয়ে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে মানুষের সেবা নিশ্চিতে কাজ করে যাবো। আমার পূর্বসূরির গৃহীত প্রকল্পগুলো এগিয়ে নেয়া ও অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করতে অগ্রাধিকার দিবো। এছাড়া মন্ত্রিপরিষদের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নই হবে আমার মূল কাজ। দেশের প্রতি সবার দায়িত্ব রয়েছে। শুধু মন্ত্রীদেরই সব দায়িত্ব- এমনটা ভাবা ঠিক নয়। দেশ সবার, দায়িত্বও সবার।

প্রশ্নফাঁস রোধে কঠোর আইনি ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি শিক্ষামন্ত্রীর

শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সহযোগিতায় পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস রোধ সম্ভব বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। চাঁদপুরে গতকাল এক অনুষ্ঠানে তিনি শিক্ষায় আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সবার সহযোগিতা চান। চাঁদপুর মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের পরিচিতি অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, অতীতে প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। যাতে আগামীতে কেউ প্রশ্নফাঁসের মতো অপতৎপরতায় লিপ্ত হতে সাহস না পায়। এছাড়া প্রশ্নফাঁস রোধে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আরো সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। দীপু মনি আরো বলেন, গত ১০ বছরে শিক্ষা ক্ষেত্রে অনেক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। এখন নতুন চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় কাজ করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

উত্তরবঙ্গের ইজ্জত রাখবেন চাল ব্যবসায়ীদের খাদ্যমন্ত্রী
চালের দাম স্থিতিশীল রাখার আহ্বান জানিয়ে ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, চাল ব্যবসায়ীদের বেশিরভাগ উত্তরবঙ্গের। আমরা দুই মন্ত্রীও (বাণিজ্যমন্ত্রী ও খাদ্যমন্ত্রী) উত্তরবঙ্গের। তাই আপনাদের কাছে আমাদের দাবি, আপনারা আমাদের ইজ্জত রাখবেন। গতকাল খাদ্য ভবনে চালকল মালিক এবং চাল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিও উপস্থিত ছিলেন। সাধন মজুমদার বলেন, দেশে বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমানে ১৩ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিকটন খাদ্য মজুদ রয়েছে। কোনো খাদ্য ঘাটতি নেই। এরপরও কেন চালের দাম বাড়ছে আমরা তা জানি না। নর্থ বেঙ্গলের ব্যবসায়ীদের কাছে আমাদের দাবি আপনারা আমাদের ইজ্জত রাখবেন। খাদ্যমূল্য স্থিতিশীলতায় আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন। এ সময় বিভিন্ন জেলার চাল ব্যবসায়ীরা চালের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা মূল্য বৃদ্ধির নিউজ লেখার আগে আমাদের জানাবেন। আমরা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে নিয়ে তা নিয়ন্ত্রণ করবো। বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। পর্যাপ্ত মজুদও আছে। খাদ্যে কোনো সমস্যা নেই। যদি কোনো অসৎ উদ্দেশ্য না থাকে তাহলে চালের দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই। সভায় চালকল মালিকদের কেন্দ্রীয় সংগঠন বাংলাদেশ অটোমিলার অ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক লায়েক আলী খান, নওগাঁর চাল ব্যবসায়ী বেলাল হোসেন, ঢাকার বাবুবাজার-বাদামতলী আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজি নিজাম উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওয়াসায় অব্যবস্থাপনা আর নয়

ভেনিজুয়েলায় বিরোধী নেতা নিজেকে প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করলেন, স্বীকৃতি দিলেন ট্রাম্প

বিএনপিকে বিভক্ত করার চক্রান্ত হচ্ছে: ফখরুল

বিএসএমএমইউতে নার্স-কর্মচারীদের সংঘর্ষ

জেল থেকে মুক্তি পেলেন জাকার্তার সেই গভর্নর

‘দুটির বেশি সন্তান থাকলে ভোটাধিকার থাকা উচিত নয়’

মালয়েশিয়ায় নতুন রাজা নির্বাচন আজ

নিরাপত্তা পরিষদকে ভূমিকা রাখার আহ্বান মোমেনের

রাজশাহী সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

মন নাই কাজে, জাপানে হোটেলের চাকরি খোয়াল যন্ত্রমানবরা

কক্সবাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

‘আমি ৫ জনকে গুলি করে হত্যা করেছি’

কুয়েতে আটক ১৫৮ শ্রমিক মুক্ত

নিজের মেয়ে, স্ত্রীকে নিয়ে যাদের অন্ধকার জগত

ময়মনসিংহে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪

নেতাজিকে মনে রেখে কলকাতায় বিনা পয়সায় চপ খাওয়ানোর ট্রাডিশন