কোটা সংস্কার আন্দোলন করায় জাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

শেষের পাতা

জাবি সংবাদদাতা | ১৬ জুলাই ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:১২
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনের পক্ষে যুক্ত থাকায় এক ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি দেয়ার  অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা কোটার ভর্তি হওয়া ৪ ছাত্রের বিরুদ্ধে। রোববার বিকালে ভুক্তভোগী ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর ধর্ষণের হুমকিদাতাদের শাস্তি ও অভিযুক্তদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে।

অভিযোগপত্রে হুমকির শিকার ছাত্রী উল্লেখ করেন, আমি কোটা সংস্কার আন্দোলনের পক্ষে সোচ্চার আছি। তাই কোটা সংস্কারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া একটি চক্র সংঘবদ্ধভাবে আমার চরিত্র হরণের জন্য ধর্ষণের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুধু ধর্ষণের হুমকিই নয় তারা আমার পরিবার নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করে যাচ্ছে।’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিযোগকারী ছাত্রীকে নিয়ে করা বেশ কিছু আপত্তিকর মন্তব্যের স্কিনশট এই প্রতিবেদকের হাতে রয়েছে।

অভিযোগপত্রে এই চক্রের নেতৃত্বদানকারী হামজা রহমান অন্তরের (নাটক ও নাট্যতত্ত্ব-৪১) নাম উল্লেখ করেন। সে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি। তার সহযোগী হিসেবে রয়েছে- ইশকাত হারুন আকিব (বাংলা-৪৬), জাহিদ হাসান ইমন (আইআইটি-৪৬, ), মাসুদ রানা (মাইক্রোবায়োলজি-৩৯) এবং রনি ভৌমিক (ফেসবুক অনুসারে, তবে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি)। এরা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জাড়িত ও কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিরোধী।

ওই ছাত্রী আরো উল্লেখ করেন, এই চক্রটি আমকে প্রস্টিটিউট বানানোর জন্য পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তারা আমাকে বারবার উস্কানি দিয়ে যাচ্ছে এবং বাজে মন্তব্য রটাচ্ছে।’ ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী নিজের সম্ভ্রম ও জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে উল্লেখ করে অভিযুক্তদের বহিষ্কার ও ক্যাম্পস থেকে বিতাড়ণের দাবি জানিয়েছেন।
এর আগে এক ছাত্রীকে হয়রানির অভিযোগে হামজা রহমান অন্তরকে ৬ মাসের বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এছাড়া হল ক্যান্টিনে চাঁদা দাবিসহ ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে একালায় নানান অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিকদার জুলকারনাইন বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। আমরা ইতিমধ্যেই তদন্তের কাজ শুরু করেছি।

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে একাধিকবার ফোন দিলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি। ’ এ বিষয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্য মঞ্চের মুখপাত্র ও দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বলেন, কোটা নিয়ে একজন ছাত্রী মত প্রকাশ করছে, এটা তার ব্যক্তি স্বাধীনতার প্রশ্ন। ছাত্রলীগের এখানে বাধা দেয়া, ধর্ষণের হুমকি দেয়া এটা গুরুতর অপরাধ। এটা স্বাধীন দেশে মত প্রকাশের উপর ফৌজদারি অপরাধ। ফৌজদারি অপরাধে আমি এর শাস্তি চাইছি। অভিযুক্ত হামজা রহমান অন্তর বলেন, এসব আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার। আমি কাউকে ধর্ষণের হুমকি দিইনি। এই ধরনের প্রমাণ কেউ দেখাতে পারবে না।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Zahid

২০১৮-০৭-১৬ ১৫:৪৮:৫৬

বঙ্গবন্ধুর অাদর্শ সৈনিক এবং জাতির গর্ব মুক্তিযুদ্ধার সন্তানেরা যদি এ রকম আচারন করে তাহলে দেশ স্বাধীন করা কি দরকার ছিল?

বাহাউদ্দিন বাবলু

২০১৮-০৭-১৫ ১৯:৩৬:১৭

যে সংগঠনের নেতারা ধর্ষণের সেঞ্চুরি উযযাপন করে সে সংগঠনেরর জুনিয়র নেতাদের কাছ থেকে এ রকম হুমকি অমুলক নয়।

আপনার মতামত দিন

খালেদা জিয়াসহ ৫ জনকে প্রাথমিক মনোনয়ন বিএনপির

আজও ক্ষতিপূরণ দেয়নি গ্রিনলাইন, তীব্র ক্ষোভ হাইকোর্টের

শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ-মুসলিম রক্তাক্ত পরিণতির আশঙ্কা ভারতের

ভারতে শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা, কে বসবেন দিল্লির মসনদে?

যৌনতা কমছে দেশে দেশে

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু, উপচেপড়া ভিড় কমলাপুরে

বাংলাদেশে আইএসের নেটওয়ার্কে ঘনিষ্ঠভাবে নজরদারি করছে ভারত

হুয়াওয়ে সংকটের আদ্যোপান্ত

‘চলচ্চিত্রের সময়টা এখন মোটেও ভালো যাচ্ছে না’

বাংলাদেশের খ্যাতিমান চিরকুমাররা!

টাইগারদের জার্সি বিক্রিতে সিন্ডিকেট

৮০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশের একাংশ ডুবে যাবে সাগরে!

পাকিস্তানিদের জন্য ভিসা বন্ধ হয়নি, তবে...

আগের বিজ্ঞপ্তি স্পষ্ট করলো সুপ্রিম কোর্ট

কেন আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন ছাত্রলীগ নেত্রী

রাজধানীতে ভয়ঙ্কর ‘গাড়ি পার্টি’