আরিফের হুঁশিয়ারি

‘বাড়াবাড়ি হলে, হয় মরবো নয় বাঁচবো’

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৭
‘আল্লাহর কসম করে বলছি- আর যদি বাড়াবাড়ি হয়, হয় মরবো না হয় বাঁচবো।’ গতকাল সিলেট বিএনপির মেয়রপ্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী নির্বাচন কমিশনে হাজির হয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলিমুজ্জামানকে এ কথা বলে সতর্ক করে দেন। ক্ষুব্ধ আরিফ গতকাল বেলা আড়াইটার দিকে বিএনপির নেতাদের সঙ্গে নিয়ে ছুটে যান নির্বাচন কমিশনে। সেখানে তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে তার অভিযোগ তুলে ধরেন। অভিযোগের একপর্যায়ে আরিফ নির্বাচনী কর্মকর্তাকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘এখানে পুলিশ অতি উৎসাহি করে, আর তাহলে নির্বাচন করবো কী করবো না- সেটা পরে সিলেটের মাটিতে ফয়সালা হয়ে যাবে। এই মাটি এমন এক মাটি, এই মাটিতে কোনো অন্যায়ের প্রশ্রয় নেই।’ তিনি নির্বাচনী কর্মকর্তাকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ‘এটা গাজীপুর না, এটা খুলনা না, এটা সিলেট। আমরার ৩৬০ জন আউলিয়া এ মাটির মাঝে শায়িত। আল্লাহর কসম করে বলছি, আর যদি বাড়াবাড়ি হয়, হয় মরবো না হয় বাঁচবো।’ এ সময় তিনি বলেন, ‘সিলেটের পুলিশ সিলেট মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ খসরুর বাসায় অভিযান চালিয়েছে। রোববার রাতেও পুলিশের একটি দল ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতির বাসায় তল্লাশি চালিয়েছে।
বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়ি-বাড়ি তল্লাশি শুরু করেছে। এটা হতে পারে না। এটা একচোখা নীতি। তিনি এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্বাচনী কর্মকর্তাকে অনুরোধ করেন। আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘আজ (গতকাল) সকালেও তার বাসার সামনে কুমার পাড়ায় নিজেদের প্রার্থী নিয়ে জামায়াতে ইসলামী লিফলেট বিতরণ করছে। এ সময় তাদের সঙ্গে অনেক মানুষ ছিল। পাশাপাশি শ্রমিকলীগ সিলেট নগরীর গুলশান সেন্টার ভাড়া করে সমাবেশ করেছে। নির্বাচন কমিশন থেকে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।’

আরিফের সঙ্গে পুলিশের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ জানান উপস্থিত থাকা সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন ও কেন্দ্রীয় নেতা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক। নাসিম হোসাইনের বাসায় গিয়েও পুলিশ ঘুরে এসেছে বলে জানান। এদিকে, নির্বাচন কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করে এসে আরিফুল হক চৌধুরী সাংবাদিকদের কাছেও একই অভিযোগ করেন। আরিফ বলেন, ‘আমি কোনো প্রচারণায় নেই। নিজের বাসায় বসে যা পারছি করছি। কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা প্রচারণা শুরুর আগেই মিছিল, মিটিং ও গণসংযোগ করছেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশন থেকে কোনো কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না।’ রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দায়ের করার পর সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছেও যান আরিফুল হক চৌধুরী। সেখানে গিয়েও তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তিনি পুলিশ কমিশনারের কাছে দাবি জানান। এদিকে, গতকাল দুপুরে একটি ফ্লাইটে সিলেটে পৌঁছেন সিলেটের নির্বাচনের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি সিলেটে পৌঁছেই হোটেল রোজভিউতে বিএনপির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। আর ওই বৈঠকের পরপরই নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে ছুটে যান আরিফুল হক চৌধুরী।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাক্সবন্দি হবে বাকস্বাধীনতা

যেখানে কোটা সংস্কারের মিছিল সেখানেই ছাত্রলীগ

ইভিএম কেনার প্রকল্প অনুমোদন

তিন প্রকল্প উদ্বোধন করলেন হাসিনা-মোদি

খালেদার সঙ্গে দেখা করতে পারেননি আইনজীবীরা

জনগণ তাদের খুঁজে বের করে বিচার করবে

সোহেল গ্রেপ্তার

নির্বাচনের তফসিল স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন

নড়িয়ায় হাহাকার

যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী, গুরুত্ব পাবে রোহিঙ্গা ইস্যু

নিশ্চিত জাতীয় পার্টি আবার ক্ষমতায় যাবে

সৈয়দ আশরাফ অসুস্থ, ছুটি মঞ্জুর

সড়কে বিশৃঙ্খলা কোনো উদ্যোগেই ফল মিলছে না

শহিদুল আলমের জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৫

এমপিও নিয়ে নানামুখী প্রতারণা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা