মোবাইলে পর্ন দেখে...

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৭ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার, ২:২০
মর্মান্তিক এক ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তরাখণ্ড। মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি দেখে আট বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে পাঁচ নাবালকের বিরুদ্ধে। উত্তরাখণ্ডের দেহরাদূনের বিকাশনগর এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। অভিযুক্তদের প্রত্যেকের বয়স নয় থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। বাড়ির বাইরে খেলা করছিল মেয়েটি। সেখান থেকেই চকোলেটের লোভ দেখিয়ে ওই নাবালিকাকে এক বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে যায় ওই পাঁচ অভিযুক্ত। বাড়িতে তখন বড়রা কেউ ছিলেন না। এর পর সেখানেই ধর্ষণ করা হয় নাবালিকাকে।
ওই বাড়ির এক বাসিন্দাকে ফিরে আসতে দেখে নাবালিকাকে বাড়ি পৌঁছে দেয় তারা।

বাচ্চা মেয়েটি বাড়িতে ফিরে এসে একেবারে চুপ করে গিয়েছিল, তা থেকেই সন্দেহ হয় মায়ের। মেয়েটিকে জিজ্ঞাসা করলে সে ঘটনার কথা জানায়। এরপরই নাবালিকার পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয় স্থানীয় সাহসপুর থানায়। পুলিশ অভিযুক্তদের নামে পকসো আইনে মামলা রুজু করেছে। জুভেনাইল আদালতে পেশ করা হয়েছে পাঁচ নাবালককে।

পুলিশ জানিয়েছে, এদের প্রত্যেকেই স্কুল পড়ুয়া। বাড়িতে দাদার মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি দেখে বন্ধুদের সঙ্গে নাবালিকাকে ধর্ষণ করার পরিকল্পনা করেছিল এক অভিযুক্ত। পঞ্চম শ্রেণির ওই নাবালিকার বাড়িতে কেউ না থাকায় সেই সুযোগই নিতে চেয়েছিল তারা। পরিকল্পনা করে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করেন সাহসপুরের ইনস্পেক্টর। ধৃতদের থেকে একটি মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। সেই ফোনে পর্নোগ্রাফিক ভিডিয়ো মিলেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছাড়লেন রেজা কিবরিয়া

হামলার বিচার চেয়ে লতিফ সিদ্দিকীর অবস্থান

নির্বাচনের আগে চারটি জনসভা করবেন শেখ হাসিনা

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেননি

নির্বাচন না হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে

অভিযোগের প্রতিকার নেই ইসিতে

নির্বাচনে বলপ্রয়োগ গ্রহণযোগ্য হবে না

পরিস্থিতি নো ইলেকশনের দিকেই যাচ্ছে

হাসিনা না খালেদা ভারতের উভয় সংকট

ঐক্যফ্রন্টের শোভাযাত্রায় জনতার ঢল

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার আজ

নির্বাচনকে সামনে রেখে ভারত থেকে আসছে অস্ত্র

ভারতীয় নেতারা বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেন নি

বিজয় দিবসে দেশ গড়ার দৃপ্ত শপথ

সাতক্ষীরায় ধানের শীষ প্রার্থী নজরুল গ্রেপ্তার

'ধানের শীষে ভোট মানেই ৩০ লাখ শহীদের হত্যাকারীদের পক্ষে ভোট'