অবহেলায় নষ্ট সোয়া কোটি টাকার ভ্যাকসিন

বাংলারজমিন

ফরিদ উদ্দিন আহমেদ | ১৯ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫২
প্রতীকী ছবি
সরকারের কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমএসডি) কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর দায়িত্বে চরম অবহেলায় সোয়া কোটি টাকার জীবনরক্ষাকারী ভ্যাকসিন নষ্ট হয়ে গেছে। কোল্ড চেম্বারের তাপামাত্রা বৃদ্ধির কারণে ভ্যাকসিন নষ্ট হলেও ঘটনা আড়াল করতে পকেট কমিটির মাধ্যমে বৈদ্যুতিক ত্রুটিকে দায়ী করেছে প্রতিষ্ঠানটি। একই সঙ্গে সোয়া কোটি টাকার এই ভ্যাকসিন সিএমএসডি’র হিসাব থেকে বাদ দেয়ার জন্য কৌশলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অনুমোদন নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গত নভেম্বরে কোল্ড চেম্বার মেরামতের আবেদনে করা হয়। তাতে পদক্ষেপ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। চলে গড়িমসি। এটি মেরামতের ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তিন মাস পরে ফেব্রুয়ারিতে কেন মেরামতের উদ্যোগ গ্রহণ করা হলো- তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। সিএমএসডি’র সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।
কোল্ড চেম্বারের তাপমাত্রা মনিটরিংয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গাফিলতির কারণে সোয়া কোটি টাকার জীবনরক্ষাকারী ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে পুনরায় খতিয়ে দেখা দরকার। সূত্র মতে, কোল্ড চেম্বারে রক্ষিত ভ্যাকসিনগুলো মাইনাস ২ থেকে ৮ সেন্টিগ্রেট তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়। ভ্যাকসিন নষ্টের ঘটনা ঘটার প্রায় তিন মাস আগে ২০১৭ সালের ২০শে নভেম্বর ভ্যাকসিন ও ইনজেকশন শাখার স্টোর ইনচার্জ স্টেনো-টাইপিস্ট কবির আহমেদ কোল্ড চেম্বার মেরামতের জন্য পরিচালকের কাছে আবেদন করেন। কিন্তু ৩ মাস পর ২৫শে ফেব্রুয়ারিতে ভ্যাকসিন নষ্ট হওয়ার পর মেরামতে হাত দেয়া হয়। ভ্যাকসিন নষ্টের সময়ে এই দায়িত্বে ছিলেন সহকারী পরিচালক (এসঅ্যান্ডডি) ডা. প্রভাত কুমার নাথ। তার সার্বিক তদারকিতে স্টোরের মালামাল সংরক্ষণ ও বিতরণ করা হয়। অথচ তাপমাত্রা বৃদ্ধি এবং কোল্ড চেম্বার মেরামতের আবেদনের পরও এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় সোয়া কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় সম্পদ গচ্চা গেল।
সূত্রে জানায়, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে স্বাস্থ্য বিভাগীয় ওষুধ, ভ্যাকসিন, মেডিকেল যন্ত্রপাতি ক্রয়, মজুদ, রক্ষণাবেক্ষণ ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমএসডি) ৩নং কোল্ড চেম্বারে রক্ষিত ১০ হাজার ৬৪৪ ভায়াল ইঞ্জেকশন এনটি র‌্যাবিস ভ্যাকসিন এবং ১১ হাজার ৬৭১ ভায়াল ইঞ্জেকশন মেনিঙ্কোকোকাল মেনিনজাইটিস ভ্যাকসিন নষ্ট হওয়ার বিষয়টি নজরে আসে। নষ্ট কোল্ড চেম্বার বিলম্বে মেরামতের সময় বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। পরে ভ্যাকসিন নষ্টের প্রকৃত কারণ নিরূপণের জন্য চারটি কার্য-পরিধি দিয়ে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সিএমএসডি’র উপ-পরিচালক (সিএমএসডি) ডা. কল্যাণ মিত্রকে সভাপতি, সংযুক্ত মেডিকেল ইঞ্জিনিয়ার (ইকুইপমেন্ট) বেলাল আহমেদকে সদস্য ও সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) প্রফুল্ল কুমার সাহাকে সদস্য সচিব করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এক্ষেত্রে সিএমএসডি’র একাধিক কর্মকর্তা এই প্রতিবেদককে অভিযোগ করেছেন, ভ্যাকসিন নষ্ট হয়ে গেছে বুঝতে পেরে কারণ অনুসন্ধানে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি পকেট তদন্ত কমিটি করা হয়। যে কমিটি পরিচালকের কাছে তাদের প্রতিবেদনে ভ্যাকসিন নষ্টের পেছনে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়িত্ব অবহেলাকে পাশ কাটিয়ে বৈদ্যুতিক ত্রুটিকে দায়ী করে তিনটি সুপারিশ পেশ করে। সুপারিশে উল্লেখ করা হয়- প্লান্টটি পুরনো তাই নতুন প্লান্ট স্থাপন করে নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ, দায়িত্বরতদের সঠিকভাবে দায়িত্বপালন-পর্যবেক্ষণ ও ত্রুটি দেখা দিলে তাৎক্ষণিক অবহিত করা এবং নষ্ট ভ্যাকসিন ধ্বংস করার কথা বলা হয়। তদন্ত কমিটির সুপারিশে সহমত পোষণ করে সিএমএসডি’র সোয়া কোটি টাকার নষ্ট ভ্যাকসিন ধ্বংস করার নথি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের অনুমোদনের জন্য পাঠান কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমোদনের পর এক চিঠিতে স্টক লেসার থেকে এক কোটি ২৫ লাখ টাকার নষ্ট ভ্যাকসিন বাদ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে বলে সূত্র বলছে।
এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম মানবজমিনকে বলেন, কোনো দায়িত্ব অবহেলা হয়নি। যন্ত্রপাতি নষ্ট না হলে কেন মেরামত করবো। টাইম টু টাইম মেইনটেইন্স করা হয়। তিনি বলেন, উদ্দেশ্যেমূলকভাবে এগুলো করা হচ্ছে। উদ্দেশ্যসাধন হয়নি বলে এগুলো ছড়াচ্ছে। ভেতরে অনেক কিছু আছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে সবকিছু করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Saiful

