যেখানে ধর্ষিতাই অপরাধী!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৬ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:০৬
পৃথিবীর নানা দেশে এখনো রয়েছে মধ্যযুগীয় আইন। সভ্যতা যখন প্রগতির পথে এগিয়ে যাচ্ছে তখনো এসব দেশে চালু রয়েছে বর্বর সব আইন। এমনই এক দেশ আফ্রিকার মৌরিতানিয়া। সেখানে ধর্ষণের শিকার হওয়ায় নারীকেই শাস্তি দেয়া হয়। বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্কের দায়ে তাদেরকে জেলে যেতে হয়। পরিসংখ্যান বলছে, মৌরিতানিয়ার নারী কয়েদিদের ৪০ শতাংশেরও বেশি কয়েদির মূল অপরাধ বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক। ডয়েচে ভেলে জানিয়েছে, দেশটির নোয়াকচোট শহরে ২০১৬ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যেই অন্তত ৫০ জন নারীর কারাদণ্ড হয়েছে। আশ্চর্য্যের বিষয়, বেশির ভাগ নারীই ধর্ষণের শিকার।

২৬ বছর বয়সী খাদি একজন ভুক্তভোগী।
ধর্ষণের পর তিনি লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে বলতে পারেননি। কিন্তু গর্ভবতী হওয়ার পর বিষয়টা জানাজানি হয়ে যায়। একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। তখন বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্কের দায়ে তাকে কারাগারে যেতে হয়। দেশটির প্রগতিশীল আইনজীবীরা এ ধরনের মামলার ক্ষেত্রে ধর্ষিতার পক্ষে কাজ করার চেষ্টা করে।

উত্তর-পশ্চিম আফ্রিকার মরুভূমির মাঝে অবস্থিত দেশ মৌরিতানিয়া শরিয়া আইনে চলা একটি ইসলামী প্রজাতন্ত্র। ইসলামী রাষ্ট্রগুলোর মতো ধর্ষণের শাস্তি সেখানে মৃত্যুদণ্ড না হলেও সেখানকার আইন এখনো নারীবান্ধব নয়। সে দেশে বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক অবৈধ। ফলে ধর্ষণের শিকার হলে নারীকে সবার আগে প্রমাণ করতে হয় যে, যৌন সম্পর্কটি অনিচ্ছাকৃত ছিল। কিন্তু সেটা প্রমাণ করা সব সময়ই কঠিন। এ কারণে ধর্ষকের শাস্তি হোক বা না হোক বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক স্থাপনের কারণে শরিয়া আইন অনুযায়ী ধর্ষিতার শাস্তি অবধারিত। ফলে, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ধর্ষিত নারীকেই কারাভোগ করতে হয়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জারা আক্তার

২০১৮-১১-০৯ ২৩:৫১:৪৯

ইসলামিক আইন মানে আল্লাহর আইনকে যে সাংবাদিক, বর্বর আইন বলেছে সে কখনও মুসলিম হতে পারে না, এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবই আমি বাংলাদেশে ইসলামিক আইন চাই।

মোঃ খোকন (রংপুর)

২০১৮-১১-০৭ ১৪:২৪:০০

মধ্যযুগীয় আইন এই কথাটি যে লিখেছে সে আর যাই হোক হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু এর উম্মত নয়

moti

২০১৮-১১-০৬ ২১:৫৪:৪৩

শরিয়া আইন কি মধ্যযুগীয় আইন ?

আপনার মতামত দিন

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফেরদৌস ও শাহ আলী

কাবুলে বাংলাদেশ মিশন পুনরায় খোলার অনুরোধ আফগান দূতের

লুকিয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়েও রেহাই পেলো না চবির ছাত্রদল নেতা

নির্বাচনের অনিয়ম, রাখাইন সংকট ও জুলহাজের বিচার নিয়ে ওয়াশিংটনে আলোচনা

জামিন বহাল সাবেক দুই আইজিপির

সীমান্ত হত্যার ঘটনায় ফখরুলের উদ্বেগ

ইউনিপের এমডিসহ ছয়জনের ১২ বছর কারাদন্ড

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দুদকের চিঠি

ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে মনোনয়ন ২৬ জানুয়ারি: কাদের

ফেব্রুয়ারিতে একসঙ্গে দু’পক্ষের বিশ্ব ইজতেমা

তারা মিয়ার জামিন

অন্ত:স্বত্তা গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগে এসআইয়ের বিরুদ্ধে মামলা

২৪ ঘন্টায় কমলা হারিসের তহবিলে দেড় লাখ ডলার

প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজনীতিতে এনে কংগ্রেসের মাস্টারস্ট্রোক

পুলিশ পেটানোর মামলায় সেই ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ডে

চট্টগ্রামে ভাড়া বাসায় যুবদল নেতার গলিত লাশ