‘ভোট লুট হোক, চায় না ভারত’

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৭ নভেম্বর ২০১৮, শনিবার, ১:৩৬
ভারত চায় বাংলাদেশের আসন্ন সংসদ নির্বাচনে ভোট লুট হবে না। ভোট হবে সুষ্ঠু ও অবাধ। প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনও চায় না। ঢাকার দৈনিক প্রথম আলো দিল্লির নীতি-নির্ধারকদের উদ্ধৃতি দিয়ে এ খবর দিয়েছে।
রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের মানুষের কাছে ভোট একটি উৎসবের মতো। সামরিক শাসনের সময়ও সেই উৎসব দেখা গেছে। গণতান্ত্রিক শাসনের সময়ও একই অবস্থা দেখা গেছে।
ভারতের নীতি-নির্ধারকরা মনে করেন, ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশের গণতন্ত্র মজবুত হচ্ছে এবং সেটাই সবচেয়ে ইতিবাচক দিক।
তারা মনে করেন, বাংলাদেশের সংসদীয় নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হোক। গণতান্ত্রিক সবদল তাতে অংশ নিক। ভারত চায় না, আগের মতো কোন প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন হোক।  



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

গাজী মুহাম্মদ শওকত আ

২০১৮-১১-১৭ ০৬:৪৮:২৮

গণতান্ত্রিক ও প্রতিবেশী ভারতের কাছে এমনটাই প্রত্যাশা বাংলাদেশের জনগণের। এদেশের জনগণ ভারত বিরোধী নয় তবে অধিকাংশ জনগণ ভারত নির্ভর বা ভারত বান্ধব আ'লীগ বিরোধী। এজন্য ভারতের উচিৎ বাংলাদেশে নিরপেক্ষ একটা নির্বাচনে সহযোগীতা করা।

Ruhul Islam

২০১৮-১১-১৭ ০৪:৪২:১৯

ভারত চায় না, আগের মতো কোন প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন হোক! আসলেও কি তাই ? আমাদের ভিবষ্যত ত তারাই নির্ধারন করে!!!! স্বাধীনতা !!!!!!!

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

২০১৮-১১-১৭ ০১:১১:৩৬

আশা করি ভারত তাদের এই অবস্থান ধরে রাখবে।

আপনার মতামত দিন

পাকিস্তানকে ভেঙে ৩ টুকরো করার পরামর্শ রামদেবের, বেলুচিস্তানের বিদ্রোহীদের অস্ত্র দেয়ার আহ্বান

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২২ উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত

মুখোমুখি মোদি-ইমরান

যে কারণে পাকিস্তান থেকে সরাসরি ভারত গেলেন না সালমান

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর কমিটি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়

‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস’ বাজার থেকে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের

তুরাগতীরে ফরিয়াদ

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি শুক্রবার

৭ বিলিয়ন ডলার ঋণের অধীনে ‘কানেকটিভিটি’

নতুন বাজারে বাড়ছে পোশাক রপ্তানি

সরগরম ক্যাম্পাস প্রথম দিন মনোনয়নপত্র নেননি আলোচিত কেউ

করবিনের সাদামাটা জীবন

নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হলে গণতন্ত্রও প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যায়

মাদক রুট, তদন্তে ঢাকায় আসছেন শ্রীলঙ্কান গোয়েন্দারা

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর তৎপরতা নেই

আমরা প্রেসের ফ্রিডমকে ইউকে’র পর্যায়ে নিতে চাই