কারাগারে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার, ১:২২ | সর্বশেষ আপডেট: ৯:১৬
মানহানির মামলায় গ্রেপ্তার ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নিদের্শ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর মূখ্য হাকিম আদালতের অতিরিক্ত মূখ্য হাকিম কায়সারুল ইসলাম এ আদেশ দেন। এর আগে দুপুর ১টার দিকে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয় থেকে আদালতে হাজির করা হয় তাকে। এসময় আদালতে মইনুল হোসেনের আইনজীবী জামিন ও ডিভিশন আবেদন করেন । সোমবার রাত সোয়া দশটার দিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রবের উত্তরার বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। এর আগে সোমবার বিকেলে রংপুরের মানবাধিকারকর্মী মিলি মায়া সেখানকার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন। সন্ধ্যায় বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।
উল্লেখ্য, সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ঢাকাসহ দেশের বেশ কয়েকটি এলাকায় মানহানির মামলা দায়ের করা হয়। এর মধ্যে কয়েকটিতে তিনি উচ্চ আদালত থেকে আগাম জামিন নিয়েছেন।
গত ১৬ই অক্টোবর একাত্তর টেলিভিশনের টক শো ‘একাত্তর জার্নাল’ এ ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি প্রশ্ন করেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনি যে হিসেবে উপস্থিত থাকেন- আপনি বলেছেন আপনি নাগরিক হিসেবে উপস্থিত থাকেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, আপনি কী জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে সেখানে উপস্থিত থাকেন।’
মাসুদা ভাট্টির এই প্রশ্নে মইনুল হোসেন বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই। আমার সঙ্গে জামায়াতের কানেকশনের কোনো প্রশ্নই নেই। আপনি যে প্রশ্ন করেছেন তা আমার জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর।’ এ ঘটনার পর বিভিন্ন মহল থেকে বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। একপর্যায়ে মইনুল হোসেন মাসুদা ভাট্টিকে ফোন করে এবং সংশ্লিষ্ট টকশোর উপস্থাপিকাকে চিঠি লিখে দুঃখপ্রকাশ করেন। এরপর গত ২১শে অক্টোবর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি। পরে জামালপুর ও কুড়িগ্রামেও তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। এর মধ্যে ঢাকা ও জামালপুরের মামলায় গত রোববার পাঁচ মাসের এবং গতকাল কুড়িগ্রামের মামলায় ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন পান তিনি।
প্রসঙ্গত, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন সম্প্রতি গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে জড়িত হন। তিনি ফ্রন্টের একাধিক বৈঠকেও অংশ নেন। সেই ধারাবাহিকতায় গতকাল রাতের আ স ম আবদুর রবের  উত্তরার জসিম উদ্দীন রোডের বাসায় বৈঠক করেন তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক এই উপদেষ্টা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Muhammed Haque

২০১৮-১০-২৩ ১৭:৪০:০০

And that's why we left Bangladesh since two decades, in fact Bangladesh is not a place where human being can survive apart from a special group

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

২০১৮-১০-২৩ ০৩:৫৯:১৫

না কিছু লেখার নেই। কারণ আমি অনেকদিন বেঁচে থাকতে চাই।

nurul alam

২০১৮-১০-২৩ ১৬:১১:৪৫

যার সাথে মিঃ মঈনুলের বিতন্ডা তার মামলায় জামিন । সাংবাদিক সম্মেলনের পর রাতে গ্রেফতার ! দেশ আর বিচার বিভাগ কীভাবে চলছে একে একে সবই দিবালোকের মত সবার সম্মুখে ভেসে উঠছে ।

MOMTAZ

২০১৮-১০-২৩ ১৪:৩৩:২৬

একই কারনে এক জনের বিপক্ষে কয়টা কেইস করা যায় ।

ফরিদ আহম্মেদ

২০১৮-১০-২৩ ০১:২৪:৪৪

বোবা হয়ে জারা জন্ম নিয়েছেন বর্তমান প্রক্ষাপটে তারা অতি সুভগ্যবান।

আপনার মতামত দিন

ইবি’র 'সি' ইউনিটের পরীক্ষা বহাল

তাদের সবাইকে জেলে ভরে রাখা উচিত: জয়

জামিন পেলেন আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম

ব্রেক্সিট: পদত্যাগ করেছেন উত্তর আয়ারল্যান্ড বিষয়ক মন্ত্রী

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিক্ষোভ, শ্লোগান

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে অনিশ্চিত মাশরাফি

ধানের শীষে লড়বে ঐক্যফ্রন্ট

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন ফরম নিলেন যারা

বিএনপিতে ফিরলেন সাবেক এমপি আব্দুর রশিদ

জোটবদ্ধ নির্বাচন হলেও সম্মানজনক আসন পাবো

নেতা-কর্মীরাই সামলাচ্ছেন সড়কের জট

চীন বা রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে হেরে যেতে পারে যুক্তরাষ্ট্র!

গ্যাটকো মামলায় খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ১০ জানুয়ারি

‘ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়’

পল্টনে হামলা বিএনপির পূর্ব পরিকল্পিত

ফেনীতে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার রায় যুবকের যাবজ্জীবন