টাঙ্গাইল-১ আসনে মনোনয়ন দৌড়ে ১৪ জন

বাংলারজমিন

মো. নজরুল ইসলাম, মধুপুর (টাঙ্গাইল) থেকে | ১৮ নভেম্বর ২০১৮, রোববার
 আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-১ (মধুপুর-ধনবাড়ী) আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামী আন্দোলন এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন ১৪ জন। তবে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিতে।
আওয়ামী লীগ: এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৪ জন। এরা হলেন, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক খাদ্যমন্ত্রী ও বর্তমান এম.পি ড.আ.রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামছুন্নাহার চাপা, ধনবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং ধোপাখালী ইউ.পির সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াদুদ তালুকদার (সবুজ), নাট্যাভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান এবং আওয়ামী লীগে নেতা মাসুদ রানা। এ আসনে ড. আ. রাজ্জাকই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার বেশি সম্ভাবনা রয়েছেন।
বিএনপি: এ আসনে বিএনপির ৮ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমাও দিয়েছেন। বিএনপির মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফকির মাহবুব আনাম স্বপন, মধুপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. জাকির হোসেন সরকার, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ আলী, মধুপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও তিনবারের সাবেক পৌর মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম সরকার (শহিদ), সাবেক এম.পি ও মধুপুর উপজেলা বিএনপির উপদেষ্টা খন্দকার আনোয়ারুল হক, ধনবাড়ী পৌর বিএনপির আহ্বায়ক মো. আ. সোবহান এবং মধুপুর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি খুররম খান ইউসুফজাই। ৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিলেও ভরসা কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফকির মাহবুব আনাম স্বপন এবং মধুপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও তিনবারের সাবেক পৌর মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম সরকারের (শহিদ) ওপর।
জেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফকির মাহবুব আনাম স্বপন টাঙ্গাইল-১ (মধুপুর-ধনবাড়ী) আসনের পাশাপাশি তার নিজ এলাকা টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসন থেকেও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। ফকির মাহবুব আনাম স্বপন ২০০১ এর নির্বাচন থেকে শুরু করে নবম সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত পরাজিত হওয়ার দলের মধ্যে বিভাজন দেখা দিয়েছে। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলা বিএনপি দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছে। তারা দুই দলে বিভক্ত হয়ে দুটি অফিস করে কার্যক্রম চালাচ্ছেন। এক গ্রুপ  ফকির মাহবুব আনাম স্বপনের পক্ষে অপর গ্রুপ মো. শহিদুল ইসলাম সরকারের (শহিদ) পক্ষে কাজ করছেন। উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. জাকির হোসেন সরকার হোটেল আদিত্যের বিএনপির মূল অফিস ছেড়ে চাড়ালজানিতে আলাদা অফিস খুলেছেন। মধুপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম সরকার (শহিদ) ইতিমধ্যে যুবদল এবং ছাত্রদলের কমিটি গঠন করে তৃণমূলে দল সুসংগঠিত করে আলোচনায় এসেছেন। বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীসহ খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সাজার প্রতিবাদে কর্মসূচি পালন করায় বেশ কয়েকটি মামলায় পড়লেন সরকার শহিদ গ্রুপ। মামলায় তার গ্রুপের যুবদলের দুইজন সিনিয়র নেতা আটক হয়েছেন। উভয় গ্রুপের নেতারা ঢাকায় অবস্থান করে বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডের সিনিয়র নেতাদের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। উভয় গ্রুপের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, দল যাকেই মনোনয়ন দিবেন তার পক্ষেই কাজ করে হারানো আসন ফিরিয়ে আনতে আশাবাদী তারা। এ ছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন মধুপুর উপজেলার সভাপতি মাওলানা মো. আশরাফুল ইসলাম এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাংলাদেশে বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিতে মার্কিন কংগ্রেসে রেজ্যুলেশন পাস

‘সরকার আর ১৫ দিন ক্ষমতায়, বেআইনি আদেশ মানবেন না’

ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলা

খামোশ বললেই জনগণ খামোশ হবে না

সিইসির নির্দেশিত তদন্ত ফল প্রকাশ পাবে কি?

চলে গেলেন আমজাদ হোসেন

সিলেটে রচিত হলো ইতিহাস

কুমিল্লা কারাগারে অনশনে মনিরুল হক চৌধুরী

সারা দেশে ধরপাকড় অব্যাহত

রাখাইনে সেনা অভিযানকে গণহত্যা আখ্যা দিলো মার্কিন কংগ্রেস

নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় বেড়েছে দমনপীড়ন

পাবনায় চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে নিহত ৩

শ্রদ্ধা ভালোবাসায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ

নিরাপত্তা চেয়ে বিএনপির প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপনের জিডি

শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত যুদ্ধ করে যাবো

এহিয়াকে চ্যালেঞ্জ মুহিব ও এনামের