কনের সাজে নগ্ন ছবি, ফটোগ্রাফারকে প্রাণনাশের হুমকি!

রকমারি

| ২৫ আগস্ট ২০১৮, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:২১
ঠিক যেন শুভ দৃষ্টির পরের মুহূর্ত। মাথায় মুকুট। কপালে বড় করে সিঁদুরের টিপ। বাঁ হাতে জোড়া পানপাতা। তাতে মুখের নীচের অংশটুকু ঢাকা পড়েছে। ডান হাতে লক্ষ্মীর গাছকৌটো। খোলা চুলটা সামনের দিকে নামিয়ে দেওয়া। এক্কেবারে বিয়ের কনে।
কিন্তু...

কিন্তু... বিয়ের সাজে ওই তরুণী একেবারেই নগ্ন। পানপাতা ধরা হাত এবং ডান দিকে পাতিয়ে দেওয়া চুল ঢেকেছে বুক। লক্ষ্মীর গাছকৌটো দিয়ে আড়াল করে রাখা যৌনাঙ্গ।

ফেসবুক-সহ বিভিন্ন স্যোশাল মিডিয়ায় এই ছবি এখন ভাইরাল। কিন্তু, এর পিছনে আরও একটা কাহিনি তৈরি হয়েছে। যে পেশাদার আলোকচিত্রী ওই ছবিটি তুলেছিলেন, তাঁকে এখন প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। নিজেদের কট্টর হিন্দুত্ববাদী পরিচয় দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেই এক দল যুবক ওই সব হুমকি দিচ্ছেন। প্রাণের ভয়ে শেষ পর্যন্ত শুক্রবার সকালে পাটুলির বাসিন্দা প্রীতম মিত্র নামে ওই আলোকচিত্রী কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম থানাতে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে।প্রীতমের একটি সংস্থা রয়েছে, কাজ মূলত বিয়ের ছবি তোলা। গত চার বছর ধরে পেশাগত ভাবেই ওই সংস্থাটি চালাচ্ছেন তিনি। তবে বিতর্কিত এই ছবিটি প্রীতমই তাঁর এক বন্ধুর সংস্থার হয়ে তুলেছিলেন।এ দিন প্রীতমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘‘গত ২১ অগস্ট পেশাদার এক মডেলেরওই ছবিটা আমি তুলেছিলাম। ক্যামেরিনা নামে একটি গ্রুপে ছবিটা পোস্ট করেছিলাম।মুছেও দিয়েছিলাম মিনিট দশেকের মধ্যে। কিন্তু তার মধ্যেই কেউ হয়তো সেখান থেকে ছবিটা নিয়ে ছড়িয়ে দেয়।’’সেই ছবি ক’দিনের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়। ছবিটিতে আলোকচিত্রী হিসাবে প্রীতম মিত্র্রের নামও রয়েছে। এর পরেই প্রীতম ট্রোলড হতে থাকেন। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের হিন্দুত্ববাদী পরিচয় দিয়ে এক দল যুবক প্রথমে কটূক্তি করা শুরু করেন ওই আলোকচিত্রীকে। তাঁদের কয়েক জন তাঁকে প্রাণনাশের হুমকিও দিতে থাকেন। তাঁদেরই এক জন রাজ সরকার রিঙ্কু। নিজেকে মালদহের একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের প্রাক্তনী হিসাবে পরিচয় দিয়েছেন তিনি। হিন্দুত্ববাদী হিসাবেও দাবি করেছেন নিজেকে। ফেসবুকে তাঁর পোস্টে ওই আলোকচিত্রীর মাথার দামও ধার্য করেছেন রাজ। এমনকি, মু্ণ্ডচ্ছেদ করার হুমকিও দিয়েছেন। ওই যুবকদের অভিযোগ, লক্ষ্মীর গাছকৌটো হাতে ওই তরুণীর এ রকম ছবি হিন্দু ধর্মের ভাবাবেগে আঘাত করেছে।এর মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতেই অন্য একদল ওই ছবিকেই বিকৃত করে তরুণীকে লাল রঙের শাড়ি পরিয়ে দিয়েছেন।প্রীতম কিন্তু স্পষ্ট ভাবে জানাচ্ছেন, এমন কোনও উদ্দেশ্য তাঁর ছিল না। এই ছবির সঙ্গে ধর্মের কোনও সম্পর্ক নেই। তিনি বলেন, “যেভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে, তাতে আমি খুবই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছি। তাই সাইবার ক্রাইম থানাতে অভিযোগ দায়েরও করেছি।”কলকাতা পুলিশের এক আধিকারিক বলেন,‘‘অভিযোগ পেয়েছি। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’ কে বা কারা ওই ছবিটিকে ফোটোশপ করে বিকৃত করে সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে দিয়েছে, সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নাটক করছে ঐক্যফ্রন্ট

হাসপাতালে যেমন আছেন খালেদা

ইমরুলের ব্যাটে বঞ্চনার ‘জবাব’

অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের তাগিদ

মইনুলের বিরুদ্ধে দুই মামলা, জামিন

অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন উদ্বেগ প্রশমিত করতে পারে

দেশে ৩ কোটি মানুষ দরিদ্র এক কোটি হতদরিদ্র

আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জে ৫ যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ

স্টেট ডিপার্টমেন্টের সর্বোচ্চ সম্মাননা পেলেন বার্নিকাট

ভোটের হাওয়া ভোটারের চাওয়া

তরুণদের কাছে ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

আমীর খসরু কারাগারে

প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাতের পর তফসিল: ইসি সচিব

সড়কে সেই আগের চিত্র

পররাষ্ট্র দপ্তরের সর্বোচ্চ সম্মাননা পেলেন বার্নিকাট

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন কাল