জাতিসংঘের বার্তা

নির্বাচনে বলপ্রয়োগ গ্রহণযোগ্য হবে না

প্রথম পাতা

কূটনৈতিক রিপোর্টার | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৩৪
৩০শে ডিসেম্বরের নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণায় কোনো রকম বলপ্রয়োগ বা জোর-জবরদস্তি গ্রহণযোগ্য নয় বলে মনে করে জাতিসংঘ। সংস্থাটির তরফে এমন বার্তাই স্পষ্ট করা হয়েছে বাংলাদেশ সরকার, নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট দল ও জোটের প্রতি। পর্যবেক্ষক না পাঠালেও পরিস্থিতি তারা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণে রেখেছে উল্লেখ করে দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, ভোটের মাঠে থাকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিও প্রায় অভিন্ন বার্তা দিয়েছে জাতিসংঘ।

গত সপ্তাহে মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেজের পক্ষ থেকে ঢাকায় এ বার্তা স্পষ্ট করা হয়েছে। নিউ ইয়র্কস্থ জাতিসংঘ সদর দপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়েও মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বাংলাদেশের অত্যাসন্ন নির্বাচন নিয়ে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে বিস্তারিত বলেছেন। মুখপাত্র বলেন, জাতিসংঘ বিশ্বাস করে নীতিগত কারণে বাংলাদেশে ইতিবাচক আবহে নির্বাচনটি হতে হবে। এটি অবশ্যই যেকোনো ধরনের বলপ্রয়োগ, জোরজবরদন্তি, বাধাবিঘ্ন তথা পুরোপুরিভাবে  হুমকি-ধমকি মুক্ত হতে হবে। আসন্ন নির্বাচনে জাতিসংঘের পর্যবেক্ষক না পাঠানোর বিষয়ে মুখপাত্র বলেন, আমাদের পর্যবেক্ষক নেই, আমরা কোনো পর্যবেক্ষক পাঠাচ্ছি না।
তবে যেটি বলতে পারি তা হলো- বাংলাদেশের নির্বাচনে জাতিসংঘের সহায়তা চেয়ে অনুরোধ করেছিল নির্বাচন কমিশন।

সেই অনুরোধের প্রেক্ষিতে জাতিসংঘ ‘বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ইলেকশন প্রজেক্ট’- এর আওতায় ইউএনডিপি ও ইউএন-উইমেনের মাধ্যমে কমিশনকে করিগরি নির্বাচনী সহায়তা দিচ্ছে। প্রকল্পটিতে যে বিষয়টি ফোকাস করা হয়েছে তা হলো- নির্বাচন কমিশনকে মানুষের কাছে পৌঁছাতে সাহায্য করা। দ্বিতীয়ত: পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ও নারীদের নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা, তৃতীয়ত: নির্বাচন কমিশনের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমকে শক্তিশালী করা এবং চূড়ান্ত পর্বে যেকোনো ধরনের সংঘাত নিরসন এবং নির্বাচনী সহিংসতা প্রতিরোধে কমিশনের পদক্ষেপ গ্রহণের সক্ষমতা বাড়ানো। মহাসচিবের মুখপাত্রের আনুষ্ঠানিক বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে ঢাকার দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা মানবজমিনকে বলেন, মুখপাত্র যা বলেন, এটিই জাতিসংঘের অবস্থান। বিভিন্ন মারফতে ঢাকায় সেই বার্তা পৌঁছানো হয়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Jafar Ahead

২০১৮-১২-১৬ ১১:৩৪:২৭

We Bangladeshi we are suffering from the government and the police forces. United Nation Please help us help the Bangladeshi people's. .

আপনার মতামত দিন

জামিনে মুক্তি পেয়েছেন মামুন হাসান

ইন্টারনেট প্যাকেজের মেয়াদ ৭ দিনের নিচে হবে না: বিটিআরসি

নির্বাচনের ফলকে কীভাবে দেখছেন ভারতীয় গবেষকরা?

কমলাপুর রেলস্টেশনে আগুন

মার্চে ডিএনসিসি ভোটের ইঙ্গিত দিলেন সিইসি

দ্বিতীয়বার ব্রেক্সিট গণভোট চান ৭১ লেবার এমপি

মুসলিম উম্মাহর একসঙ্গে থাকা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

সীতাকুন্ডে তেলের ডিপোতে আগুন

টিআইবির বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করলেন সিইসি

এমপিদের শপথের বৈধতা চ্যালেঞ্জের রিটের আদেশ কাল

জাতীয় পার্টি শক্ত বিরোধীদলের ভুমিকা রাখবে: রাঙ্গা

সব জায়গায় শুদ্ধি অভিযান হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কানাডায় পাল্টে যাওয়া জীবন সৌদি টিনেজার রাহাফের

রামগঞ্জে ৭দিন ধরে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্রী

ফখরুলের পদত্যাগ করা উচিত বলে মনে করেন কাদের

ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচন হতে আইনগত বাধা নেই