সারা দেশে ধরপাকড়

দুলু গ্রেপ্তার

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:১৫
একাদশ জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের আগের রাত থেকে মাত্র তিনদিনে সারা দেশে ২ হাজার ১৭১ বিরোধী নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বিএনপির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এ সময় সারা দেশে হামলা ও গ্রেপ্তারের চিত্র তুলে ধরেন তিনি। রিজভী জানান, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নাটোর-২ আসনের প্রার্থী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুকে গুলশানের বাসা থেকে ও স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর (উত্তর) শাখার সিনিয়র
যুগ্ম সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বিরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ওদিকে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা এলডিপির সহ-সভাপতি ফজলুল কাদের ও চট্টগ্রাম-৭ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী নূরুল আলমের ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলমকে হাতে অস্ত্র ধরিয়ে দিয়ে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রাজধানীতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদক ও নিউমার্কেট  থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারী, হাজারীবাগ থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ইয়াসিন আলী, শাহবাগ থানা যুবদল সিনিয়র সহ-সভাপতি এরশাদ ফরাজী, সূত্রাপুর থানা যুবদল সহ-সভাপতি মানিক দত্ত, কোতোয়ালি থানা যুবদল সহ-সভাপতি আবু তাহেরসহ ৬ জন, দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক অভি, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সাইফুলসহ ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রিজভী জানান, নোয়াখালীর সূবর্ণচর উপজেলা যুবদল সভাপতি ওমর ফারুক ও সাংগঠনিক সম্পাদক ইবরাহিম খলিলকে গণসংযোগ করার সময় বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কবিরহাট উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান জেলা বিএনপির সদস্য একরামুল হককে গতকাল ডিবি পুলিশ তুলে নেয়ার পর থেকে তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।
তিনি জানান, ময়মনসিংহের ইশ্বরগঞ্জ থেকে মনোনীত প্রার্থী ইমদাদুল হক মিলনসহ ৫ জন, মেহেরপুর পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুল বারী ফারুক, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মো. মুকুল, নেত্রকোনা-২ নির্বাচনী এলাকা কেন্দুুয়া উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও মাসকা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া স্বপনসহ ৪ জন, বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনির, রাজশাহীর চারঘাট বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুর রশীদ মহুরী ও সলুয়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ফখরুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক নুর আলমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রিজভী বলেন, ঢাকা-৯ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী আফরোজা আব্বাসের গণসংযোগকালে আকস্মিকভাবে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা আক্রমণ করে প্রার্থীর হাত থেকে ধানের শীষের লিফলেট কেড়ে নেয়। নেতাকর্মীদের বেধড়ক মারধর করে। এ সময় ধানের শীষের মহিলা কর্মী-সমর্থকদেরও মারধর এবং লাঞ্ছিত করে ক্ষমতাসীন দলের কর্মীরা। হামলায় বিএনপির সহ-স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন মহিলা নেতাকর্মী আহত হয়। এদিকে নরসিংদী-২ আসনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী ড. আবদুল মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা চালিয়েছে সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার বিকালে বেলাবোতে এই হামলা চালানো হয়। হামলায় পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন ভূঁইয়াসহ ১০ জন আহত হয়। নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় ধানের শীষের প্রার্থীর মিছিল বের হলে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের লোকজন মিছিলে হামলা করে।

এই হামলায় অনেকেই আহত হয়। মিছিল থেকে বিএনপি ও যুবদলের দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওদিকে গাজীপুরের শফিপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে ধানের শীষের প্রার্থী চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীর গাড়িবহরে ক্ষমতাসীন দলের লোকজন হামলা চালিয়ে ১০টি গাড়ি ভাঙচুর করে ও শতাধিক নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করেছে। ওদিকে নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মঞ্জুর বাড়িতে সন্ত্রাসীরা হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। হামলায় মঞ্জুর স্ত্রীসহ ৩-৪ জন আহত হয়। রিজভী বলেন, যশোরের মণিরামপুরে ধানের শীষের কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় নামতে দিচ্ছে না পুলিশ। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসভবনের সামনে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এ সময় নেতাকর্মীদের তার বাসায় ঢুকতে-বেরুতে বাধা দিচ্ছে।

