অনলাইনে সন্তানকে বিক্রি করলেন মা

অনলাইন

| ১০ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার, ৬:১৬
৯ বছরের শিশু সন্তানকে অনলাইনে যৌন নির্যাতনকারীদের কাছে বিক্রি করার দায়ে এক জার্মান নারী ও তার সঙ্গীকে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত৷ তদন্তকারীরা বলছেন, তাঁদের দেখা সবচেয়ে ভয়াবহ শিশু নির্যাতনের ঘটনা এটি৷ বেরিন টি. নামের ৪৮ বছরের ওই নারীকে সাড়ে ১২ বছরের জেল দিয়েছে জার্মানির এক আদালত৷ ৩৯ বছর বয়সি ক্রিশ্চিয়ান এল. নামের সঙ্গীকে দেয়া হয়েছে ১২ বছরের কারাদণ্ড৷ তারা দু'জন মিলে তাদের ৯ বছরের ছেলেকে অর্থের বিনিময়ে অনলাইনেশিশু যৌন নির্যাতনকারীদেরহাতে তুলে দিতেন৷
ফ্রাইবুর্গ শহরের কাছে সটাউফেন নামক জায়গায় এক যৌন নির্যাতন চক্রের মূল হোতা ছিলেন তারা৷
তদন্তকারীরা বলছেন শুধু অন্যদের হাতে তুলে দেয়া না, এই দু'জন নিজেরাই তাদের সন্তানকে যৌন নির্যাতন করতেন৷
বেরিন টি. ও তার সঙ্গীর বিরুদ্ধে ৬০ ধরনের নির্যাতনের অভিযোগ আনা হয়৷ এর মধ্যে জোর করে যৌনকর্মে বাধ্য করা, মৌখিক নির্যাতন, ধর্ষণও আছে৷
তদন্তকারীরা বলছেন, অনলাইনে যোগাযোগ হওয়া বেশ কিছু জার্মান ও বিদেশি নাগরিককে তারা ৯ বছরের এই শিশুকে ধর্ষণ করার সুযোগ করে দিয়েছেন৷ দুই বছর ধরে এই কাজ করে তারা হাজার হাজার ইউরো উপার্যন করেছেন৷

এ ধরনের অনেক নির্যাতনের দৃশ্য রেকর্ড করে ভিডিও অনলাইনে বিক্রি করা হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে ছেলেটিকে মুখোশ পড়িয়ে হাত-পা বেঁধে রাখা হয়েছে৷
অজ্ঞাত এক ফোনে তথ্য পেয়ে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে পুলিশ এই চক্রকে সনাক্ত করে৷ বেরিন টি. ও তার সঙ্গীসহ মোট আটজনকে এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে, যাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের শিশু নির্যাতনের আরো অভিযোগ রয়েছে৷
জার্মানির তিন নাগরিক, সুইজারল্যান্ডের একজন এবং স্পেনের এক নাগরিককে এই মামলায় ৮ থেকে ১০ বছরের জেল দেয়া হয়েছে৷
প্রসিকিউটররা অবশ্য শিশুটির মায়ের সাড়ে ১৪ বছর ও তার সঙ্গীর সাড়ে ১৩ বছরের জেল চেয়েছিলেন৷



সূত্র- dw

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাজপেয়ীকে শেষ বিদায়

তিন দিনের রিমান্ডে ফারিয়া

ফ্যাশন শোতে হাঁটলেন সোনাগাছির বারবণিতারা

বাজপেয়ীর শেষকৃত্যে যোগ দিতে এসেছেন প্রতিবেশি দেশের প্রতিনিধিরা

বিশ্ববিদ্যালয়ের শ'খানেক শিক্ষার্থী যে কারণে আটক

নির্বাচনকালীন সরকারে বিএনপির থাকার সুযোগ নেই: কাদের

নিরাপদ বাংলাদেশের জন্য আপনারা এগিয়ে আসুনঃ ফখরুল

জিয়া পরিবারের দুষ্কর্মের মুখোশ উন্মোচন করা জরুরী: তথ্যমন্ত্রী

ঈদের আগেই গ্রেপ্তার শিক্ষার্থীদের মুক্তি দাবি

কলকাতায় বাংলাদেশি ও ভারতীয় পণ্যের স্থায়ী প্রদর্শন কেন্দ্র হচ্ছে

আন্দোলনের মুখে জাবির সান্ধ্যকালীন কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত

ফেসবুকে অশ্লীল ছবি: চীন ফেরত স্ত্রীর হাতে স্বামী খুন

শিবির সন্দেহে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে পুলিশে দিল ছাত্রলীগ

তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে নারী ব্যবসায়ীকে আটক

আত্মহত্যার আগে ফেসবুকে যা লিখেছেন ঢাবি শিক্ষার্থী মুশফিক