কাল্পনিক মামলার তদন্তে কমিশন চেয়ে হাইকোর্টে রিট

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৩৭
রাজধানীসহ সারা দেশে বিএনপি নেতাকর্মী ও দলটির আইনজীবীদের বিরুদ্ধে ‘গায়েবি’ মামলা দায়ের থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করা হয়েছে। একই সঙ্গে ইতিমধ্যে দায়ের হওয়া  মামলাগুলো তদন্তে একটি স্বাধীন ও উচ্চ পর্যায়ের কমিশন গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী ও দলটির আইন বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লা মিয়া গতকাল হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন করেন। আজ সোমবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিটের ওপর শুনানি হতে পারে বলে সাংবাদিকদের জানান রিটকারী আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি জানান, চলতি মাসে বিএনপির অগণিত নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়ের করা কল্পিত ও ভিত্তিহীন মামলা করা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং এ ধরনের মামলাকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিবাদীদের কেন নির্দেশ দেয়া  হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল চাওয়া হয়েছে রিটে। এ ছাড়া ইতিমধ্যে যে সব মামলা দেয়া হয়েছে সেগুলোর তদন্ত ও বিচারিক কার্যক্রম যাতে আর অগ্রসর না হয় এবং কাউকে যাতে হয়রানি করা না হয় সেই নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে রিট আবেদনে। স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনারসহ ৯ জনকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে বলে জানান খন্দকার মাহবুব হোসেন।  

তিনি জানান, ইতিমধ্যে যেসব মামলা দায়ের হয়েছে সেই সব মামলার ঘটনা তদন্তে সাত সদস্যের একটি স্বাধীন ও উচ্চ পর্যায়ের কমিশন গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে আবেদনে। কমিশনে জাতিসংঘের মানবাধিকার শাখা, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, এশিয়ান হিউম্যান রাইটস কমিশনের প্রতিনিধি এবং পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক পদমর্যাদার নিচে নয় এমন একজন প্রতিনিধির সমন্বয়ে স্বাধীন কমিশন গঠনের আবেদন করা হয়েছে। রিটকারী আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে বিএনপি যাতে নির্বাচনী মাঠে না থাকতে পারে এবং ঐক্য প্রক্রিয়ায় যাতে অংশ নিতে না পারে সেজন্য দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক গায়েবি, ভিত্তিহীন ও মিথ্যা ঘটনায় মামলা দায়ের করা হচ্ছে। চলতি মাসে দলটির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে প্রায় ৪ হাজারের মতো মামলা দায়ের করা হয়েছে। আর এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে প্রায় ৩ লাখ লোককে। এমনকি দলের সিনিয়র আইনজীবীদের নামেও মামলা দেয়া হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘নির্বাচন উপলক্ষে বিরোধী দলকে চাপে রাখা এবং ভীতি সঞ্চারের জন্যই এসব মামলা দায়ের করা হচ্ছে।

তাই এ ধরনের মামলার প্রতিকার চেয়ে এই রিট আবেদন করা হয়েছে। রিটে মামলাগুলো কল্পিত, ভিত্তিহীন ও মিথ্যা কি-না তা তদন্ত করতে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিশন  গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ঢালাওভাবে যারা এ ধরনের এফআইআর (প্রাথমিক তথ্য বিবরণী) তৈরি করে মামলা দায়ের করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চেয়ে এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের কাল্পনিক মামলা করে যেন হয়রানি না করা হয় সে নির্দেশনা জারির আবেদন করা হয়েছে।’ খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘সোমবার এই রিটের শুনানি হতে পারে। শুনানিতে সিনিয়র আইনজীবী ড. কামাল হোসেন ও মওদুদ আহমদ অংশ নেবেন।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

SM.Rafiqul Islam

২০১৮-০৯-২৩ ১৬:৫৭:৫৪

Take necessary legal steps to stop this types of illegal &false case.Also take necessary legal action against the police officer who are involved with the illegal activities.

আপনার মতামত দিন

ট্রাকে ধাক্কা দিয়ে প্রাণ হারালেন মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী

পদত্যাগ করলেন পাপুয়া নিউ গিনির প্রধানমন্ত্রী

নেহার মিয়ার পক্ষ থেকে ইফতারের আয়োজন

রাজীবকুমারের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ

প্রেমিকাকে চমকে দিতে চান বরিস জনসন

বেলজিয়ামের পার্লামেন্ট নির্বাচনে লড়ছেন বাংলাদেশী শায়লা শারমিন

গাইবান্ধায় কাপড় ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা

বিশ্বকাপ চমকে দিতে পারেন তিন অধিনায়ক

ক্রিস গেইলের হুঙ্কার

শায়েস্তাগঞ্জে মদিনা হোটেলকে জরিমানা

২১ ইইউ সদস্য দেশে শেষধাপের নির্বাচন আজ

রামগতিতে ৩৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ১১

ভারতে জন্ম নিল আরেক মোদি

পদত্যাগ করলেন মহারাষ্ট্র কংগ্রেস প্রধান

দিনাজপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

আগাম টিকিট বিক্রির শেষ দিন আজও স্টেশনে উপচে পড়া ভিড়