ইংলিশরা এখন আর হাসির পাত্র নয়

প্রথম পাতা

অ্যালান শিয়েরার | ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৫
দুই বছর আগে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের (ইউরো) দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নেয় ইংল্যান্ড। তখন অনেকেই ইংলিশ দলকে বিদ্রূপ   করতে ছাড়েননি। কিন্তু ইংল্যান্ড এখন আর হাসির পাত্র নয়। এখন সবাই জানে আমরা কেমন দল এবং কীভাবে খেলি। আমি মনে করি এই বিশ্বকাপে কোচ গ্যারেথ সাউথগেট দলের সামর্থ্য প্রদর্শন করেছেন। এই দলটার বেড়ে ওঠা দেখতে পারাটা অসাধারণ। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে চ্যাম্পিয়ন হবো এমন মন্তব্য করিনি। শুধু উন্নতির ছাপ দেখতে চেয়েছি।
আমার মনে হয় না কেউ ভেবেছে ইংল্যান্ড সেমিফাইনাল খেলবে। আমি অন্তত ভাবিনি। কিন্তু এখন ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ইংল্যান্ড ফাইনালে উঠে গেলে এবং পরবর্তীকালে কী হবে সেটা চিন্তা করা হবে অসাধারণ অনুভূতি। মস্কো ও ইংল্যান্ডে সমর্থকরা শিরোপা স্বপ্নে বিভোর। বিশ্বকাপ জয়ের এটা সুবর্ণ সুযোগ।

বিশ্বকাপ ট্রফি আসলেই কি ঘরে ফিরবে? আমাদের সেই বিশ্বাসটা রাখতে হবে। সবকিছুই এখন পর্যন্ত ঠিকঠাক। ফুটবলবোদ্ধা ও সমর্থকদের মতো আমিও একইভাবে চিন্তা করছি। খেলোয়াড়ী জীবনে ১৯৯৬ ইউরোতে আমরা ঘরের মাঠে সেমিফাইনালে উঠি। তখন আমার একটাই চিন্তা ছিল, আমরা পারবো। সেবার অল্পের জন্য লক্ষ্য পূরণ হয়নি (সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে টাইব্রেকারে হার)। কিন্তু এবার তার ব্যতিক্রম হতে পারে। এই অনুভূতিটা সবাই পেয়ে গেছে। ৯৬’র ইউরোতে যখন একেকটা রাউন্ড অতিক্রম করছি নিজেদের অপ্রতিরোধ্য মনে হতো। এটা অসাধারণ অনুভূতি ছিল। আমি মনে করি বর্তমান ইংল্যান্ড দলেও সেটিই বিরাজ করছে।

প্রজন্মের প্রথম সেমিফাইনাল
সবশেষ ১৯৯০ আসরে সেমিফাইনাল খেলে ইংল্যান্ড। আমার বয়স তখন ১৯। টিভিতে পশ্চিম জার্মানির কাছে টাইব্রেকারে হার দেখি। ২০১৮ বিশ্বকাপ দলের ১৭ জনের তখন জন্মই হয়নি। ইংল্যান্ডের বর্তমান দলটা কতটা তরুণ সেটাই জানান দিচ্ছে। তারা এরই মধ্যে চমৎকারভাবে সেমিফাইনালে পৌঁছে গেছে। সুইডেনের বিপক্ষে (২-০, কোয়ার্টার ফাইনাল) জয়ের পর আমি টিভিতে বলেছিলাম, ১৯৯৬ বিশ্বকাপ জয়ের পথে ইংল্যান্ড যেভাবে খেলেছে, তারা শুধু ট্রফিতেই চোখ রেখেছে। সামনে যেই আসবে তাকেই হারাতে হবে। এই দলটা সেটাই করছে। অন্যতম সুখকর দিক হচ্ছে এরা একইসঙ্গে মজাও করছে আবার চমৎকার টিম স্পিরিট নিয়ে খেলছে। এত দূর আসার পেছনে এটা অন্যতম কারণ এবং আরো সামনে অগ্রসর হওয়ার আত্মবিশ্বাস দলটার রয়েছে।

ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ও দলীয় পারফরম্যান্সে দুর্দান্ত ইংল্যান্ড
কলম্বিয়ার বিপক্ষে টাইব্রেকারে জয়ের পর সুইডেনের বিপক্ষে আমি মোটেও উদ্বিগ্ন ছিলাম না। আমার বিশ্বাস ছিল ইংল্যান্ডের হাতেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ থাকবে এবং প্রত্যাশিত ফলই তারা পাবে। এবারের আসরে এটা আমাদের সেরা পারফরম্যান্স। আমরা দারুণভাবে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করেছি। সুইডেন বাছাইপর্বে ফ্রান্সকে হারায়। গ্রুপে নেদারল্যান্ডসের ওপরে অবস্থান নেয়। প্লে-অফে ইতালিকে হারিয়ে দেয়। এরকম একটি দলের বিপক্ষে এমন পারফরম্যান্স উদ্দীপক হিসেবে কাজ করবে। যেকোনো পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত থাকতে এটা খুবই ভালো চিহ্ন। এই দলটার একটা পরিকল্পনা রয়েছে। ম্যাচে তারই ছাপ দেখা যাচ্ছে। এটা স্পষ্ট করে যে আমাদের খেলোয়াড়রা কতটা ভালো। বিশ্বকাপ শুরুর আগে শীর্ষ লেভেলে গোলরক্ষক, ডিফেন্স ও মাঝ মাঠ নিয়ে উদ্বেগ ছিল। শুধু হ্যারি কেইন থাকায় আক্রমণভাগ নিয়ে কোনো চিন্তা ছিল না। সব পজিশনেই এখন আমরা চিন্তামুক্ত থাকতে পারছি। এককভাবে সবাই ভালো করছে। এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তি।

ক্রোয়েশিয়াকে শ্রদ্ধা, ভয় নয়
টুর্নামেন্টের শুরুতেই আমরা দেখিয়েছি সেটপিসে আমরা কতটা বিপজ্জনক। তাই প্রতিপক্ষের জন্য ভয়ের কারণটা আরো বেড়েছে। তারা সেটপিসে আমাদের থামাতে কাজ করে যাচ্ছে। কিছু দল আমাদেরকে ফাউল করে খেলার চেষ্টা করে, যেটি তাদের কাজে দেয়নি। কেউই আমাদের থামাতে পারেনি। বেলজিয়াম ম্যাচে (১-০তে হার) আমরা পূর্ণশক্তির দল ছিলাম না। আমি মনে করি ইংল্যান্ডের ফ্রি-কিক ও কর্নার ক্রোয়েশিয়ার জন্য মাথাব্যথার কারণ। তাদের দলে লুকা মদ্রিচ ও ইভান রাকিটিচের মতো প্রতিভাবান খেলোয়াড় রয়েছে। চমৎকার একটি টুর্নামেন্ট পার করছে ক্রোয়েশিয়া। দল হিসেবে তাদের আমাদের শ্রদ্ধা করতে হবে। কিন্তু ভয় করার কোনো কারণ নেই এবং আমি মনে করি না ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা ভয় নিয়ে মাঠে নামবে। দলের ছন্দ ও নিজেদের প্রতি বিশ্বাসে আমি অভিভূত। আমার বিশ্বাস এবারের আসরে আমাদের দুর্দান্ত যাত্রা অব্যাহত থাকবে। ইংল্যান্ড দল অবশ্যই শিরোপা নিয়েই বাড়ি ফিরতে চাইবে।
সূত্র: বিবিসি



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আড়াইহাজারে বজ্রপাতে নিহত ১

বড় রাজনৈতিক দল অংশ না নেয়ায় হতাশ সিইসি

ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় বাদ জোহর কবি আল মাহমুদের শেষ জানাযা

সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের কেন এত গুরুত্ব পাকিস্তানে!

আবুধাবি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

তুরাগ তীরে ২য় পর্বের ইজতেমা শুরু, বৃষ্টিতে দুর্ভোগ

মুন্সীগঞ্জ ও কুষ্টিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ইরাকে একসঙ্গে ৭ সন্তান প্রসব

আর কত নিচে নামবে মানুষ নামের এইসব নরপিশাচ!

চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫

শামিমা ইস্যুতে বৃটেনকে যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা

বোরকা পরে নারীদের টয়লেটে, অতঃপর...

প্রকাশ্যেই ইউরোপকে ভর্ৎসনা করলেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট

‘পরীক্ষার কারণে অনেক কিছু করতে পারছি না’

প্রথম যাত্রাতেই বিকল ভারতের দ্রুতগামী ট্রেন

কেমন আছেন স্লামডগের সেই রুবিনা