‘চিকিৎসা করারও টাকা নাই’

বাংলারজমিন

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার
৩০ বছর যাবৎ কাকডাকা ভোরে সংবাদপত্র হাতে নিয়ে ছুটে বেড়ানোই তার পেশা, রোদ বৃষ্টি ঝড় উপেক্ষা করে ছুটে চলা মানুষটি আজ অসুস্থ। নীলফামারীর সৈয়দপুরের পত্রিকা বিক্রেতা আবদুল গাফফারের বয়স এখন ৬০ বছর। ভাড়া-বাড়িতে থাকেন মুন্সিপাড়ায়। স্ত্রী, দু’কন্যা আর ১ ছেলেকে নিয়ে তার বসবাস। বয়স এবং অসুস্থতা তাকে গ্রাস করেছে আষ্টেপৃষ্ঠে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে ব্রেইন স্ট্রোক করে ভর্তি হন পার্বতীপুর ল্যাম্ব হাসপাতালে। সেখানে কিছুটা সুস্থ হলেও অবশ হয়ে গেছে বাম হাত। চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে না পেরে অসুস্থ শরীর নিয়ে চলে আসতে হয়েছে হাসপাতাল থেকে।
একমাত্র ছেলেটি খুব সামান্য আয় করে। সেই আয় থেকেই বাবার চিকিৎসা করিয়েছেন। এখন তার পক্ষে আর সম্ভব হচ্ছে না। নিজের শারীরিক অবস্থা ক্রমেই খারাপ হয়ে যাচ্ছে তার উপরন্তু দুটি অবিবাহিত মেয়েকে নিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছে অসহায় মানুষটি। ডাক্তার বলেছে, দূত উন্নত চিকিৎসা করাতে না পারলে ব্রেইন পুরোপুরি ড্যামেজ হয়ে যেতে পারে।  পত্রিকা বিক্রেতা আবদুল গাফফার জানান, আমি ৩০ বছর যাবৎ সংবাদপত্র বিক্রি করে আসছি। আমি অন্য কোনো কাজ করতে পারি না। আমার বয়স হয়েছে এখন আর শরীরে শক্তি পাই না। পত্রিকা নিয়ে আর ছুটতে পারি না। চিকিৎসা করারও টাকা নেই। সমাজের বিত্তবানদের কাছে আহ্বান আমাকে চিকিৎসা করার জন্য আর্থিক সাহায্য করেন। আমি সুস্থ হয়ে আবার পত্রিকা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতে চাই।
বিকাশ: ০১৯৯২১৪৮৪৯৮।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

দলবেঁধে বিদেশ ভ্রমণ

টাকার মান কমানোর উদ্যোগ যা ভাবছেন বিশ্লেষকরা

ছাত্ররাজনীতি বন্ধ হওয়া উচিত

দুদক চেয়ারম্যানের পদত্যাগ করা উচিত

গণভবনে আবরারের বাবা-মা, দ্রুত বিচারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

চার বড় ভাইকে নিয়ে সিলেটে নানা জল্পনা

ড. ইউনূসের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা স্থগিত

পরিবেশ রক্ষা করেই সুন্দরবন এলাকায় উন্নয়ন হচ্ছে- সালমান এফ রহমান

বাংলাদেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার অপরাধকরণ নিয়ে উদ্বেগ

শিশুর ওপর এ কেমন বর্বরতা!

ছাত্রলীগ থেকে অমিত সাহা বহিষ্কার

আবরারের ছবিতে ভিজেছে হাজারো চোখ

‘শিবির সন্দেহে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়’

মিজান ও অমিত সাহা জানায়, আবরার শিবির করে

খোকন-শ্যামলসহ ছাত্রদলের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা

বিদেশি পর্যটকে মুখরিত হবে হাওর: প্রেসিডেন্ট