নড়াইলের মামলায় খালেদার জামিন

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০০
একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার অভিযোগে নড়াইলে দায়ের করা মানহানির মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তীকালিন জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট। খালেদা জিয়ার করা আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি কাশেফা হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল জামিনের এ আদেশ দেন। আদালতে খালেদার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কামরুল ইসলাম খান আসলাম। পরে কামরুল ইসলাম খান আসলাম বলেন, ‘নড়াইলের ওই মানহানির মামলায় বিচারিক আদালত খালেদা জিয়ার জামিন না-মঞ্জুর করেছিল। পরে জামিনের জন্য হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবীরা। হাইকোর্ট খালেদা জিয়াকে ৬ মাসের অন্তর্বর্তীকালিন জামিন দিয়েছেন।’ এর আগে এ মামলায় নড়াইলের জেলা ও দায়রা জজ আদালত গত ৫ই আগস্ট খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন না-মঞ্জুর করেন। পরে বিএনপির চেয়ারপারসনের জামিনের জন্য হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।


২০১৫ সালের ২১শে ডিসেম্বর রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের এক আলোচনা সভায় মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করায় এবং মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার অভিযোগে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ওই বছরের ২৪শে ডিসেম্বর নড়াইলের সংশ্লিষ্ট আদালতে এ মানহানির মামলা দায়ের করা হয়। ওই বক্তব্যের অভিযোগে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় আরো বেশ কিছু মামলা দায়ের করা হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদার জামিন ৩রা অক্টোবর পর্যন্ত বর্ধিত: এদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আগামী ৩রা অক্টোবর পর্যন্ত বর্ধিত করেছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে এ মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার আপিলের শুনানি ২রা অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আদালত। গতকাল পঞ্চদশ কার্যদিবসে শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আব্দুর রেজাক খান ও এ জে মোহাম্মদ আলী। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাজার বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার করা আপিল আগামী ৩১শে অক্টোবরের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে গত ৩১শে জুলাই আদেশ দেয় প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগ। প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ই ফেব্রুয়ারি এক রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর ও অন্য আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয় বিচারিক আদালত। রায়ের পর থেকে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় তিনি জামিন পেলেও অন্য মামলায় কারাগারে থাকায় তিনি মুক্তি পাচ্ছেন না।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০৮-১৪ ০০:২৩:৩৮

বাংলাদেশের যে কোন রাজনৈতিক দলের নেতাদের ক্ষমতায় থাকা না থাকা অবস্থায় যে কোন অবস্থাতেই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে উল্লেখিত ঘটনা বা সংখ্যা সংক্রান্ত কোন কিছুকে সন্দেহ করে বিরুপ মন্তব্য করা দেশের প্রতি বিশ্বাস ভঙ্গের শামিল । শত্রুদের পক্ষাবলম্বনের শামিল । *** এটা প্রতিষ্ঠিত সত্য মেনে নিতেই হবে*** তাই তা সমালোচনাপরিহার করা উচিত ।

আপনার মতামত দিন

অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায় সরকার

হাসপাতালের বেডে থেকেও ভাঙচুর মামলার আসামি

তিন দফা, এক কাতারে বিরোধী আইনজীবীরা

‘সেমিফাইনালে’ চনমনে বাংলাদেশ

সবার জন্য উন্মুক্ত মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার

ডাস্টবিনের ময়লাও খেয়েছি

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে রিটের শুনানি পহেলা অক্টোবর

খালেদা জিয়ার আন্দোলন এখন কারাগারে

সিলেট বিএনপির সেক্রেটারি আলী কারাগারে

পাঁচ লাখ শটগানের কার্টিজ প্রাণঘাতী, ধ্বংসের নির্দেশ

রূপগঞ্জে প্রসূতির ওপর হামলা, যমজ শিশুর মৃত্যু

বিএনপির সমাবেশের পর লিয়াজোঁ কমিটি

ঢাকা দখলের ঘোষণা ১৪ দলের

প্রেসিডেন্টের আশা, সব দল নির্বাচনে অংশ নিবে

বাংলাদেশের রাজীবকে ফেসবুকের ফেলোশিপ প্রদান

শেহজাদের সেঞ্চুরিতে ভারতের বিপক্ষে আফগানদের পুঁজি ২৫২