‘২১শে আগস্ট বোমা হামলার পুরো বিষয়টাই প্রহেলিকা’

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রোববার, ১:৫৪
২১শে আগস্ট বোমা হামলার পুরো বিষয়টাই একটি প্রহেলিকা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, এটি আওয়ামী রাজনীতির কুটিল পাটিগণিত। আজ নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। রিজভী আহমেদ বলেন, জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ধ্বংস করার দেশীয় ও বৈদেশিক চক্রান্তের বিপজ্জনক ব্লুপ্রিন্ট হল ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা। বিএনপি-কে নিশ্চিহ্ন করার নানাবিধ ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় ২১শে আগষ্ট বোমা হামলা মামলায় সরকার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে আইন আদালতকে। কারণ আইন আদালত এখন সম্পূর্ণভাবে সরকারের হাতের মুঠোয়।

তিনি বলেন, গত তিন চার দিনে রাজধানীর দুটি থানায় ৭টি মামলা করা হয়েছে, এসব মামলায় বিএনপি’র আইনজীবীসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের প্রায় ১৫ শতাধিক নেতাকর্মীর নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিএনপি’র আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়াসহ অসংখ্য নেতাকর্মীর নামে এই ভিত্তিহীন মামলাগুলো করা হয়েছে খিলগাঁও, রামপুরাসহ বেশ কয়েকটি থানায়।
এছাড়াও বরগুনার পাথরঘাটায় ৪০ জন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নাশকতার বানোয়াট মামলা দায়ের করা হয়েছে। সারাদেশব্যাপী প্রায় ১৬ শতাধিক নেতাকর্মীর নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গায়েবী মামলার ছড়াছড়িতে সারাদেশে বিরাজ করছে এক আতঙ্কের পরিবেশ। মামলার ব্যাপক বিস্তারে সরকার যেন জনগণের ওপর প্রেতাত্মাসূলভ আচরণ করছে।

মূলত: এইদেশে মানুষের জীবনমান উন্নয়নের বরকত নেই, আছে শুধু মিথ্যা মামলার বরকত। বিরোধী মত ও শক্তিকে কষ্ট দেয়া, জুলুম করা আওয়ামী লীগের স্বধর্ম। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে পর্যদুস্ত করার জন্য সরকার এহেন অমানবিক পদ্ধতি নেই, যা তারা ব্যবহার করে না। আমরা এরই চরম প্রকাশ দেখতে পায়-২১শে আগস্ট বোমা হামলা মামলায় দীর্ঘদিন পর অধিকতর তদন্তের নামে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ার‌্যান তারেক রহমানকে জড়ানোর ঘটনায়। এর আগে দুইবার চার্জাশটে তারেক রহমানের নাম ছিল না। শুধুমাত্র প্রতিহিংসা পূরণের জন্য টার্গেট করেই সম্পুরক চার্জশিটে তার নাম উক্ত মামলায় জড়ানো হয়েছে। এক্ষেত্রে বেপরোয়া ক্ষমতার আস্ফালনে আইন আদালতকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।
 
সংবাদ ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রশিক্ষণ সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০৯-২৩ ০২:২২:১৮

বিএনপির রাজনীতি বোমার রাজনীতি । হাওয়া ভবন ছিল ব্লুপ্রিন্ট তৈরির ভবন। তারা ভেবে ছিল কিবরিয়াকে মেরে ফেললে আওয়ামিলীগ অর্থমন্ত্রীর লোক পাবে না। সাইফুর রহমান ও কিবরিয়ার মত আরেক সিলেটি সন্তানই অর্থমন্ত্রী পেয়ে গেছে। সিলেটি না হলেও অন্য জেলার অর্থমন্ত্রীর যোগ্য লোক আওয়ামি লীগে আছে ভবিষ্যতে ও থাকবে। হাসিনাকে মেরে আওয়ামিলীগকে শীর্ষ নেতা শূন্য করতে চেয়েছিল পারে নি। নেতা শূন্য কখনও করতে পারবে না। যাদের মাথায় মগজ নাই তারাই এরকম ভাবে। তাই বোমা বাজির রাজনীতি পরিহার করে পলিসি করে রাজনীতি করার অভ্যাস করাই উচিত । জামাতকে ছাড়েনা বোমাবাজির ব্লুপ্রিন্ট ভবিষ্যতেও বাস্তবায়ন করার জন্য। আমার উদাহরণ থেকে শিক্ষা নিবে আশা করি। বোমা বাজি ছাড়বে এটাই আমার বিশ্বাস ।

আপনার মতামত দিন

এমন নির্বাচন হওয়া উচিত যাতে বৈধতার সংকট থেকে শাসনব্যবস্থা মুক্ত হয়

সেপ্টেম্বরে খাসোগি হত্যার নীলনকশা তৈরি হয়

খালেদা জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় দুদক

মানহানির মামলায় মইনুল হোসেন কারাগারে

মইনুলকে গ্রেপ্তার জরুরি ছিল- কাদের

ঢাবি’র ‘ঘ’ ইউনিটের উত্তীর্ণদের নিয়ে আবার পরীক্ষা

সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপে ড. কামালের উদ্বেগ

সেলিম ওসমানকে অব্যাহতি

কোটা আন্দোলনের চার নেতাকে ছাত্রলীগের মারধর

জয়-পরাজয়ে অন্তরায় কোন্দল

পার্বত্য অঞ্চলের শান্তিতে হুমকি ৯৬৯-এর তৎপরতা

সিলেটে রাতে ধরপাকড়ের অভিযোগ

সিলেটে মাজার জিয়ারতে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা ( ভিডিও)

এবার মোবাইল অ্যাপ দেবে অ্যাম্বুলেন্সের সন্ধান

মধ্যরাতে তরুণীর সঙ্গে পুলিশের অশোভন আচরণ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ

সৌদিতে ‘যৌনদাসী’ হিসেবে বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশি নারীরা