খুলনায় ব্যবসায়ী সুমন হত্যা মামলায় যুবলীগ নেতা শহীদ আলী কারাগারে

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে | ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার
খুলনার ব্যবসায়ী হারুন-অর রশিদ খান ওরফে সুমন (৩৫) হত্যা মামলায় সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ শহীদ আলীকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার শহীদ আলী আদালতে আত্মসমর্পণের পর জামিন আবেদন করেন। মহানগর হাকিম মো. শাহিদুল ইসলাম শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণে এ আদেশ দেন। তাছাড়া মামলাটির বিচারকার্য শুরুর জন্য মহানগর দায়রা জজ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ মামলায় ইতিমধ্যে ৭ জনকে অভিযুক্ত করে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে। আদালতে একজন আসামির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নাম আসায় যুবলীগ নেতা শহীদ আলীকে চার্জশিটভুক্ত করেছে পুলিশ। গত ২০১৭ সালের ৭ই জুলাই রাতে ব্যবসায়ী সুমনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়। সুমনের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে আসামি মো. জাহিদ হাসান রাসেল।
এরপর মো. সেলিম শেখ (৩১), মো. বাবু ওরফে রড বাবু (৩২), ছোট রনি (২৫) ও মো. আলামিন শিকদার (১৯) সহ অন্যরা সুমনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে বলে ২০১৭ সালের ৮ই জুলাই এ হত্যাকাণ্ডে গ্রেপ্তার দুই আসামি একই আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়।
তারা হলো চার্জশিটে প্রধান অভিযুক্ত নগরীর আজাদ লন্ড্রির মোড়স্থ নর্থখাল এলাকার ব্যাংক রোডের ফিরোজ কসাইয়ের বাড়ির ভাড়াটিয়া মো. সেলিম শেখ ও মহিরবাড়ির বড় খালপাড় এলাকার মো. রুস্তম আলীর ছেলে মো. জাহিদ হাসান রাসেল।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ব্রিজের নিচ থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

দাবি ও ১২ লক্ষ্য চূড়ান্ত করেছে বিএনপি

তারা কেন এত উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছেন?

দৃশ্যপটে বৃহত্তর জোট এক মঞ্চে উঠছেন বিরোধী নেতারা

সিনহার বই নিয়ে বাহাস

কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রথম দিককার চিঠি

নিউ ইয়র্কে দুটি অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

পবিত্র আশুরা আজ

তারুণ্যের ব্যর্থতায় লজ্জার হার

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে

মানবাধিকার ও নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে দুই সংস্থার উদ্বেগ

বাম জোটের কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত অর্ধশত

বিলে স্বাক্ষর না করতে প্রেসিডেন্টের প্রতি সাংবাদিক নেতাদের আহ্বান

১০ কার্যদিবসের সংসদ অধিবেশনে ১৮টি বিল পাস

এখনো জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

জনগণের বিরুদ্ধে নয়, কল্যাণে আইন করতে হবে