কানাডার পাঠ্য বইয়ে ড. ইউনূস

প্রথম পাতা

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৩৫
শান্তিতে নোবেল জয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ও তার প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ ব্যাংকের কাহিনী এখন কানাডার সপ্তম শ্রেণির জাতীয় পাঠ্যক্রমের অংশ। কানাডার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রদের একটি পাঠ্যবই হচ্ছে ‘কমপ্লিট কানাডিয়ান কারিক্যুলাম গ্রেড ৭’ যেখানে ছাত্ররা গণিত, ইংরেজি ভাষা, ইতিহাস, বিজ্ঞান ও ভূগোল বিষয়ে জ্ঞানলাভ করে থাকে। প্রফেসর ইউনূস ও গ্রামীণ ব্যাংকের কাহিনী ইংরেজি পাঠ্যবইতে সন্নিবেশিত হয়েছে।

গতকাল ইউনূস সেন্টারের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, পাঠ্যবইতে লিখিত কাহিনীতে তুলে ধরা হয়েছে- ‘কীভাবে প্রফেসর ইউনূস বাংলাদেশের একটি দরিদ্র গ্রামে যান এবং সেখানে এক মহিলার সাক্ষাৎ পান যে বাঁশের মোড়া তৈরি করতো, কিন্তু বাঁশের উচ্চ দাম ও গ্রামের মহাজনদের উচ্চ সুদের কারণে আর্থিকভাবে হিমশিম খাচ্ছিল। আর তখনই প্রফেসর ইউনূস তাকে ও তার মতো আরো অনেককে নিজের পকেট থেকে ২৭ মার্কিন ডলার ঋণ দেন যাতে তারা দারিদ্র্যের দুষ্টচক্র থেকে বের হবার উদ্দেশ্যে নিজেরাই ব্যবসা শুরু করতে পারে।’

এই কাহিনীর মূল উদ্দেশ্য ক্ষুদ্র ঋণের ধারণা কীভাবে জন্মলাভ করলো এবং এটা কীভাবে বহু মানুষের জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন এনেছে সে সম্পর্কে শিশুদের শিক্ষা দেয়া। গ্রামীণ ব্যাংক ও ক্ষুদ্রঋণ কীভাবে সমাজের দারিদ্র্য দূর করতে এবং একটি অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী জাতি গড়ে তুলতে পারে- এই কাহিনীতে সেটাই তুলে ধরা হয়েছে।

ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের উচ্চ বিদ্যালয়গুলোর পাঠ্যবইতেও একই ধরনের কাহিনী ও প্রবন্ধ অন্তর্ভুক্ত হয়েছে যা থেকে নতুন প্রজন্ম ক্ষুদ্র ঋণ ও সামাজিক ব্যবসা সম্পর্কে এবং একটি দেশের উন্নয়নে এগুলোর ভূমিকা সম্পর্কে জ্ঞানলাভ করতে পারে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

কামরুল ইসলাম খান

২০১৮-০৯-১৪ ০৮:৩৩:০৯

খবরটা পড়ার পর খারাপ লাগল । নিজ দেশে যে লোকটা চুরান্ত অপমানিত হলেন কিছু অসুস্থ মানসিকতার রাজনিতীবিদদের দ্বারা ,অথচ তাকে সম্মানিত। করল অনেক উন্নত দেশ । আমরা সত্যিকারের বর্বর রয়ে গেলাম ।

মাহমুদ হোসাইন

২০১৮-০৯-১৩ ১৫:১৫:৪৩

শত্রুতা বাড়লো আরকি! কানাডা সরকার ও বিএনপি জামাত নিয়ন্ত্রিত!!

আপনার মতামত দিন

স্থগিতই থাকছে সাবেক এমপি রানার জামিন

ক্রাইস্টচার্চের প্রতিশোধ নিতে হামলা চালায় এনটিজে ও জেএমআই

ইউপি সদস্য-গ্রামপুলিশসহ গ্রেপ্তার ৪, ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বরিশালে দেদারছে চলছে কোচিং বাণিজ্য, রয়েছে অপেক্ষামান তালিকাও

গুজরাট দাঙ্গায় ধর্ষিত বিলকিসকে ৫০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ

‘বাংলাদেশও হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে’

পোশাক খাতে মজুরি কমেছে ২৬ শতাংশ: টিআইবি

বিজেপিতে যোগ দিলেন অভিনেতা সানি দেওল

দরকষাকষির দৃষ্টান্ত কার আছে আপনাদের নেত্রীকে জিজ্ঞেস করুন

শরবত খেলেন না এমডি, দেখাও দিলেন না

ফিলিপাইনে ভূমিকম্পে নিহত ১১

সরকারের প্রথম ১০০ দিন ছিলো উদ্যমহীন-উচ্ছ্বাসহীন-উদ্যোগহীন: দেবপ্রিয়

মিয়ানমারে সেই ২ সাংবাদিকের আপিল প্রত্যাখ্যান করেছে সুপ্রিম কোর্ট

গণঅন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শুরু, নিহতের সংখ্যা ৩২১

দক্ষিণ আফ্রিকায় গুলিতে ফেনীর যুবক নিহত

শ্রীলঙ্কা হামলায় সিরিয় নাগরিক গ্রেপ্তার