ভিআইপি সড়কে খানাখন্দ

শেষের পাতা

হাফিজ মুহাম্মদ | ২১ জুলাই ২০১৮, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০১
ক্ষত-বিক্ষত সড়ক। কার্পেটিং উঠে গেছে। কয়েক হাত পরপর সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। সামান্য বৃষ্টিতে এসব গর্তে পানি জমে পরিণত হয় মরণফাঁদে। এমন বেহাল দশা রাজধানীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সড়ক কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ-এর কাওরান বাজার এলাকা। দেশের অন্যতম পাঁচ তারকা হোটেল সোনারগাঁও এখানেই অবস্থিত।
যেখানে প্রায় সময় বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলন, সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা সফরে এলে এ হোটেলেই অবস্থান করেন। এ সড়কের কাওরান বাজার সার্ক ফোয়ারার মোড় থেকে ফার্মগেটের দিকে যেতে এটিএন নিউজ পর্যন্ত অংশে রয়েছে একাধিক গভীর গর্ত। এছাড়া ছোট-বড় খানাখন্দক তো রয়েছেই। এ সড়কে রয়েছে বিভাজক এবং এর দুই পাশেই রয়েছে বাতি। যেগুলো রাতে জ্বলার কথা তা দিনের বেলায়ও অনেক সময় জ্বলে থাকে। এছাড়া সড়কের বিভিন্ন অংশে ডিজিটাল বিলবোর্ডে প্রচার হচ্ছে উন্নয়নের বিজ্ঞাপন। রাস্তার মাঝে রোড ডিভাইডারের উপরে পিলার ছেয়ে আছে ব্যানার-ফেস্টুনে।

সরজমিন দেখা যায়, সার্ক ফোয়ারার মোড়টি ব্যানার-ফেস্টুন দিয়ে ঢাকা। এর এক পাশে রয়েছে হোটেল সোনারগাঁও। অন্যপাশে ডিজিটাল বিলবোর্ড। যেখান থেকে সার্বক্ষণিক বিজ্ঞাপন দেয়া হচ্ছে। অন্যপাশে বসুন্ধরা শপিংমলে প্রবেশের সড়ক। ঠিক এর উল্টো দিকেই তিতাস ভবনের সামনের সড়কের অবস্থা এবড়োখেবড়ো। এখানে সড়ক ভেঙে একাধিক গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। তার উপরে আস্ত ইট দিয়ে ডেকে দেয়া হয়েছে। উপরের পাকা অংশ উঠে সলিং বের হয়ে গেছে অনেক জায়গায়। এখানে ফুটপাথের মাঝেও কয়েকটি বড় বড় গর্ত। এ স্থান থেকে একটু সামনে যেতেই প্রজাপতি গুহার পাশে দেখা যায় কয়েকটি বড় বড় গর্তে ময়লা-আবর্জনা আর পানিতে ডুবে রয়েছে। যেখান থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। একটু বৃষ্টি হলেই পানিতে ডুবে যায় এ অংশ। এখান থেকে আরেকটু সামনে এগোলে সড়কের মধ্যেই চোখে পড়ে একটি বিশাল গর্ত। তার পাশে এখনো পড়ে রয়েছে মেট্রোরেলের ব্যারিকেড দেয়ার ডামি। আর গর্তটির চারপাশে পানি জমে রয়েছে। তবে কাছ থেকেই এটি দেখে  বোঝা যাচ্ছে এর গভীরতা দুই তিন ফিট। শুকনো সময় এ গর্তটি চোখে পড়লেও বৃষ্টির সময় এটি থাকে পানির নিচে। তাই যেকোনো সময় অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এখান থেকে আরেকটু সামনে যেতেই সিএ ভবনের সামনের সড়কের অবস্থা ভাঙাচোরা। এখানেও সড়কের ভাঙা অংশে ইট দিয়ে ডেকে দেয়া হয়েছে। তারপরেও রয়েছে একাধিক গর্ত।

অন্যদিকে ওয়াসা ভবন থেকে এটিএন নিউজ চ্যানেল ভবন পর্যন্ত সড়কেও রয়েছে ছোট-বড় একাধিক গর্ত। যেগুলো বৃষ্টি হলেই বিপদ ডেকে আনে যানবাহন এবং পথচারীদের জন্য। অনেক সময় ছোট যানবাহন চলার সময় হঠাৎ আটকে যায়। সড়কের উল্টো পাশের অবস্থা ঠিক এ পাশের মতো না হলেও ওই পাশেও অনেক জায়গা ভাঙাচোরা রয়েছে। সার্ক ফোয়ারা থেকে হাতের বাম পাশ দিয়ে ফার্মগেটের দিকে হাটতে প্রজাপতি গুহা পর্যন্ত নেই কোনো ফুটপাথ। এখন থেকে পথচারীদের সড়ক ধরেই হাঁটতে হয়। আর প্রজাপতি গুহার সম্মুখভাগের সড়কের অংশ রয়েছে ভাঙাচোরা। এখান থেকে সামনের দিকে যেতে সড়ক এবং ফুটপাথেই দেখা যায় গাড়ি পার্কিং করা। তবে এ অংশে সড়কের অবস্থা কিছুটা ভালো রয়েছে। আর কাওরান বাজর মোড় থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত সড়ক বিভাজকের মাঝের তারকাঁটার বেড়া রয়েছে ছেঁড়া। ব্যস্ততম এ সড়কের সব জায়গা থেকেই লোকজন পারাপার হচ্ছে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে।
রাজধানীর এ ভিআইপি সড়কের অবস্থা বেহাল হলেও সেদিকে কারো খেয়াল নেই। তারা রয়েছেন সড়কের উপরের অংশ সৌন্দর্য বর্ধনে। সড়কের উপরের ভাঙাচোরা অংশ ঠিকঠাকভাবে মেরামত না করে তারা দায়সারাভাবে ইট দিয়ে ঢেকে দিচ্ছেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০৭-২০ ২৩:৩১:০৮

সড়ক মন্ত্রী তার দায়িত্ব উপেক্ষা করে যদি রাজনীতি নিয়ে সব সময় ব্যস্ত থাকেন তবে সড়কের হাল এর চেয়ে ভাল আশা করা যায় না। তদুপরি রয়েছে নিম্ন মানের কাজের মাধ্যমে টাকা লুটপাটের ধুমধাম ।

আপনার মতামত দিন

আইসিইউতে রাজধানী

ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টির চক্রান্ত করছে বিএনপি

ওয়ান ইলেভেনের বেনিফিশিয়ারি আওয়ামী লীগ

যেভাবে ঢাকার মেরামত সম্ভব

গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার ফারিয়া রিমান্ডে

৪০ লাখ বাংলাভাষী হবে বৃহত্তম রাষ্ট্রবিহীন জনগোষ্ঠী!

ইমরান খানই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

মওদুদের বাড়ি ঘেরাও করে রাখায় মির্জা ফখরুলের নিন্দা

বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য ও আন্দোলনের খসড়া রূপরেখা তৈরি

আত্মমর্যাদা ও মানবাধিকারের স্বপক্ষে একক কণ্ঠস্বর

ঈদের আগে ছাত্রদের মুক্তি দিন: ড. কামাল

‘কার কাছে গেলে ছেলেকে ফেরত পাবো’

বাজপেয়ীকে শেষ বিদায়

পশুবোঝাই ট্রাক ‘ছিনতাই’ শঙ্কায় সিলেটের বেপারিরা

ভোগান্তি মাথায় নিয়ে ঈদযাত্রা

মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