রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিচারে আইসিসি’র সিদ্ধান্তে আশা দেখছে জাতিসংঘ

শেষের পাতা

কূটনৈতিক রিপোর্টার | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:০০
রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে চালানো অপরাধের বিচার করার যে সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রি-ট্রায়াল চেম্বার নিয়েছে তা মিয়ানমারের জবাবদিহি আদায়ে সত্যিকারের আশা দেখিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল বাশেলেত। বৃহস্পতিবার জেনেভায় মানবাধিকার কাউন্সিলের ৩৯তম অধিবেশনে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘যদিও এই সিদ্ধান্ত সুনির্দিষ্টভাবে গণহত্যা অপরাধের বিষয়টি উল্লেখ করেনি, তারপরও যে অপরাধ হয়েছে তার জন্য জবাবদিহির সত্যিকারের আশা দেখিয়েছে।’ ন্যায়বিচারের স্বার্থে আইসিসিকে সমর্থন দেয়া অপরিহার্য বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মানবাধিকার প্রধান বলেন, ‘আমি সব দেশকে এই আদালতকে সমর্থন দেয়ার আহ্বান জানাই। এ বছর আমরা রোম সনদ অনুযায়ী আদালতটি প্রতিষ্ঠার ২০তম বার্ষিকী উদযাপন করছি। এজন্য আমি বাকি সব দেশগুলোকে সনদে স্বাক্ষর বা অনুসমর্থন দেয়ার আহ্বান জানাই। মিশেল বাশেলেতের মতে, গণহত্যা সবসময়ই অত্যন্ত বেদনাদায়ক। কিন্তু এটি কখনো পরিষ্কার ও একাধিক সতর্ক সংকেত দেয়া ছাড়া সংগঠিত হয় না।

যার মধ্যে রয়েছে- একটি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে একই ধরনের নির্যাতন চালানো, ক্ষতি করার ইচ্ছা, নির্যাতনকারীদের মধ্যে ‘চেইন অব কমান্ড’ থাকা এবং সর্বশেষ নিষ্ঠুর ও ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটানো। রোহিঙ্গাদের ক্ষেত্রে সতর্ক সংকেতগুলো ছিল- একটি গোষ্ঠীর মানুষ জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত নির্যাতিত হয়েছে, জবাবদিহিবিহীন একটি সেনাবাহিনী রয়েছে, পরিকল্পিত নির্যাতন চালানো হয়েছে এবং নাগরিকত্ব না দেয়াসহ রাষ্ট্রীয় মানবাধিকার লঙ্ঘন ঘটেছে যা কয়েক দশক ধরে শাস্তি পায়নি, বলেন তিনি।
বাশেলেত আরো বলেন, অপরাধীদের বিচারের প্রাথমিক দায়িত্ব হলো রাষ্ট্রের।

কিন্তু যেখানে রাষ্ট্র বিচার করতে চায় না বা অক্ষম সেখানে আইসিসির ব্যবহার সম্পূর্ণ রূপে উপযুক্ত। তিনি বলেন, আমি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রি-ট্রায়াল চেম্বারের গত সপ্তাহে নেয়া সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। তারা দেখেছেন যে মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের বিতাড়ন এবং সম্ভাব্য অন্যান্য অপরাধের বিচার করার এখতিয়ার আদালতের রয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

তারাকান্দায় মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেপ্তার

স্থগিতই থাকছে সাবেক এমপি রানার জামিন

ক্রাইস্টচার্চের প্রতিশোধ নিতে হামলা চালায় এনটিজে ও জেএমআই

ইউপি সদস্য-গ্রামপুলিশসহ গ্রেপ্তার ৪, ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বরিশালে দেদারছে চলছে কোচিং বাণিজ্য, রয়েছে অপেক্ষামান তালিকাও

গুজরাট দাঙ্গায় ধর্ষিত বিলকিসকে ৫০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ

‘বাংলাদেশও হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে’

পোশাক খাতে মজুরি কমেছে ২৬ শতাংশ: টিআইবি

বিজেপিতে যোগ দিলেন অভিনেতা সানি দেওল

দরকষাকষির দৃষ্টান্ত কার আছে আপনাদের নেত্রীকে জিজ্ঞেস করুন

শরবত খেলেন না এমডি, দেখাও দিলেন না

ফিলিপাইনে ভূমিকম্পে নিহত ১১

সরকারের প্রথম ১০০ দিন ছিলো উদ্যমহীন-উচ্ছ্বাসহীন-উদ্যোগহীন: দেবপ্রিয়

মিয়ানমারে সেই ২ সাংবাদিকের আপিল প্রত্যাখ্যান করেছে সুপ্রিম কোর্ট

গণঅন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শুরু, নিহতের সংখ্যা ৩২১

দক্ষিণ আফ্রিকায় গুলিতে ফেনীর যুবক নিহত