নারায়ণগঞ্জে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৪ মামলা, আসামি ৫৬১

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:০৩
বুধবার ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘিরে নাশকতার প্রস্তুতি ও নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগে নারায়ণগঞ্জে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ৪টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। মামলাগুলোতে আসামি করা হয়েছে বিএনপি’র ৫৬১ নেতাকর্মীকে আসামি করা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ, ফতুল্লা, বন্দর ও সোনারগাঁও থানায় মামলাগুলো দায়ের করা হয়। ৪টি মামলায় পুলিশ বিএনপি’র ১৩ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে। এবং প্রত্যেকটি মামলায় একই অভিযোগ। ফতুল্লা মডেল থানার পিএসআই ফজলুল হক বাদী হয়ে বিএনপি’র ৪০ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত ১১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযোগ করা হয় বুধবার ফতুল্লার ভূঁইগড় মাগুর মাছের খামারের সামনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্ক রোডে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ১৪০ থেকে ১৫০ জন নেতাকর্মী বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রশস্ত্র ও বিস্ফোরক নিয়ে অস্থিতিশীল ও নাশকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিক্ষোভ মিছিলসহ ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে যানবাহন ভাঙচুর করে। মামলায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ।
তারা হলো- রাসেল (২২), আনোয়ার (৫৫), হাবিব শেখ (৪০), জয়নাল আবেদীন (৪৫)। তারা ফতুল্লা এলাকার বাসিন্দা। বন্দর ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী বাদী হয়ে বিএনপি’র ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো ৩০ থেকে ৪০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তারা হলো- বন্দর থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল (৪৮), বন্দর থানা যুবদলের সভাপতি আমির হোসেন (৪৩) ও হরিপুর এলাকার আবদুল করিম মিয়ার ছেলে সানাউল্লাহ (৫২)। এর মধ্যে বন্দর থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আতাউর রহমান মুকুলের ভাই। মামলায় অভিযোগ করা হয় আসামিরা বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রশস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্যে সজ্জিত হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড ঘটানোর চেষ্টা করে। সোনারগাঁ থানার এসআই তোহিদ উল্লাহ বাদী হয়ে বিএনপি’র ৪৮ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরো ৪০/৫০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে। মামলায় সোনারগাঁ উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নেতা কাজী এনামুল হক রবিন, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়ন বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুন্নবী মাস্টার ও কাঁচপুর ইউনিয়ন তাঁতীদলের সভাপতি ইসমাইল হোসেনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বুধবার পুলিশ তাদের আটক করে। জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ বলেন, এসব গায়েবি মামলার মাধ্যমে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের হয়রানি ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারাবাসকে দীর্ঘায়িত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। শান্তিপূর্ণ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্যদিয়ে এসব মামলা প্রত্যাহারে বাধ্য করা হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

পাকিস্তানে নারী জঙ্গির আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ৮

প্রিয়া সাহার ব্যাখ্যা না শুনে মামলা নয়: ওবায়দুল কাদের

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা খারিজ

প্রিয়া সাহার বক্তব্য: মার্কিন দূতাবাসেরই দূরভিসন্ধি

দেশের সুনাম সংকটে ফেলাই উদ্দেশ্য: অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন

অর্থনৈতিক উন্নয়নে রাষ্ট্রদূতদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর তাগিদ

মিন্নির জামিন আবেদন না মঞ্জুর

ঢাবির ভবনে ভবনে তালা, ক্লাস বর্জন

ব্রেস্ট ক্যান্সারে নতুন ওষুধ

মালয়েশিয়ার সাবেক রাজার বিচ্ছেদ নিয়ে ক্লাইম্যাক্স

হিউম্যানস অব আসাম- পর্ব ১

পুলিশ যেভাবে বলতে বলেছে সেভাবেই বলেছি, বাবাকে মিন্নি

কায়রোতে ৭ দিনের জন্য ফ্লাইট স্থগিত বৃটিশ এয়ারওয়েজের

বাড্ডায় নিহত নারী ছেলেধরা ছিলেন না, ৪০০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

নিজ আগ্নেয়াস্ত্রের গুলিতে আহত ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা

সাধারণ বাণিজ্যিক ফ্লাইটে ওয়াশিংটন গেলেন ইমরান খান