ঝিনাইদহ-১ শৈলকুপা আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী আসাদুজ্জামানের গাড়িবহরে হামলা চালায় আওয়ামী লীগ লোকজন। এ সময় তার গাড়িসহ ৩টি মাইক্রোবাস, ২টি প্রাইভেটকার ও ২০-২৫টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে তারা। রংপুুরের পীরগঞ্জ থানার লালদিখী মাঠে বিএনপি নির্বাচনী কার্যালয়ে আওয়ামী সমর্থিত চেয়ারম্যান রবিউলের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ, যুবলীগের সশস্ত্র ক্যাডাররা হামলা চালায়। এতে নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির প্রধানের উপদেষ্টা মাহবুবুর রহমান মাহবুবসহ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়। রিজভী জানান, বাগেরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি এমএ সালামসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের সদর থানায় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের ইটনা থানায় ইউএনও মশিউর রহমানের নেতৃত্বে বিএনপির প্রার্থী ফজলুর রহমানের নির্বাচনী কার্যালয় সিলগালা করে দেয়া হয়েছে। রিজভী বলেন, নোয়াখালী সদর আসনে কয়েকদিন ধরে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর লোকজন তাণ্ডব চালাচ্ছে। চরভাটা ইউনিয়নের ভূঁইয়া হাটে বিএনপি’র নির্বাচনী ঘরোয়া সভায় আওয়ামী ক্যাডার’রা হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ি ভাঙচুর, নয়ান্নি ইউনিয়নে বিএনপি’র নির্বাচনী বৈঠকে যুবলীগ নেতা ও চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন সশস্ত্র লোকজন নিয়ে হামলা চালিয়ে বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ করে। এওজবালিয়া ইউনিয়নে বিএনপি নেতা আবদুর রহিম রিজভীর বাড়িতে ঘরোয়া মিটিংয়ের সময় এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ ও অগ্নিসংযোগ করে। এ সকল বিষয়ে রিটার্নিং অফিসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লিখিত অভিযোগ করলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। রিজভী বলেন, জয়পুরহাট জেলা যুবদল নেতা আবদুল হান্নান ও ক্ষেতলাল থানা বিএনপি নেতা হান্নানকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছে আওয়ামী লীগের লোকজন। পটুয়াখালীর রাঙাবালী উপজেলায় হামলা করে ধানের শীষের পথসভা পণ্ড করে দেয়া হয়। এতে ২০০-২৫০ জন নেতাকর্মীকে আহত হয়। বিএনপি সমর্থিতদের ৩৫-৪০টি দোকান লুটপাট ও ভাঙচুর করে।

রিজভী বলেন, বিএনপির নিজস্ব ওয়েবসাইট ‘bnpbangladesh.com’ ব্লক করা হয়েছে। ২০১৬ সালের ১লা সেপ্টেম্বর বিএনপির ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এই ওয়েবসাইটটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়েই বিএনপির নিজস্ব ওয়েবসাইটটি ব্লক করেছে সরকার। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করে সরকার এখন বিরোধী দলের প্রযুক্তি ব্যবহারের অধিকারকেও হরণ করছে। সরকারের আয়ত্তকরণের ধারায় প্রযুক্তিকেও নিজেদের আয়ত্তে রাখতে চাচ্ছে। আমি বিএনপির নিজস্ব ওয়েবসাইট বন্ধের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে অবিলম্বে ওয়েবসাইটটি খুলে দেয়ার জোর দাবি করছি।

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি জানান, সরাইলে ধানের শীষের মিছিল থেকে যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক-১ মো. নূর আলমকে (৩৭) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলা সদরের বালিকা বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়ক থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই সময়ে হাসপাতাল মোড় এলাকায় ‘লাঙ্গলের’ মাইকিং করাকালে বাধা দিয়েছেন জনৈক যুবক। পুলিশ ও স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার রাত ৭টার দিকে সরাইল বাজার থেকে শতাধিক লোকের অংশ গ্রহণে ধানের শীষের একটি মিছিল হাসপাতাল মোড়ের দিকে যাচ্ছিল। বিপরীত দিক থেকে এসে এসআই আবু বক্কর সিদ্দিকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ মিছিল থেকে যুবদল নেতা নূর আলমকে গ্রেপ্তার করেন। গতকাল সকালে তাকে পুলিশ এ্যাসল মামলায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি জানান, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারিসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ। জানা যায়, গতকাল দুপুর ২টায় কোম্পানীগঞ্জ বসুরহাট পৌরসভার কে.জি স্কুল এলাকা থেকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি ও ২০ দলীয় ঐক্যজোটের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব মাওলানা মোশারফ হোসেন (৪৫), নোয়াখালী জেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি ইয়াকুব হোসেন (২৮), কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি আবু তায়ের টিপু (২৫), ছাত্রশিবিরের নেতা ইয়াছিন রাসেদ (২৩) এবং চরপার্বতী ইউনিয়ন জামায়াতের আমির কাজী হানিফ আনছারী (৫০) কে চরপার্বতী থেকে গ্রেপ্তার করে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ। এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, তাদেরকে নাশকতা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সুপ্রভাত ও জাবালে নূর বন্ধের বিজ্ঞাপন

নিউজিল্যান্ডের একটি স্কুলে হিজাব নিষিদ্ধ নিয়ে বিতর্ক

মন্ত্রী পর্যায়ের ফোরাম এবং ‘দক্ষিণ-দক্ষিণ জ্ঞান ও উদ্ভাবনী কেন্দ্র’ প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব বাংলাদেশের

কুমিল্লায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১১ মামলার আসামি নিহত

সিরাজগঞ্জে কাভার্ডভ্যান চাপায় কলেজছাত্র নিহত

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত ব্যক্তি নিহত

দক্ষিণ কোরিয়ার হোটেলে গোপন ক্যামেরা

সব ধরনের সামরিক কায়দার অস্ত্র নিষিদ্ধ করবে নিউজিল্যান্ড, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা

‘এখন আমি নেগেটিভ চরিত্র বেশ উপভোগ করি’

৩ বাংলাদেশির লাশ আসতে সময় লাগবে

অ্যাকশন দেখতে চান শিক্ষার্থীরা

যশোরে পিকআপের চাপায় স্কুলছাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন

ইউরোপজুড়ে আন্দোলনে স্কুল শিক্ষার্থীরা

আরেক তরুণীকেও ধাক্কা দেয় সেই বাস

মেইল-ফেসবুক আইডি হ্যাকের ভয়ঙ্কর চক্র

ছাত্রদলের কেন এই পরিণতি?