ঢাবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে নীল দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা

দেশ বিদেশ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | ৫ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির কার্যকর পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ এ এবারো ভরাডুবি হয়েছে বিএনপি-জামায়াতপন্থি শিক্ষকদের সাদা দলের। গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারো সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে আওয়ামী লীগপন্থি শিক্ষকদের নীল দল। সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ ১৫টি কার্যকর পরিষদ সদস্য পদের ১৪টিতেই জয় পায় ক্ষমতাসীনরা। অন্যদিকে গতবারের মতো এবারো মাত্র একটি সদস্য পদে জয় পায় সাদা দল। এ পদে জয়ী হয়েছেন ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হাসানুজ্জামান। গতকাল সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণ। এরপর ভোট গণনা শেষে বিকাল সোয়া ৪টায় ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশনার ও রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. তোফায়েল আহমদ চৌধুরী। ফলাফলে দেখা যায়, নীল দল থেকে টানা তৃতীয় বারের মতো সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। তিনি এর আগে দুইবার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেছিলেন। অন্যদিকে দ্বিতীয় বারের মতো সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম। এ দু’জন ভোট পেয়েছেন যথাক্রমে ১ হাজার ৩৬টি ও ৮০৫টি। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা দল থেকে সভাপতি পদে প্রার্থী অধ্যাপক ড. আখতার হোসেন খান পেয়েছেন ৪৫৩টি। আর সাধারণ সম্পাদক পদে সাদা দলের অধ্যাপক লুৎফর রহমান পেয়েছেন ৬৭৯ ভোট। এছাড়া নীল দল থেকে নির্বাচিত অন্যরা হলেন- সহসভাপতি পদে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. ইমদাদুল হক (৮৬০), যুগ্ম সম্পাদক পদে ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক তাজিন আজিজ চৌধুরী (৭৭৭), কোষাধ্যক্ষ পদে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ (৮৯৮)। এ ছাড়া বাকি সদস্য পদে নির্বাচিতরা হলেন- গণিত বিভাগের অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার (৮৬৫), সমাজবিজ্ঞান বিভাগের জিনাত হুদা (৮২৫), চারুকলা অনুষদের ডিন নিসার হোসন (৭৬৯), রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক মো. আফতাব আলী শেখ (৯৪২), ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মো. জিয়াউর রহমান (৯০৩), খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক নিজামুল হক ভূঁইয়া (৯০১), সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম (৭৮৩), অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাবিতা রিজওয়ানা রহমান (৮৫৬) ও বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর দে (৮০৪) বিজয়ী হন। ফলাফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশনার অধ্যাপক তোফায়েল আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘আনন্দঘন পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত শিক্ষকগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। মোট ভোটারের সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৯৮৮ জন। তার মধ্যে ১ হাজার ৫৫১ শিক্ষক নিজেদের ভোট প্রদান করেছেন। সকল প্রার্থী ভোট গ্রহণকালে নির্বাচন পরিষদকে সহযোগিতা করেছেন। কোনো প্রার্থী কোনো ব্যাপারে অভিযোগ করেননি।’ সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়ে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উচ্চশিক্ষা জীবন যাত্রার মান গবেষণা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের এই জয়ের মাধ্যমে চলতি কাজ সমাপ্ত করতে পারব।’ অন্যদিকে সাদা দল থেকে সভাপতি প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন খান বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। আমাদের কোনো অভিযোগ নেই। নির্বাচনের পরে সবাই মিলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কাজ করি। অতীতের মতো নির্বাচিতদের যেকোনো কাজে আমরা সহযোগিতা করবো।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

প্রিয়তি ধর্ষণ চেষ্টা, তদন্তে ইন্টারপোল!

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে জাতীয় সংসদের বিশেষ আয়োজন

প্রার্থী হচ্ছেন না খালেদা জিয়া

সাকিব আবার শীর্ষে

দোষী ৬৭ জন ১৮ থেকে ২৩ তলা অবৈধ

নারী হতে বাংলাদেশির অস্ত্রোপচার গুজরাটে

সিমলায় আটকে আছে তদন্ত!

অনির্বাচিত সরকারকে গ্রহণ করার মূল্য দিচ্ছে জনগণ

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু অনলাইনে চরম ভোগান্তি

চাল আমদানিতে শুল্ক কর বাড়িয়ে দ্বিগুণ

বান্ধবীর বাসায় আশিকের মৃত্যু নানা রহস্য

সিলেটের ৫ গুণীজনকে রত্ন ফাউন্ডেশনের সংবর্ধনা

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে বিশ্বাঙ্গনে একত্রে লড়বে দুই দেশ

অধ্যক্ষ ফের দুই দিনের রিমান্ডে

ঢাকার ৮৪ ভাগ বহুতল ভবনই ত্রুটিপূর্র্ণ

পা হারানো রাসেলকে বাকি টাকা দেয়নি গ্রীনলাইন তীব্র ক্ষোভ হাইকোর্টের