সৈয়দ আশরাফ প্রার্থী হচ্ছেন

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১১ নভেম্বর ২০১৮, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩৯
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ তথা মহাজোটের মনোনয়ন নিয়ে কাড়াকাড়ি চলছে। মনোনয়ন প্রশ্নে দল বা জোটের আনুষ্ঠানিক আলোচনা এখনো হয়নি। ১৪ দলসহ মহাজোটের সঙ্গে কথাবার্তার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন মনোনয়ন বোর্ডই মনোনয়ন চূড়ান্ত করবে। তবে আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী একাধিক সূত্র বলছে, সভানেত্রী, সাধারণ সম্পাদক, উপদেষ্টা পরিষদের কয়েকজন এবং প্রেসিডিয়ামের বেশির ভাগ সদস্যের মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়ে আছে।

বিভিন্নভাবে দলের হাইকমান্ডের তরফে তাদের সেই বার্তা বা সবুজ সংকেত দেয়া হয়েছে। দলীয় ও জোটগত আলোচনার পর সেটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হবে মাত্র। ওই তালিকায় থাকা একজন হলেন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। স্বাধীন বাংলাদেশের অস্থায়ী প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজরুল ইসলাম তনয় সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বর্তমানে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী।
দলের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি বর্তমানে অসুস্থ অবস্থায় (ছুটি নিয়ে) বিদেশে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পরিবার সূত্রে তার স্বাস্থ্যগত অবস্থা নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন খবর বেরিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে কিশোরগঞ্জ থেকে টানা চার বার সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী সৈয়দ আশরাফ কী নির্বাচন করতে পারবেন? তার স্বাস্থ্য কি কুলাবে রাজনীতির মাঠে থাকতে? গত ৪ঠা নভেম্বর কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জেলহত্যা দিবসের আলোচনায় সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম দাবি করেছেন- ‘সৈয়দ আশরাফ গুরুতর অসুস্থ। তিনি ফুসফুসের ক্যানসারে ভুগছেন।

পরিবারের সদস্যসহ কাউকে চিনতে পারছেন না, এমনকি নিজের মেয়েকেও না। এমন পরিস্থিতিতে তার রাজনীতিতে ফিরে আসার সম্ভাবনা খুবই কম।’ অবশ্য সৈয়দ সাফায়েতের ওই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে আশরাফের আরেক সহোদর ড. সৈয়দ শরীফুল ইসলাম এবং চাচাতো ভাই অ্যাডভোকেট সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু। তাদের মতে, যতটা বলা হচ্ছে আশরাফের অবস্থা ততটা সংকটাপন্ন না। তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার মতো অবস্থায় রয়েছেন বলেও পাল্টা দাবি তাদের। কেন্দ্র ও স্থানীয় সূত্রে গতকালই খবর বেরিয়েছে- সৈয়দ আশরাফের কিশোরগঞ্জ-১ (কিশোরগঞ্জ সদর-হোসেনপুর) আসনে তার নিজের এবং ছোট ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলামের পক্ষে দলের মনোনয়ন ফরম কেনা হয়েছে।

ওই আসনে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদের মেজো ছেলে রাসেল আহমেদ তুহিনও মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। এ অবস্থায় আওয়ামী লীগের একাধিক দায়িত্বশীল নেতা গতকাল মানবজমিনকে বলেছেন- ‘দলের প্রতি আনুগত্য এবং ত্যাগের স্বীকৃতি হিসাবে সৈয়দ আশরাফকেই কিশোরগঞ্জ-১ আসনে মহাজোটের প্রার্থী করছেন শেখ হাসিনা।’ এমনও বলা হয়েছে, স্বাস্থ্যগত অবস্থা যাই হোক সৈয়দ আশরাফের শ্বাস যতক্ষণ আছে ততক্ষণ তিনিই প্রার্থী। হাইকমান্ডের বার্তা এতটাই শক্ত যে সেখানে দল বা জোটের কারও ভিন্ন কোনো চিন্তার কোনো অবকাশ নেই।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

সামছুল বারী

২০১৮-১১-১০ ১৪:৫০:২১

হৃদয়ের সকল শ্রদ্ধা - এই রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত কে -

আপনার মতামত দিন

সারা দেশে ধরপাকড় গ্রেপ্তার ২৫০

খোকন গুলিবিদ্ধ, আব্বাস-সুব্রতের ওপর হামলা, কর্নেল অলির ছেলের আঙুল কর্তন

অর্থনীতিতে বড় অর্জন রাষ্ট্র মেরামতের তাগিদ

সংকটময় মুহূর্তে বাংলাদেশ

জনগণ ঘুরে দাঁড়ালে পালানোর পথ পাবেন না: আ স ম রব

৩০-৩১ ডিসেম্বরের এয়ারলাইন্সের টিকিটের চাহিদা তুঙ্গে

পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে গ্রেপ্তার করতে পারবে সেনাবাহিনী

নৌকার জোয়ার দেখে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বেসামাল হয়ে পড়েছেন

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীদেরকে দুই দিনের আল্টিমেটাম

‘নৌকা’-‘সিংহ’ এক ভাই

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি গঠন

সিলেটে ভোটের মাঠে উন্নয়ন নিয়ে ‘বিতর্ক’

রাজাপাকসের পদত্যাগ

এবার প্রজার ছেলে রাজা হবে

বাবা জীবিত থাকলে আওয়ামী লীগ করতেন না : রেজা কিবরিয়া

চট্টগ্রামে গণসংযোগে চাঙ্গা বিএনপি নেতাকর্মীরা