জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা

খালেদার আপিল শুনানি শুরু, ১৯শে জুলাই পর্যন্ত জামিন বৃদ্ধি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ জুলাই ২০১৮, শুক্রবার
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় কারাদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার করা আপিলের  শুনানি শুরু হয়েছে। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে গতকাল এ শুনানি শুরু হয়। প্রথম  দিনের শুনানি শেষে আদালত রোববার পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেন। একই   সঙ্গে বিএনপির চেয়ারপারসনের জামিন ১৯শে জুলাই পর্যন্ত বর্ধিত করেন আদালত। গতকাল  বেলা ১১টার দিকে শুনানি শুরু হয়। খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী আবদুর রেজাক খান, এ জে মোহাম্মদ আলী। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী মওদুদ আহমদ, জয়নুল আবেদীন, মাহবুব উদ্দিন খোকন, আমিনুল ইসলাম, একেএম এহসানুর রহমান প্রমুখ। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান ও মোশাররফ হোসেন কাজল।
রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহমেদ। গতকাল আবদুর রেজাক খান এই মামলার এজাহার থেকে পড়ে শোনান। এছাড়া মামলার চার্জশিট থেকে পড়ে শোনান খালেদা জিয়ার অন্য আইনজীবী এজে মোহাম্মদ  আলী। আপিল শুনানি শুরুর আগে এজে মোহাম্মদ আলী আদালতের কাছে সম্পূরক পেপারবুকের আবেদন করেন। গতকাল শুনানির পর বিএনপির চেয়ারপারসনের আইনজীবী মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আজকেই (বৃহস্পতিবার) শেষ হয়েছে। আদালত জামিনের মেয়াদ ১৯শে জুলাই পর্যন্ত বর্ধিত করেছেন।’
এদিকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আপিল শুনানি ৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে আপিল বিভাগের দেয়া আদেশ পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের করা আবেদনটি স্টা্যন্ডওভার রেখেছেন আপিল বিভাগ। তবে, ওই সময়ের (৩১শে জুলাই) মধ্যে নিষ্পত্তি না হলে  সময়ের আবেদন বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত। সে পর্যন্ত আবেদনটি স্ট্যান্ডওভার রাখা হয়েছে। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত চার বিচারপতির আপিল বিভাগ গতকাল সকালে এ আদেশ দেন। আপিল নিষ্পত্তিতে সময়ের বাধ্যবাধকতার বিষয়টি পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে গত ২৫শে জুন আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। ৯ই জুলাই এ সংক্রান্তে শুনানি শেষ হয়। গতকাল আদেশের পর খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, আদালত এই রিভিউ স্ট্যান্ডওভার (মুলতবি) রেখেছেন। আদালত আদেশে হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু করতে বলেছেন। ৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে যদি শেষ না হয় তাহলে পরবর্তীতে আপিল বিভাগে এলে সেটি বিবেচনা করা হবে বলে আদালত আদেশে বলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের এখন সুযোগ রয়েছে যে, ৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে যদি সমাপ্ত না হয় তাহলে এই আদালত (আপিল বিভাগ) বিষয়টি বিবেচনা করবেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে সমাপ্ত করতে যে বাধ্যবাধকতা ছিল আজকের (গতকাল) এই আদেশে সেই বাধ্যবাধ্যকতা থাকছে না।’ সে ক্ষেত্রে সময়ের আবেদন করা হবে কি না- এমন প্রশ্নে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘সেটি পরে, প্রয়োজন হলে।’ তিনি আরো বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকার চাচ্ছে কোনোরকমে খালেদা জিয়ার সাজা বহাল রাখতে। কিন্তু আমরা চাচ্ছি এই মামলাকে স্বাভাবিক গতিতে শুনানি করতে। প্রত্যেকটি জিনিস আমরা আদালতে তুলে ধরবো। সেজন্য হয়তো সময় লাগতেই পারে।’ তিনি বলেন, ‘এখানে দুদক এবং সরকার একাকার হয়ে খালেদা জিয়ার সাজা বাড়ানোর জন্য পিটিশন দিয়েছে। কিন্তু এই আইনে এটি চলে না। তাই রিভিশনটি যেহেতু চলে না এর উপরও শুনানির প্রয়োজন রয়েছে।’    
গত ৮ই ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়ে বেগম খালেদা জিয়াকে ৫ বছর ও অন্য আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত।  পরে আইনজীবীদের মাধ্যমে সাজা থেকে খালাস এবং জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন তিনি। গত ১২ই মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের দেয়া জামিনের আদেশ গত ১৬ই মে এক আদেশে বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। পাশাপাশি খালেদা জিয়ার করা আপিল ৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তির আদেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নিশানের চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার

বিএনপি নির্বাচন বানচাল করতে চায়: কাদের

গণফোরামে যোগ দিলেন সাবেক ১০ সেনা কর্মকর্তা

খালেদা জিয়ার যথাযথ চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

‘তারেক রহমানের বিষয়ে ইসির করণীয় নেই’

আমজাদ হোসেনের শারীরিক অবস্থার অবনতি

দল ও জোটের মনোনয়ন প্রক্রিয়ার ব্যাখ্যা চেয়ে ইসিকে বিএনপির চিঠি

'নির্বাচনী হলফনামায় ভুল তথ্য দিলে ব্যবস্থা নেবে দুদক'

‘ভালো প্রার্থীদের জামিন না দেয়ার নতুন কৌশল নিয়েছে সরকার’

নির্বাচনের ইশতেহার প্রস্তুত করছে বিএনপি: আমীর খসরু

রোহিঙ্গা ইস্যুতে আসিয়ানের পরবর্তী পদক্ষেপ কি?

প্রতি বছর দেয়া হবে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা সাজা স্থগিত চেয়ে খালেদার আপিল

নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে নিয়মিত আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে ইইউ, অংশগ্রহণমূলক ও স্বচ্ছতার প্রত্যাশা

দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন যেনো প্রভাবিত না হয়

লক্ষ্য ক্রাউন প্রিন্সকে রক্ষা করা!