মাশরাফির ‘২০০’ উইন্ডিজ ১৯৫

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার
দেশের মাটিতে মাশরাফি বিন মুর্তজার শেষ সিরিজ! ক্রিকেট ছেড়েই প্রবেশ করবেন রাজনীতিতে। যদিও টাইগার অধিনায়ক বলেছেন হয়তো!  তারপরও ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে বিষণ্নতা। বিদায়ের সুর! সেই সঙ্গে গতকাল নড়াইল এক্সপ্রেস ওয়ানডে ক্রিকেটে নয়া ল্যান্ডমার্কও স্পর্শ করেছেন। সব মিলিয়ে এই সিরিজটি যেন মাশরাফিময়। সবার চোখ-মন ছিল যেন তাকে ঘিরেই। এমন ম্যাচে টাইগার অধিনায়ক যেন নিজেকে উজাড় করে দিলেন। তার ২০০তম ম্যাচে বল হাতে ঝরালেন আগুন। তাতেই পুড়ে ক্যারিবীয়রা থেমে গেল ১৯৫ রানে।
যদিও শেষ পর্যন্ত এক উইকেট অক্ষত রাখতে পেরেছিল সফরকারীরা। বল হাতে দলকে প্রথম উইকেট অবশ্য উপহার দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। এরপর বল হাতে নিয়ে মাশরাফি দেখালেন কীভাবে প্রতিপক্ষকে জেনে-বুঝে কৌশলে বেঁধে ফেলা যায় পেস বোলিংয়ে। ১৯ রান করা ব্রাভোকে ফিরিয়ে শুরু করেন মাশরাফি। এরপর আরো দু’টি উইকেট তুলে নেন তিনি। ১০ ওভার বল করে খরচ করেন মাত্র ৩০ রান। অধিনায়ককে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন তরুণ মোস্তাফিজুর রহমান আরো ৩ উইকেট নিয়ে। মিরাজ, সাকিবরা একটি করে উইকেট নিলেও ৩০ এর বেশি রান না দিয়ে দেখান মিতব্যয়ী বোলিং। আরেক পেসার রুবেল হোসেন তাদের সমান উইকেট নিলেও খরচ করেন ৬১ রান। অন্যদিকে ফিল্ডিংয়ে ছিল আশা-হতাশা। একদিকে তামিম, মিরাজরা দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়েছেন। অন্যদিকে বেশ কয়েকটি ক্যাচ হাতছাড়া করে ক্যারিবীয়দের রানের অংকও বাড়িয়েছেন আরিফুল হক, মুশফিকুর রহীম ও রুবেল।

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডের আগে টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট পড়েছিল মধুর সমস্যাতে।  তামিম দলে ফেরায় ফর্মে থাকা বাকি তিন ওপেনার ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার ও লিটন কুমার দাসের মধ্যে কে তামিমের সঙ্গী হবেন তা নিয়ে ছিল নানা জল্পনা-কল্পনা। শেষ পর্যন্ত কাউকেই হতাশ করেনি দল। চার ওপেনারকে রেখেই ভিন্ন ধরনের একাদশ নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ টসে জেতায় আগে ব্যাট করার সুযোগ দেয়নি টাইগারদের। কিন্তু ক্যারিবীয় অধিনায়কের সিদ্ধান্ত ভুল প্রমাণ করতে দেরি করেনি তারই ব্যাটসম্যানরা। ব্যাট হাতে শুরুটা ছিল একেবারেই কচ্ছপ গতির। বিশেষ করে বাংলাদেশের স্পিন আক্রমণে বেশ সতর্কই ছিল তারা। তৃতীয়বারের মতো কোনো ওয়ানডে ম্যাচে দুই  স্পিন দিয়ে শুরু করার সুফল তুলে নেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি। সাকিব ও মিরাজের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের বিপক্ষে হাত খোলার সুযোগ পাচ্ছিলনা দুই ক্যারিবীয় ওপেনার কাইরন পাওয়েল ও শেই হোপ। তবে ধীরে ধীরে গড়ে ওঠা ২৯ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন সাকিব। এরই মধ্যে দুইবছরের বেশি সময় পর ওয়ানডে খেলতে নামা ড্যারেন ব্রাভো জীবন পান ব্যক্তিগত ১৩ ও ১৮ রানে। তবে ক্যাচ ছাড়ার সেই আক্ষেপ পুষিয়ে দেন তামিম। অধিনায়কের বলে বাজ পাখির মতো উড়ে দুর্দান্ত এক ক্যাচে তাকে ১৯ রানে থামান আড়াই মাস পরে দলে ফেরা তামিম ইকবাল। এরপর স্বচ্ছন্দে খেলতে থাকা শেই হোপকেও বেশিদূর যেতে দেননি মাশরাফি। ৭৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ক্যারিবীয়দের বিপদটা শুধু বেড়েছেই।

