ট্রাকচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

অনলাইন

নওগাঁ প্রতিনিধি | ৯ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার, ১:৩৩ | সর্বশেষ আপডেট: ৭:৪০
নওগাঁর পত্নীতলায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার নজিপুর-নওগাঁ রোডের কালনাকাটি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এখন পর্যন্ত নিহত দুজনের পরিচয় মিলেছে। তারা হলেন- আব্দুস সালাম (৪৫) ও তার ছেলে তৌফিক (২৭)। তাদের বাড়ি মহাদেবপুর উপজেলার চকদৌলত গ্রামে। পত্নীতলা থানার ওসি পরিমল কুমার চক্রবর্তী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, নিহতরা মোটরসাইকেলযোগে মহাদেবপুর থেকে পত্নীতলা সদর নজিপুরে যাচ্ছিলেন। নজিপুর-নওগাঁ রোডের কালনাকাটি এলাকায় পৌঁছলে পেছন থেকে একটি ট্রাক তাদের ধাক্কা দেয়। এতে ঘনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।নিহতদের লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে।।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-১০-০৯ ০১:৪৭:৪৫

কি লাভ হল কিশোরদের আন্দোলনে ? সরকারকে দায়ী করছি না। বাঙ্গালীর বিবেককে প্রশ্ন করছি। এসব গাড়ি-চালক ও মালিক শ্রমিকদের প্রশ্ন করছি।মালিকরা গাড়ি সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ করলে অনেক ক্ষেত্রে দুর্ঘটনা রোধ সম্ভব । চালকরা সতর্ক হলে দুর্ঘটনা শূন্যের কোটায় নেমে আনা সম্বব। যদি মালিকের পরিবারের কেঊ মরে কেমন লাগবে ? চালকের সন্তান যদি অন্য চালকের গাড়ির তলায় পড়ে মরে কেমন লাগবে তারা একবার ভেবে দেখুক। শ্রমিকরা যে এদের সঙ্গে হরতালে শরিক হয় তাদের সন্তান যদি গাড়ির নীচে পড়ে মরে কেমন লাগবে ? তাহলে কেন তারা শাস্তি দিলে হরতাল করে ?

আপনার মতামত দিন

প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে যুবককে কুপিয়ে হত্যা

রোহিঙ্গারা ফেরত না গেলে নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে- সংসদে প্রধানমন্ত্রী

রেমিটেন্স ১৬শ’ কোটি ডলার ছাড়ালো

টিকে রইলো পাকিস্তান

সংকট সমাধানে আশাবাদী বিএনপি

এ যেন আরেক আয়লান

মাহমুদুল্লাহর সুস্থতার দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ

মায়ের ভিডিওকলে অন্তঃসত্ত্বা মেয়ের সংসার ভাঙার উপক্রম!

যুক্তরাষ্ট্র-ইরান বাকযুদ্ধ

টেলিকম খাতে করের বোঝা চাপিয়ে প্রবৃদ্ধিকে আটকে দেয়া হয়েছে

ফেসবুক, ইউটিউব গুগলকে ভ্যাট এজেন্ট নিয়োগের নির্দেশনা

তিউনিশিয়া থেকে ফিরলো আরো ২৪ জন

মাঠের অভাবে ছুটিতে বাংলাদেশ

চুড়িহাট্টা ও এফ আর টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ড থেকে শিক্ষা নিতে চায় সরকার

মৌসুমের প্রথম বৃষ্টিতেই ডুবলো সিলেট নগর

সিলেট-আখাউড়া রেলপথে পদে পদে মৃত্যু ঝুঁকি