নারায়ণগঞ্জে দু’গ্রুপে টেঁটাযুদ্ধ, নিহত ১

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ১১ আগস্ট ২০১৮, শনিবার
নারায়ণগঞ্জে এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের টেঁটাযুদ্ধে জয়নাল আবেদীন  (৬০) নামে একজন মারা গেছে। সদর উপজেলার ফতুল্লার আকবর নগর এলাকায় রহিম হাজী ও সামেদ হাজীর সমর্থকদের মধ্যে ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে জয়নাল আবেদীনসহ ৮ জন আহত হয়। এরমধ্যে শুক্রবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। নিহত জয়নাল আবেদীন রহিম হাজী গ্রুপের সদস্য। এদিকে জয়নাল আবেদীন নিহত হওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শুক্রবার দুপুরে রহিম হাজীর লোকজন সামেদ আলী হাজীসহ তাদের লোকদের বাড়ি-ঘর ভাঙচুরসহ ব্যাপক তান্ডব চালিয়েছে। এসময় কয়েকটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এতে করে এলাকায় চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
স্থানীয়দের সূত্রমতে, বক্তাবলীর আকবরনগর এলাকায় প্রভাব বিস্তার নিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী ছামেদ আলী হাজী ও রহিম হাজী গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকবার দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। উভয়পক্ষ টেঁটা, বল্লম নিয়ে একে উপরের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। সংঘাতের পুরুষের সঙ্গে নারীরাও অংশ নেয়। এর ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার ফের দু-গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৮ থেকে ১০ জন টেঁটাবিদ্ধ হয়। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  নিহতের লাশ ঢাকা মেডিকেল হতে আসার পর পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে এবং অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। নিহত জয়নাল আবেদীন কেরানীগঞ্জ থানার উত্তর আকবরনগর এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সিলেট থেকে ধানের শীষের প্রচারণা শুরু

হামলা, সংঘর্ষ-বাধা

‘চোখ রাঙালে চোখ তুলে নেয়া হবে’

নির্বাচন কমিশন বিব্রত

আলোকচিত্রী থেকে কয়েদি

ডিসিদের রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ কেন অবৈধ নয়

ইআইইউ’র রিপোর্টে আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার পূর্বাভাস

সবার চোখ তৃতীয় বেঞ্চে

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ইসির বৈঠক আজ

অভিযোগ দিয়ে ফেরার পথে বিএনপি নেতা আটক

দুলু গ্রেপ্তার

পাবনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা খুন

এখন আর ভাষণে লাভ নেই, অ্যাকশনে যেতে হবে

ছাদ থেকে ফেলে বিএনপি নেতাকে হত্যা করেছে পুলিশ: রিজভী

ইসির সিদ্ধান্ত স্থগিত নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকবে অধিকার

জীবনে এমন নির্বাচন দেখিনি