সিদ্ধিরগঞ্জে মধ্যরাতে বাসে আগুন

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ৮ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
সিদ্ধিরগঞ্জে মধ্যরাতে একটি মিনিবাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে বাসের ভেতর কেউ ছিল না। খবর পেয়ে আদমজী ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আধাঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। বাসটি (ঢাকা মেট্টো-ব-১১-২৪৭৯) আদমজী ইপিজেড-এ শ্রমিক পরিবহন করে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে। কিন্তু কারা বাসটিতে আগুন দিয়েছে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ তা উদঘাটন এবং জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে নারায়ণঞ্জ-আদমজী-চিটাগাং রোড সড়কের রংধনু সিনেমাহল সংলগ্ন আউলাবনের রাস্তার মাথায়। বাসটি সেখানে পার্কিং করা ছিল।  ওই এলাকার নাইটগার্ড কাঞ্চন জানান, ৩ যুবক একটি সিএনজি করে এসে গাড়িটির সন্নিকটে যায়। তাদের মধ্যে একজনের মুখম-ল গামছা দিয়ে বাঁধা ছিলো।
আরেকজন ঘটনাস্থলের কাছে পুলিশ পিকআপ নিয়ে দাঁড়ানো পুলিশ অফিসারের সঙ্গে কথা বলেন। এরপরই পুলিশ গাড়িটি ঘুরিয়ে একটু সামনে নিয়ে দাঁড়ান। পরে ওই ৩ জন দুর্বৃত্ত গাড়িটির পাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে অবস্থান নেয়। এ সময় কাঞ্চন যুবকদের বাসের সামনে থেকে সরে যেতে বললে যুবকরা নিজেদের পুলিশের সোর্স বলে পরিচয় দেয়। এবং বলে একজন আসামি এ পথ দিয়ে অবৈধ মাল নিয়ে আসছে। তাকে আটক করতেই তারা এখানে একটু আড়াল হয়ে দাঁড়িয়েছেন।
পরে কাঞ্চন বাসের সামনে থেকে একটু দূরে এলেই দেখতে পান ওই দুর্বৃত্তরা একটি ইট ছুড়ে গাড়ির গ্লাস ভেঙে ভিতরে কি যেন ছুড়ে মারার পর গাড়িটির ভিতরে আগুন ধরে যায়। পরে কাঞ্চন তাদের ধাওয়া দিলে তারা আউলাবন সড়ক দিয়ে পালিয়ে যায়।
কাঞ্চন আরো জানান, তাদেরকে এর আগেও তিনি দেখেছেন। তবে তাদের নাম জানেন না। তারা পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করে থাকে। তবে তিনি তাদেরকে আাবার দেখলে চিনতে পারবেন। এ বিষয়ে উপ-পরিদর্শক (এসআই) দিলীপ কুমার বিশ্বাস বলেন, তিনি ওই ৩ দুর্বৃত্তকে চিনেন না। তবে তাদের মধ্যে একজন তাকে সিদ্ধিরগঞ্জ পুলে কি যেন ঝামেলা হচ্ছে জানিয়ে চলে যায়। এর কিছুক্ষণ পর তিনি দেখতে পান গাড়িটি আগুনে জ্বলছে।
আগুন নিভাতে ঘটনাস্থলে আসা আদমজী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার শাহজাহান বলেন, জ্বালানো কয়েল থেকে এ আগুন লাগতে পারে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বাসটির চালক। তিনি মাস্টার নামেই পরিচিত। তিনি বলেন, দীর্ঘ ২ বছর থেকে গাড়িটি এখানেই পার্কিং করে রাখা হয়। রাতে গাড়িতে কেউ থাকে না। গাড়ির মূল মালিক সুনিল দুইমাস আগে মারা গেছেন। বর্তমানে তার স্ত্রী গাড়িটি দেখাশুনা করেন। ঘটনাস্থলে যাওয়া সিদ্ধিরগঞ্জ থনার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, আগুনের ঘটনার কিছু সময় আগে তিনি এ সড়ক দিয়ে রাউন্ড দিয়েছিলেন। সিদ্ধিরগঞ্জ পুলে আসা মাত্রই তিনি খবর পান কে বা কারা গাড়িতে আগুন দিয়েছেন। তাৎক্ষণিক তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে যান। পরে তিনি নিরাপত্তা প্রহরী কাঞ্চন ও গাড়ির চালকের সঙ্গে কথা বলেন। এবং এসআই দিলীপ কুমার বিশ্বাসকে বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মার্চে জাতীয় কাউন্সিল করতে পারে বিএনপি

জাপানে বাংলাদেশি আশ্রয়প্রার্থীর ছবি নিয়ে তোলপাড়

দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ার নির্দেশ

প্রতি তিনজনে একজন নারী পারিবারিক সহিংসতার শিকার

বর্বরতা!

ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ ৬ই ফেব্রুয়ারি

জানুয়ারিতে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ১৩০০ রোহিঙ্গা

প্লাস্টিক ও গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ মেলার উদ্বোধন

বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গারা ভারতীয় পাসপোর্টে যাচ্ছে সার্বিয়া

সালমান এফ রহমানকে উপদেষ্টা করায় প্রধানমন্ত্রীকে এফবিসিসিআই ও ঔষধ শিল্প সমিতির অভিনন্দন

৮৮ ‘বাংলাদেশির’ ভারতীয় নাগরিকত্বের দরখাস্ত বিবেচনাধীন

রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ, ১৫ সদস্যের উপদেষ্টা পরিষদ গঠন

সন্ত্রাস-দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স সুশাসনের অঙ্গীকার

আশা করি বিএনপি সংসদে যাবে: আইনমন্ত্রী

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া ১০ হাজার টাকা কমলো

মার্চে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা