সাংবাদিক শফিক রেহমানের মুক্তির দাবিতে লন্ডন ও ফ্রান্সে বিক্ষোভ

প্রবাসীদের কথা

লন্ডন প্রতিনিধি | ১৯ মে ২০১৬, বৃহস্পতিবার
সাংবাদিক শফিক রেহমান প্রতিষ্ঠিত সংগঠন সাপোর্ট লাইফ ইউকে’র উদ্যোগে লন্ডন ও ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে অবিলম্বে শফিক রেহমানের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। লন্ডনের কূটনৈতিক পাড়া কুইন্স গেট বাংলাদেশ হাই কমিশনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা মার্কিন আদালতের রায়ের উদ্বৃতি দিয়ে বলেন, সেখানে প্রধানমন্ত্রী পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে  অপহরণ কিংবা হত্যা প্রচেষ্টার অভিযোগ নাকচ হয়ে গেলেও এই সংক্রান্ত ভিত্তিহীন অভিযোগে মামলা দায়ের ও শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার করে সরকার আইনের শাসনের প্রতি আস্থাহীনতার প্রকাশ ঘটিয়েছে। শফিক রেহমানকে বারবার রিমান্ডে নিয়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বক্তারা বলেন, জীবন্ত কিংবদন্তি সাংবাদিক ও জাতির বিবেকের উপর এই নির্যাতনের পরিণাম কখনো শুভ হতে পারে না। সমাবেশের পর একটি প্রতিনিধি দল অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিয়ে আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে হাই কমিশনের মাধ্যমে একটি স্বারকলিপি প্রদান করেন। বাংলাদেশ হাই কমিশনের কনসুলার এটাশে মো. মুমিনুল হক হাই কমিশনারের পক্ষে স্বারকলিপি গ্রহণ করেন। সাপোর্ট লাইফ ইউকে’র কো চেয়ার শামসুল আলম লিটনের সভাপতিত্বে ও সলিসিটর বিপ্লব পোদ্দারের পরিচালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শফিক রেহমান পুত্র সুমিত রেহমান, কার্ডিফ ইউনিভার্সিটি'র সাবেক অধ্যাপক ও সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ ইউকে’র চেয়ার ড. কে এম এ মালিক, প্রিন্সিপাল সায়েদ  মামনুন মুর্শেদ, বাংলাদেশ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন ইউ কে’র প্রেসিডেন্ট আবু তাহের চৌধুরী, ব্যারিস্টার আলিমুল হক লিটন, ব্যারিস্টার হাসনাত, ব্যারিস্টার মাহাদী হাসান, কমুনিটি ব্যাক্তিত্ব নাসিম চৌধুরী, সাবেক ছাত্রনেতা গরিব হোসেন, বাংলাদেশ ওয়াচ’ এর প্রধান ব্যারিস্টার তমিজ উদ্দিন, সাংবাদিক খান সুর প্রমুখ। সুমিত রেহমান তার মা তালেয়া রেহমানের উদ্বৃতি দিয়ে বলেন, রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার অজুহাতে শফিক রেহমানকে কারাগারে ডিভিশন দেয়া হয়নি। তিনি খুবই দুর্বল বোধ করছেন। তার শারীরিক অবস্থার ক্রমাবনতি এবং তার জীবন রক্ষায়  সংশয় প্রকাশ করে অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি জানান। এদিকে ফ্রান্সের রাজধানী প্যরিসে সাপোর্ট লাইফ ফ্রান্সের উদ্যোগে জাতীয়তাবাদী নাগরিক মুক্তি পরিষদ নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশ দূতাবাসে একই দাবিতে স্বারকলিপি পেশ করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তি পরিষদ আহবায়ক শামিমা আক্তার রুবী, ফ্রান্স বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এম এ  তাহের, পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. কামরুল হাসান,নাগরিক পরিষদ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল রুবেল, রফিক মাস্টার,  প্রফেসর তাসলিমা আক্তার,  রাশেদুল ইসলাম, ডালিম সরকার, ফরিদা আক্তার, মাহমুদুর রহমান, নজরুল ইসলাম প্রমুখ। পরে দূতাবাসের হেড অব চেন্সারী খান হজরত আলী রাষ্ট্রদূতের পক্ষ থেকে স্বারকলিপি গ্রহণ করেন।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন