কমছে সবজির দাম বাড়ছে রসুনের

দেশ বিদেশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ১০ নভেম্বর ২০১৮, শনিবার
রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে শীতের সবজিতে ভরপুর। সরবরাহ বাড়ায় কমেছে সব ধরনের সবজির দাম। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে আগের সপ্তাহে সবজির দাম ছিল বেশ চড়া। এখন বেশির ভাগ সবজির দাম অর্ধেকে নেমে এসছে। বেশির ভাগ সবজিই পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে। তবে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রসুনের দাম বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে আমদানি করা রসুনের দাম কেজিতে বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ।
ব্যবসায়ীরা জানান, নতুন আলু ও টমেটো, বেগুনসহ কয়েকটি পণ্যের দাম কিছুটা বাড়তি হলেও অন্যান্য সবজি পাওয়া যাচ্ছে ৩০-৪০ টাকার মধ্যে।
নতুন আলুর কেজি ১২০ টাকা।  

এদিকে বাজারে এখন নানা প্রজাতির মাছও আসছে অনেক। দামও নাগালের মধ্যে। এ কারণে মুরগি ও ডিমের চাহিদা কমে গেছে। দামও কমেছে। এদিকে সরবরাহ বৃদ্ধিতে পিয়াজের বাজার এখন নিম্নমুখী। দেশি ও আমদানি করা পিয়াজের কেজি ২৫ থেকে ৪০ টাকা। তেল, চিনি, ডালসহ নিত্যপণ্যের দামও স্থিতিশীল।
রাজধানীর কাওরান বাজার, হাতিরপুল, সেগুনবাগিচা বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দোকানগুলো শীতের সবজিতে ভরপুর। ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, নতুন আলু, পিয়াজ পাতা, টমেটো, মুলা, নতুন বেগুনসহ নানা রকমের সবজি পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যে বাজারে আসা নতুন আলু বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১২০ টাকা দরে।
বিক্রেতারা জানান, আগের সপ্তাহের চেয়ে দাম কম থাকায় কেনাবেচাও জমে উঠেছে। সবজি বিক্রেতা হুমায়ুন কবির জানান, এখন শিম ও বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, যা আগের সপ্তাহে ৭০ থেকে ৯০ টাকা এবং মৌসুমের শুরুতে শিমের দাম ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা ছিল।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মাস দুয়েক ধরেই ভারত থেকে আমদানি করা পাকা টমেটো বিক্রি হচ্ছিল চড়া দামে। এখনো এই টমেটো প্রতি কেজি ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দেশি টমেটোও বাজারে আসতে শুরু করেছে। এসব টমেটোর দাম আরো চড়া। ১০০-১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। দাম কিছুটা কমলেও এখনো চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছে শিম। প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৪০-৬০ টাকা কেজি দরে। সপ্তাহখানেক ধরে বাজারে আসতে শুরু করেছে পাতা পিয়াজ। প্রতি কেজি পাতা পিয়াজ পাইকারিতে ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি হলেও মহল্লার বাজারগুলোতে বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজি দরে।

অন্যান্য সবজির মধ্যে বেগুন, করলা, ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা ও ঢেঁরশের কেজি ২৫ থেকে ৩৫ টাকা। মুলা ও পেঁপের কেজি ১৫ থেকে ২০ টাকা। ৫০ থেকে ৬০ টাকা দামের প্রতিটি লাউ এখন ২০ থেকে ৩০ টাকা। একইভাবে ফুল ও বাঁধাকপির দাম অর্ধেক কমে প্রতি পিস ২০ থেকে ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগের সপ্তাহে সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটের ফলে বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। বেশিরভাগ সবজি চড়া দামে বিক্রি হয়। কাঁচামরিচের দাম বেড়ে ২০০ টাকা পর্যন্ত উঠেছিল। এখন তা কমে ৬০ টাকা কেজি। এ ছাড়া অন্যান্য সবজির দামও কমেছে।

পাইকারি বিক্রেতারা জানায়, যেসব সবজির সরবরাহ বেড়েছে সেগুলোর দাম কমতে শুরু করেছে। যেগুলো একেবারে নতুন আসছে সেগুলোর দাম চড়া। কারণ এসব সবজির সরবরাহ কম। তবে সপ্তাহখানেকের মধ্যে সব ধরনের সবজির দাম আরো কমে আসবে বলে জানায় তারা। সবজির দামের বিষয়ে হাতিরপুল বাজারের বাসিন্দা আতিক বলেন, শিম, কপি, লাউসহ বেশিরভাগ সবজির দাম কিছুটা হলেও স্বস্তিদায়ক। তবে টমেটো ও গাজরের দাম কমছে না। দীর্ঘদিন ধরেই সবজি দুটি ৮০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। টমেটো ও গাজরের দাম কমলে বাজার করে আরো স্বস্তি পাওয়া যেত।

বাজারে কম দামে পাওয়া যাচ্ছে পিয়াজ। সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজিতে ৫ টাকা কমেছে। দেশি পিয়াজ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা ও ভারতীয় পিয়াজ ২৫ থেকে ৩০ টাকা। আদার দামও কেজিতে ৩০ টাকা কমে চীনা আদা ১০০ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দেশি আদার দাম ১০ টাকা কমে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা হয়েছে।
এদিকে বাজারে কয়েক সপ্তাহ ধরে বেড়েই চলেছে রসুনের দাম। সরকারি সংস্থা টিসিবির হিসাবে দেশি রসুনের দাম বেড়েছে ৯.৯ শতাংশ। আর আমদানি করা রসুনের দাম বেড়েছে ২১.৭৪ শতাংশ। বর্তমানে দেশি রসুনের কেজি ৫০ থেকে ৮০ টাকা। কয়েক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ থেকে ৭০ টাকা। আর বর্তমানে আমদানি করা রসুনের কেজি ৬০ থেকে ৮০ টাকা। কয়েক সপ্তাহ আগে ছিল ৪৫ থেকে ৭০ টাকা।

এদিকে এখন বাজারে এক কেজি ওজনের প্রতিটি ইলিশ ১ হাজার ১০০ থেকে ১ হাজার ২০০ টাকা। আট থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা। ৭০০ গ্রামের ইলিশের কেজি ৭০০ টাকা এবং ছোট আকারের ৫০০ গ্রাম ইলিশের কেজি ৬০০ টাকা। রুই ও কাতলা বিক্রি হচ্ছে আকার ভেদে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি। তেলাপিয়া ১০০ থেকে ১৩০ টাকা, কই মাছ ১২০ টাকা, সিলভার কার্প ১০০ টাকা, পাঙাশ ১০০ থেকে ১২০ টাকা।
সবজি ও মাছের দাম কম থাকায় ডিম ও মুরগির দামও কমেছে। ডিমের ডজন ৯০ টাকা। খুচরায় ডিমের হালি ৩২ থেকে ৩৫ টাকা। ব্রয়লার মুরগি কেজিতে ৫ টাকা দাম কমে ১১৫ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৭০০ টাকা।

গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে কেজি ৪৫০-৪৮০ টাকা। ব্রয়লার মুরগি গত সপ্তাহের মতোই ১৩০-১৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। লাল লেয়ার ১৬০ টাকা এবং সাদা লেয়ার কেজি ১৫০ টাকা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গণভবনে এরশাদ-বি. চৌধুরী

এবারের নির্বাচনে বিশেষ কোনো দলের প্রতি সমর্থন নেই ভারতের

প্রার্থী তালিকায় বড় পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম

আমাদের নির্বাচনের দিনটি চুরি-ডাকাতির দিন হয়ে গেছে

সচিব, ডিএমপি কমিশনারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা দাবি

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) আজ

রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রেপ্তার

এতোগুলি মানুষের স্বাধীনতাকে ভালোবাসাই আশার জায়গা

ইশতেহারে ডিজিটাল আইন সংশোধনের প্রতিশ্রুতি অন্তর্ভুক্তির আহ্বান

নির্বাচন সামনে রেখে পর্যবেক্ষণে বিনিয়োগকারীরা

বিএনপি’র মনোনয়ন প্রত্যাশীদের শপথ

সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ

ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিতে পারেন সামাদ আজাদপুত্র ডন

দশ মাসে ৪৩৭ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড

‘আমি বেশি দিন রাজনীতি করমু না’ -শামীম ওসমান

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘুরে গেলেন মিলার