টেস্ট দলের বিপদে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন ক্যারিবীয় তরুণ শিমরন হেটমায়ার। কিন্তু অনুর্ধ্ব-১৯ থেকে মেহেদী হাসান মিরাজের বন্ধু হয়ে ওঠা এই ব্যাটসম্যান হয়তো তাকে শত্রুই ঘোষণা করবেন। দুই টেস্টেই তিনি ছিলেন মিরাজের শিকার। ওয়ানডেতেও তার ব্যতিক্রম হলো না। এক সিরিজে টানা পাঁচবার আউট হলেন টাইগারদের অফস্পিনারের বলে। বিপজ্জনক হয়ে ওঠার আগে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করে দ্রুত ফেরান মিরাজ। এই আঘাত না থামতেই দ্বিতীয় স্পেলে নিজের তৃতীয় উইকেট পান মাশরাফিও। দলীয় ৯৬ রানে সাকিবের ডেলেভারিতে উইন্ডিজ অধিনায়ক রডম্যান পাওয়েলের সহজ ক্যাচ ফেলে দেন রুবেল হোসেন। তবে রডম্যানকে বেশি বাড়তে দেননি বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি। ব্যক্তিগত ১৪ রানে মাশরাফির ডেলেভারিতে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দেন উইন্ডিজ অধিনায়ক।

অবশ্য ১২৭ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে খেই হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজের ত্রাতা হয়ে লড়াই শুরু করেন রোস্টন চেজ ও কিমো পল। সপ্তম উইকেটে এই দুইজনের ব্যাট থেকে আসে পঞ্চাশ রানের জুটি। কিন্তু সেখান থেকে ফের দুর্দান্ত মোস্তাফিজ। ৩৮ বলে ৩২ রান করা চেজকে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন  মোস্তাফিজ। এরপর ২৮ বলে ৩৬ রান করা পলকেও বিদায় করেন বাঁহাতি এই পেসার। সেই সঙ্গে তুলে নেন বিশুর উইকেটও। প্রস্তুতি ম্যাচে ২৩৮ রানে ৬ উইকেট হারালেও ক্যারিবীয়রা ৩৩২ রান করেছিল লেজের জোরে। কিন্তু গতকাল  শেষ ১০ ওভারে ৬৬ রান নিলেও ২০০ স্পর্শ করতে পারেনি দলীয় স্কোর।

গত জিম্বাবুয়ে সিরিজ ভালো যায়নি। ৩ ম্যাচে পেয়েছিলেন মাত্র ১ উইকেট, ইকোনমি ৬ ছুঁই ছুঁই। পুরোপুরি ফিট ছিলেন না, হয়তো সেটির প্রভাব পড়েছে পারফরম্যান্সেও। মাশরাফির ভালো যায়নি সবশেষ এশিয়া কাপও। কদিন আগে নাম লিখিয়েছেন রাজনীতিতে। সেটি নিয়েও হচ্ছে ইতিবাচক-নেতিবাচক আলোচনা। কাল মাশরাফি খারাপ করলে সমালোচনার মুখে পড়তেন হয়তো। তবে নিজের ল্যান্ডমার্ক ম্যাচে চাপের মুখে দাপুটে নৈপুণ্য দেখালেন মাশরাফি। ৬০ বলের স্পেলে তিন উইকেট শিকারের সঙ্গে মাশরাফি দিলেন ৪১টি ডট।  



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

পদ হারালেন জিএম কাদের

গণপরিবহনে বিশৃঙ্খলার নেপথ্যে

অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন মেনন, লাইসেন্স ছিল না চালকের

পতাকা উত্তোলন দিবস আজ

ওয়াশিংটনে মোমেন-পম্পেও বৈঠক ১০ই এপ্রিল

ইন্টারনেটে ব্ল্যাকমেইল

বরিশালে দুর্ঘটনায় মা-ছেলেসহ নিহত ৭

ডাকসুর নেতৃত্ব দেবেন নুর, থাকবেন আন্দোলনেও

ঐক্যফ্রন্টের কর্মী সমাবেশ এপ্রিলে

দুই মিনিট স্তব্ধ নিউজিল্যান্ড, সংহতি অস্ট্রেলিয়ারও

বিমানবন্দরে অস্ত্রসহ আওয়ামী লীগ নেতা আটক

বিয়ের পিঁড়িতে ‘কাটার মাস্টার’ মোস্তাফিজ

যক্ষ্মা: ২৬ শতাংশ রোগী শনাক্তের বাইরে

ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত

কক্সবাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ীসহ নিহত ৩

দর্শকশূন্যতার বড় কারণ হলের বাজে পরিবেশ