ইডেন ছাত্রীসহ গ্রেপ্তার ৩

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৬ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৫
কোটা সংস্কার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ইডেন কলেজের ছাত্রী লুৎফুর নাহার লুমাকে (২২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার ভোরে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার ক্ষিদ্রচাপড়ির চর এলাকার দাদা বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওদিকে, রাজধানী থেকে আটক করা হয়েছে ইউল্যাব বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আহমাদ হোসাইন (১৯)কে। কামরাঙ্গীর চর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ওই এলাকার জামিয়া নূরীয়া মাদ্‌রাসার ছাত্র নাজমুস সাকিব (২৪)কে। এদিকে ফেসবুকে উস্কানির অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন্নাহার হলের সামনে থেকে আটক শিক্ষার্থী শেখ তাসনিম আফরোজ ইমিকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ও বেলকুচি থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে লুমাকে। লুমা ইডেন কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।
গতকাল এ তথ্য নিশ্চিত করেন সিআইডি’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসলাম উদ্দিন।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ও বেলকুচি থানা পুলিশের সদস্যরা ওই উপজেলার ক্ষিদ্রচাপড়িচর এলাকায় লুমার দাদার বাড়িতে অভিযান চালায়।
ওই সময় তিনি ঘুমন্ত ছিলেন। সে অবস্থায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ইতিপূর্বে রমনা থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে ৫৭ (২)/৬৬ ধারায় দায়েরকৃত মামলার আসামি তিনি। লুমার পরিবার গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী থানার বাঐখোলা গ্রামে থাকে ।
আটক অভিযানে অংশ নেয়া বেলকুচি থানার এসআই আমিনুল ইসলাম জানান, কোটা সংস্কার আন্দোলনের এই নেত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর থেকে আত্মগোপনে ছিলেন। ডিএমপি’র একটি দল তার অবস্থান জানার পর বুধবার ভোরে বেলকুচি উপজেলার দুর্গম চর ক্ষিদ্রচাপড়ির চরে থানা পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে অভিযান চালায়। এরপর তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. মাসুদুর রহমান মানবজমিনকে বলেন, ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে উস্কানিদাতাদের শনাক্ত করা হচ্ছে। যাদেরকে শনাক্ত করা হয়েছে তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ঢাবি ছাত্রী ইমির বিষয়ে তিনি বলেন, তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছিল। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়েও দেয়া হয়েছে। কোনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়নি।

এদিকে সিআইডি’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসলাম উদ্দিন জানিয়েছেন, প্রেপ্তার নাজমুস সাকিব ও আহমদ হোসাইনের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে পল্টন থানায় মামলা করা হয়েছে। নাজমুস সাকিবের বাবা জহির উদ্দিন বাবর। বাসা পূর্ব-রাজাবাজারে। আর হোসাইনের বাবা আতাউর রহমান। বাড়ি নোয়াখালীর কবিরহাটে।

তিনি আরো বলেন, সিআইডি কম্পিউটার ব্যবহার করে সামাজিক মাধ্যম তদারকি করে স্ক্রিনশট সংগ্রহ করে এবং অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার জন্য তদন্ত শুরু করে। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল ও আজ ঢাকা ও কামরাঙ্গীরচর থেকে এ দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে ‘ঢাকা পরিচ্ছন্নতা অভিযান’

৫৭ ধারায় গ্রেপ্তার চবি শিক্ষক

আড়াই বছরের শিশুকে ধর্ষণ

চুরির অভিযোগে পালাক্রমে ধর্ষণ

নিম্ম আদালতেও আমীর খসরুর জামিন

‘মিয়ানমারে হস্তক্ষেপের কোনোই অধিকার নেই জাতিসংঘের’

বাংলাদেশের ভিতর দিয়ে পানিপথ করিডোর নির্মাণ পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে ভারত

‘জনগণের কাছে ক্ষমা চাইলে আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঐক্য হতে পারে’

আদালতের প্রতি দুই আসামীর অনাস্থা একজনের জামিন বাতিল

২৭শে সেপ্টেম্বর বিএনপির জনসভার ঘোষণা

আপিলেও বৃটিশ যুবতীর জেল বহাল

বাংলাদেশের ইতিহাসে যেখানে মাশরাফিই প্রথম

বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাড়ি, আছে ৩টি হেলিপ্যাড, সিনেমা হল, ৬০০ কাজের লোক (ভিডিও)

‘সরকার উৎখাতে দুর্নীতিবাজরা জোট বেঁধেছে’

‘বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য’ টিকবে না

‘গাড়িপ্রস্তুতকারক প্রোটন সফল ছিল’