রাসিক নির্বাচন

দুই ওসির প্রত্যাহার চান বুলবুল

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে | ১২ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৫:১৬ | সর্বশেষ আপডেট: ৭:৫৭
আসন্ন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়ার খাতিরে নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম ও মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শকের প্রত্যাহার দাবি করেছেন বিএনপি সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী । তার অভিযোগ করেন, নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করতে সাদা পোশাকে পুলিশ বাড়ি বাড়ি গিয়ে দলের নেতাকার্মীদের গ্রেপ্তার করছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে নগর বিএনপির কার্যালয়ে সিটির সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন। এছাড়া বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট এ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবরে মিথ্যা, ভিত্তীহীন, বানোয়াট মামলায় বিএনপির মনোণীত প্রার্থীর দলীয় নেতাকর্মীদের আটকের প্রতিকার ও অতি উৎসাহী পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রত্যাহারের আবেদন জানান।

এদিকে বিএনপির অভিযোগকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, পুরোন অভ্যাসের অংশ হিসেবে রাসিক নির্বাচন ঘিরেও বিএনপি শুরুতেই নানা অভিযোগ করে চলেছে। কিন্তু তারাই নানাভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে চলেছে।
বিএনপি জানিয়েছে, প্রচারণার শুরুর দিন থেকে ধানের শীষের ব্যানার-পোস্টার লাগাতে বাধা দেয়া, পোস্টার-ফেস্টুন ছিড়ে ফেলা, দলীয় কর্মীদের গ্রেপ্তার, মারধর ও হুমকি দেয়া হচ্ছে। যতদিন যাচ্ছে তারা আগ্রাসী হয়ে উঠছে।
বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, দুই দিনে জেলা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদকসহ অন্তত ১৮ জন নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।
তাদের অনেককে বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে চালান দেয়া হয়েছে। সাদা পোশাকে পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধানের শীষের পক্ষে কাজ না করতে নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। এছাড়া গতকাল বুধবার রাতে চেম্বার ভবনের সামনে পোস্টার টাঙ্গাতে গেলে নৌকার সমর্থকরা আমার এক কর্মীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে। পরে তাকে পুলিশেও দেয়া হয়েছে। মাত্র দুই দিনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী অবৈধভাবে অন্তত চার কোটি টাকার পোস্টার, ব্যনার ছাপিয়েছে বলেও অভিযোগ বিএনপি প্রার্থীর। আজ সকালে নগরীর ১৬ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় জনসংযোগ করেন বুলবুল। বিকেলে আদালত চত্বর থেকে শুরু করে ২ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি।   

বিএনপির অভিযোগ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বিএনপির মেয়রপ্রার্থীর লোকজনই বিভিন্ন স্থানে আমার ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলছে। তারা আমার সমর্থকদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। কাজেই তাদের অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই।
তিনি আরো বলেন, মাঠে খেলতে নামার শুরুতেই যদি কেউ ঝগড়া বাধানোর চেষ্টা করে তাহলে বুঝতে হবে পরাজয় নিশ্চিত জেনে তারা খেলতে চাচ্ছে না। বিএনপির অবস্থা হয়েছে তাই। তারা পরাজয় নিশ্চিত জেনে শুরুতেই নানা ধরনের অভিযোগ করা শুরু করেছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Siddique

২০১৮-০৭-১২ ০৭:২৯:১৫

Why we are not using our respected Army for peaceful, free and fair Elections?

আপনার মতামত দিন

নরসিংদীতে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের মামলা, গ্রেপ্তার ১৩

সিবিআইকে রাজ্যে ঢুকতে দেবেন না মমতা

শ্রীনগরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১০ মামলার আসামী নিহত

শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে মরিচবাঁটা, বই-চেয়ার ছোড়াছুড়ি!

নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই: মার্কিন থিংক ট্যাংক

নিরপরাধীদের হয়রানি না করতে পুলিশকে নির্দেশনা দেবে ইসি

আপিল করলেই খালেদা জিয়ার মনোনয়ন বৈধ!

ইসির হস্তক্ষেপ চেয়ে বিএনপির চিঠি

সব সাম্প্রদায়িক শক্তি ধানের শীষে ভিড়েছে

মেগাজোট: আসন নিয়ে দরকষাকষি

শতভাগ সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না-কবিতা খানম

সংখ্যালঘুদের স্বার্থবিরোধী কাজে জড়িতদের মনোনয়ন না দেয়ার দাবি

নরসিংদীতে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ৪

পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিপুণ রায় চৌধুরী

সম্পাদকদের দৃষ্টিতে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক (অডিও)

কওমি সনদের স্বীকৃতি করুণা নয়, ন্যায্য অধিকার