বিশেষ ক্ষমতা আইনের বিলুপ্ত ধারায় মামলা না নেয়ার নির্দেশ

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ জুলাই ২০১৮, সোমবার, ৬:১১ | সর্বশেষ আপডেট: ৬:১৩
বিলুপ্ত হওয়া ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৬ (২) ধারায় মামলা গ্রহণ না করতে পুলিশের মহাপরিদর্শককে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও  বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ সংক্রান্ত কয়েকটি মামলায় জামিন শুনানিকালে স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন। আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংশ্লিষ্ট আদালতের সহকারী অ্যাটর্নি  জেনারেল ইউসুফ মাহমুদ মোর্শেদ। আদালত আদেশে বলেছেন, অস্তিত্বহীন আইন দিয়ে যেন জনগণকে গ্রেপ্তার  বা হয়রানি না করা হয়, সে জন্য পুলিশের মহাপরিদর্শককে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। ইউসুফ মাহমুদ মোর্শেদ বলেন, আইনের এ ধারাটি  যেহেতু বাতিল ও এ আইনের কোনো অস্তিত্ব নেই তাই এ আইনের মামলা নেয়া বেআইনি।

এ আইনের বিবরণে জানা যায়, ১৯৯০ সালে হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ সরকারের পরে বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ একটি অধ্যাদেশ দিয়ে চুয়াত্তরের আইনের ১৬, ১৭ ও ১৮ ধারা বাতিল করেন। যা ১৯৯১ সালে বিএনপি সংসদে পাস করেছিল। পরে ২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে জরুরি অবস্থার মধ্যে ‘ক্ষতিকর ও ধ্বংসাত্মক’ (প্রধানত সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী) কাজ থেকে বিরত রাখতে ১৬ ধারাটি পুনরুজ্জীবিত  করা হয়।
২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর এই অধ্যাদেশসহ ১২২টি অধ্যাদেশ সংসদের প্রথম অধিবেশনে পেশ করা হলেও, তা পাস হয়নি। ফলে বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৬, ১৭ ও ১৮ ধারা  বাতিল অবস্থায় থেকে যায়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছাড়লেন রেজা কিবরিয়া

হামলার বিচার চেয়ে লতিফ সিদ্দিকীর অবস্থান

নির্বাচনের আগে চারটি জনসভা করবেন শেখ হাসিনা

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেননি

নির্বাচন না হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে

অভিযোগের প্রতিকার নেই ইসিতে

নির্বাচনে বলপ্রয়োগ গ্রহণযোগ্য হবে না

পরিস্থিতি নো ইলেকশনের দিকেই যাচ্ছে

হাসিনা না খালেদা ভারতের উভয় সংকট

ঐক্যফ্রন্টের শোভাযাত্রায় জনতার ঢল

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার আজ

নির্বাচনকে সামনে রেখে ভারত থেকে আসছে অস্ত্র

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেন নি

বিজয় দিবসে দেশ গড়ার দৃপ্ত শপথ

সাতক্ষীরায় ধানের শীষ প্রার্থী নজরুল গ্রেপ্তার

'ধানের শীষে ভোট মানেই ৩০ লাখ শহীদের হত্যাকারীদের পক্ষে ভোট'