২০১৮-০৭-১৯ ১০:২৭:০৩

সোয়া কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় সম্পদ গচ্চা গেল ?????????? স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাসিক বেতন থেকে এটি কেটে নেওয়া উচিত, আবার এই নষ্ট ইঞ্জেকশন কাউকে পুস করতেছে কিনা সেইটি ও দেখা উচিত,

আপনার মতামত দিন

নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছাড়লেন রেজা কিবরিয়া

হামলার বিচার চেয়ে লতিফ সিদ্দিকীর অবস্থান

নির্বাচনের আগে চারটি জনসভা করবেন শেখ হাসিনা

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেননি

নির্বাচন না হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে

অভিযোগের প্রতিকার নেই ইসিতে

নির্বাচনে বলপ্রয়োগ গ্রহণযোগ্য হবে না

পরিস্থিতি নো ইলেকশনের দিকেই যাচ্ছে

হাসিনা না খালেদা ভারতের উভয় সংকট

ঐক্যফ্রন্টের শোভাযাত্রায় জনতার ঢল

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার আজ

নির্বাচনকে সামনে রেখে ভারত থেকে আসছে অস্ত্র

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেন নি

বিজয় দিবসে দেশ গড়ার দৃপ্ত শপথ

সাতক্ষীরায় ধানের শীষ প্রার্থী নজরুল গ্রেপ্তার

'ধানের শীষে ভোট মানেই ৩০ লাখ শহীদের হত্যাকারীদের পক্ষে ভোট'