প্রতারণা মামলায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কারাগারে

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার
মামাতো ভাইয়ের দায়ের করা আর্থিক প্রতারণা মামলায় কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ডা. মো. আব্দুল হাই কে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৩ এ হাজির হয়ে ডা. মো. আব্দুল হাই জামিন আবেদন করলে আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহম্মদ আব্দুন নূর জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
আদালত ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ডা. মো. আব্দুল হাই ২০১৪ সালের ১৫ই এপ্রিল ব্যক্তিগত প্রয়োজনে তার মামাতো ভাই কিশোরগঞ্জ শহরের চরশোলাকিয়া এলাকার জসিম উদ্দিন সুজনের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা ধার নিয়েছিলেন। এক বছরের মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়ার শর্তে দুই পক্ষের মধ্যে ননজুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারপত্রও সম্পাদন করা হয়। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টাকা পরিশোধ না করে ডা. আব্দুল হাই নানা অজুহাত দেখিয়ে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। এমনকি টাকা চাইতে গিয়ে উল্টো হুমকির শিকার হন জসিম উদ্দিন সুজন।
এ পরিস্থিতিতে গত ২৯শে মার্চ মামাতো ভাই জসিম উদ্দিন সুজন বাদী হয়ে ডা. আব্দুল হাই এর বিরুদ্ধে আদালতে প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় ডা. আব্দুল হাই দু’বার আদালতে হাজিরা দিয়ে টাকা ফেরত দেয়ার অঙ্গীকার করেও তা ভঙ্গ করেন। মঙ্গলবার মামলার ধার্য্য তারিখে আদালতে হাজির হয়ে ডা. আব্দুল হাই জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। বাদী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন জেলা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মিয়া মো. ফেরদৌস ও অ্যাডভোকেট শেখর চন্দ্র সরকার।।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘এর জন্য অপেক্ষাতো করতেই হবে’

কোথাও বাবাকে খুঁজে পাননি নাসরিন

যমজ সন্তান মর্গে এলো বাবাকে খুঁজতে

খালেদা তখন কী করছিলেন?

শ্রদ্ধা ভালোবাসায় অমর একুশে পালিত

রায় লিখুন বাংলায়, যাতে মানুষ বোঝে: প্রধানমন্ত্রী

বাবাকে খুঁজছে রাফিন

চারদিন পরই ছিল দু’জনের চূড়ান্ত পরীক্ষা

লিজার এজাহার ব্যবসায়ীদের জিডি

তিন জার্মান সাংবাদিকসহ আহত ৬

যেভাবে বিদেশে পাচার হচ্ছে অর্থ

শামিমাকে বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার প্রশ্নই ওঠে না

ঢামেকের বার্ন ইউনিটে কাতরাচ্ছেন ৯ জন

আগুনের লেলিহান শিখার মধ্যেও অক্ষত মসজিদ

বোনের বিয়ের বাজার করা হলো না রোহানের

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর জন্য নামেননি স্বামীও